সর্বশেষ সংবাদ :

পাকিস্তান দলকে ভারতে বিশ্বকাপ জেতার চ্যালেঞ্জ দিলেন শোয়েব

স্পোর্টস ডেস্ক: কাকতালীয়ভাবে সবকিছু মিলে যাচ্ছিল ৩০ বছর আগের ওয়ানডে বিশ্বকাপের সঙ্গে। মেলেনি শুধু ফাইনালের ফল। ১৯৯২ সালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলেও এবার পারেনি পাকিস্তান। তাতে অবশ্য হতাশ হতে রাজি নন শোয়েব আখতার, ম্যাথু হেইডেনরা। সামনে আরও বড় সুযোগ দেখছেন তারা।
পাকিস্তানের সাবেক গতিময় পেসার শোয়েব তো উত্তরসূরিদের একটি চ্যালেঞ্জও ছুড়ে দিয়েছেন। আগামী বছর ভারতে অনুষ্ঠেয় ওয়ানডে বিশ্বকাপ শিরোপা জিতে নায়ক হয়ে দেশে ফিরতে বলছেন তিনি বাবর আজমদের।
মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে রোববার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে ৫ উইকেটে হারে পাকিস্তান। ব্যাটিং ব্যর্থতায় বড় পুঁজি পায়নি তারা। তবে ১৩৭ রান নিয়েই ইংলিশদের কঠিন পরীক্ষা ফেলে দেন দলটির বোলাররা। হারিস রউফ, নাসিম শাহদের গতিতে হিমশিম খান ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা। কব্জির জাদু দেখান শাদাব খান। তবে খেই হারাননি বেন স্টোকস। চার নম্বরে নেমে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি হাঁকিয়ে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। ম্যাচ শেষে স্বাভাবিকভাবেই চ্যাম্পিয়নদের বন্দনায় মেতেছে ক্রিকেট বিশ্ব।
দারুণ লড়াই করায় পাকিস্তানের খেলোয়াড়দেরও পিঠ চাপড়ে দিলেন শোয়েব। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে এক ভিডিওতে মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের হাতে শিরোপা দেখতে চাওয়ার কথা বললেন তিনি। ওয়ানডে বিশ্বকাপের সূচি অবশ্য এখনও প্রকাশ করেনি আইসিসি।
“তোমাদের মাথা উঁচু থাকা উচিত। ভেঙে পড়ার কোনো কারণ নেই। এটি দুর্ভাগ্যজনক ছিল। তবে ঠিক আছে। তোমরা আমাকে খুশি করেছ। কারণ পাকিস্তান অসাধারণ লড়াই করেছে। ভালো একটি ম্যাচ হয়েছে। এখন দল বাছাইয়ের ক্ষেত্রে ও ফিটনেসের বিষয়ে কঠোর থাকতে হবে।” “আগামী বছর (ওয়ানডে) বিশ্বকাপ হবে ভারতে। যে-ই নায়ক হতে চাও, ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ট্রফি উঁচিয়ে ধরো এবং পাকিস্তানে নিয়ে এসো। এটি তোমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। ফিটনেস নিয়ে কাজ করো। ভারতে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ হবে। এটা আমাদের বিশ্বকাপ হওয়া উচিত। নিজেকে তুলে ধরো, কঠোর পরিশ্রম করো। পরের বিশ্বকাপ আমাদেরই হবে।”
শোয়েবের মতোই পাকিস্তানের খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সে গর্বিত দলের অস্ট্রেলিয়ান মেন্টর হেইডেন। ফাইনাল হারের পর ড্রেসিংরুমে তিনি বলেছেন, তরুণদের নিয়ে গড়া এই দলের বিশ্বকাপ জেতার ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। “আশা করি, আমাদের এই দলের অর্জনে প্রত্যেকে গর্বিত। সবাইকে আমি ধন্যবাদ দিতে চাই। সাপোর্ট স্টাফের পক্ষ থেকে বলব, এই গল্পের অংশ হতে পেরে আমরা খুবই সম্মানিত ও আনন্দিত বোধ করছি।”
“এক মাস আগে ফিরে যাও। সবাই আমার বাড়িতে খাবার খাচ্ছিলাম। তখন বলেছিলাম বিশ্বকাপ জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী আমি। না, সেই ভাবনা এখনও বদলায়নি। কিছুই বদলায়নি। আমি আশাবাদী, এই তরুণ দলটি বিশ্বকাপ জিততে পারবে।” ৩০ বছর আগে পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ইমরান খান বর্তমান দলকে বিশ্বের সেরা দলগুলোর কাতারেই রাখছেন। ডন নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের ফাস্ট বোলারদের প্রশংসায় ভাসিয়েছেন সাবেক এই অলরাউন্ডার।
“আমি অনেকদিন পর ক্রিকেট খেলা দেখছিলাম। আমাদের ফাস্ট বোলিং আক্রমণ নিয়ে বলতে চাই বিশেষ করে, আজকে (রোববার) আমি যা দেখেছি তা বিশ্বের সেরা ফাস্ট বোলিং আক্রমণ। আমাদের দল এখন বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি।”


প্রকাশিত: নভেম্বর ১৫, ২০২২ | সময়: ৬:০২ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ