কর্মচারীদের ডেকে এনে সংবর্ধনা নিলেন বিএমডিএর সেই জীবন

স্টাফ রিপোর্টার : এটিএন নিউজে লাইভ চলাকালীন দুই সাংবাদিককে পেটানোর মামলায় কারাগার থেকে গত সোমবার জামিনে মুক্ত হন বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) বরখাস্ত হওয়া ভাণ্ডার রক্ষক মো. জীবন। এর পর ওইদিন কার ফটকেই তাকে বিএমডিএর কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী গলায় ফুলের মালা পরিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
মঙ্গলবার রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর ও নওগাঁ জেলার অন্তত ২০০ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে জোর করে ডেকে নিয়ে এসে বিএমডিএ ভবনে সংবর্ধনা নেন বরখাস্ত এই কর্মচারি। এর পর তারা মামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ করে রাজশাহীর সাংবাদিকদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এ সময় তারা আবারও সাংবাদিকদের মারধরের হুমকি দেয়।
বরখাস্ত হওয়া কর্মচারীর এই ধরনের কর্মকান্ডের পর রাজশাহীর সাংবাদিকদের মাঝে চরম ক্ষোভ চড়িয়ে পড়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেয়া হয়। দড়িখরবনা মোড়ে বেলা ১১টায় এই বিক্ষোভ সমাবেশ করবে রাজশাহীর সাংবাদিকরা।
বিএমডিএর একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী জানান, বরখাস্ত হওয়া ভান্ডার রক্ষক জীবনের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল সকাল নয়টার দিকে শুরু হয় বিএমডিএর প্রধান কার্যালয় চত্তরে। মিছিলটি ভবনের বিভিন্ন চত্তর পরিদর্শন করে প্রধান ফটকের সামনে এসে থামে। এর পর সেখানে সমাবেশ করা হয়। এ সময় রাজশাহীর সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন জীবনসহ এ কর্মসূচিতে অংশ নেয়া কয়েকজন।
এই কর্মসূচিতে অংশ নেয়া কয়েকজন কর্মচারী বলেন, ‘ভান্ডার রক্ষক জীবন মোবাইল ফোনে কল করে চার জেলার প্রত্যেক জোন থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মঙ্গলবার সকাল নয়টার মধ্যে প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে বলেন। এর পর কিছু কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী বাধ্য হয়ে ওই কর্মসূচিতে যোগ দেন। কারণ; জীবন বিএমডিএর নির্বাহী পরিচালকের একান্ত কাছের লোক হিসেবে পরিচিত। তাই তার জন্য মিছিল করতে চার জেলার বিভিন্ন জোন থেকে প্রধান কার্যালয়ে এসে প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেন প্রায় দুইশো কর্মকর্তা-কর্মচারী। পরে তারা বিএমডিএ কার্যালয়ে ভুরিভোজেও অংশ নেন।
সূত্রমতে, বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশের পর জীবন তাঁর দল-বল নিয়ে বিএমডিএর চেয়ারম্যান আখতার জাহান ও নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদের সঙ্গেও বৈঠক করেন। নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদও দুই সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার এক নম্বর আসামি। তিনি গত কয়েকদিন আগে জামিন নেন আদালত থেকে।
রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিএমডিএ প্রতিষ্ঠানটি দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আখড়ায় পরিণত হয়েছে। এ কারণে সেখানে সাংবাদিকরা তথ্য সংগ্রহ করতে গেলেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এর অংশ হিসেবেই এটিএন নিউজের দুই সাংবাদিকের ওপর হামলা করা হয়েছিল।
তিনি বলেন, তাদের উদ্ধত্ব আচরণ থামেনি। আবার সাংবাদিকদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধরের হুমকি দিচ্ছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। পাশাপাশি এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত জীবনসহ অন্যদের গ্রেপ্তার এবং অফিস সময়ে কাজ ফেলে বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়া কর্মচারি কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’
গত ৫ সেপ্টেম্বর বিএমডিএ কার্যালয়ের সামনে সরাসরি সম্প্রচারের সময় হামলায় আহত হন এটিএন নিউজের রাজশাহী প্রতিনিধি বুলবুল হাবিব ও ক্যামেরাপার্সন রুবেল ইসলাম। এ ঘটনায় বিএমডিএর নির্বাহী পরিচালক আবদুর রশিদকে প্রধান আসামি করে সাতজনের নাম উল্লেখ্যসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন বুলবুল হাবিব। এ মামলায় গ্রেপ্তার দুজনই জামিন পান। এছাড়া সম্প্রতি আদালতে হাজির হয়ে জামিন নেন নির্বাহী পরিচালক আবদুর রশিদ।


প্রকাশিত: অক্টোবর ২৬, ২০২২ | সময়: ৬:৪২ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ