সর্বশেষ সংবাদ :

রাজশাহীর সমাবেশে বিএনপির অংশগ্রহণ ঠেকাতে হামলা ও মিথ্যা মামলার অভিযোগ

নওগাঁ প্রতিনিধি: আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে দলীয় বিএনপির নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণ ঠেকাতে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে হামলা ও মিথ্যা মামলার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে নওগাঁ শহরের কেডির মোড় দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করে নওগাঁ জেলা বিএনপির নেতারা।
এর আগে সকাল ১০টায় বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি ও ভীতি সৃষ্টি করার উদ্দেশ্যে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে এবং আগামীতে নিজেদের দলীয় কার্যালয়, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অথবা নিজেদের যানবাহনে কোনোরূপ ক্ষতিসাধন করে বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দায়ে বিষয়টি অবগত করে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ কাছে স্বারকলিপি দেয় জেলা বিএনপি।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু বক্কর সিদ্দিক নান্নু অভিযোগ করেন, আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে দলীয় নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণ ঠেকাতে সরকার বিভিন্ন অপকৌশলের আশ্রয় নিয়েছে। গত পাঁচ দিনে নওগাঁর বিভিন্ন উপজেলায় বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিএনপির নিরীহ নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালিয়ে, নিজেরা ভাঙচুর ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিায়ে উল্টো বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। এ পর্যন্ত বিএনপির সাত নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এছাড়া প্রতিদিন বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।
লিখিত বক্তব্যে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাণীনগর থানা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে রাণীনগর ইউনিয়ন বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন চলাকলে আওয়ামী লীগের কর্মীরা হামলা চালিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের আহত করে এবং দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায়। পরে তারাই বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় গতকাল রাতে পাভেল ও মানিক নামে যুবদলের দুই কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে নিজেরাই ভাঙচুর ও ককটেল বিস্ফোরণ করে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে। একই কায়দায় গতকাল সোমবার রাত মহাদেবপুর উপজেলা সদরে আওয়ামী লীগের কর্মীরা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। পরে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের মামলা দিয়েছে। ওই মামলায় গতকাল রাতে মহাদেবপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ন-আহ্বায়ক এরশাদ আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ ঘিরে গতকাল বিকেলে সাপাহারে নিশ্চিন্তপুর বাজারে গণসংযোগ চালাচ্ছিল বিএনপির নেতার্মীরা। সেখানে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়ে বিএনপির ১০-১২ জন নেতকর্মীকে আহত করেন। পরে রাতে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় রাতেই আবু বক্কর সিদ্দিক ও আব্দুল কাহার নামে বিএনপির দুইজন নেতাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উল্লেখ করা হয়, আজ সকাল ১০টার দিকে আত্রাই উপজেলার কাশিয়াবাড়ী বাজারে বিএনপির গণসংযোগ চলাকালে সেখানে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালানো হয়। এতে আত্রাই উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুল জলির (চকলেট) সহ বিএনপির ১০-১২ জন নেতাকর্মী আহত হন। এই হামলায় নেতৃত্ব দেন আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আক্কাস আলী।
আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, ইতোপূর্বে অনুষ্ঠিত বিএনপির সমাবেশে গণজোয়ার দেখে সরকার ভয় পেয়েছে। রাজশাহী বিভাগ হলো বিএনপির ঘাটি। ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ এবং ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় মহাসমাবেশে লাখ লাখ মানুষ অংশগ্রহণ করে এই সরকারের পতনকে ত্বরানিত্ব করবে। এসব সমাবেশে বিএনপির নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণ ঠেকাতে সরকারের অপকৌশলের অংশ হিসেবে নওগাঁয় বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও বিএনপির কর্মসূচিতে হামলা চালানো হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও নওগাঁ পৌরসভার মেয়র নজমুল হক, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, জেলা বিএনপির সদস্য সচিব বায়েজিদ হোসেন, জেলা বিএনপির যুগ্ন আহ্বায়ক শেখ রেজাউল ইসলাম রেজু, মামুনুর রহমান, আমিনুল ইসলাম, শফিউল আজম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


প্রকাশিত: নভেম্বর ২৩, ২০২২ | সময়: ৬:০২ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর