সর্বশেষ সংবাদ :

ইচ্ছা পূরনের ফেরিওয়ালা পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম 

নুরুজ্জামান,বাঘা :

সাধ আছে সাধ্য নেই , এমন মানুষ নিশ্চয়ই স্বপ্ন দেখেন আলাদিনের সেই চেরাগের । যাতে ঘষা দিলেই দৈত্য এসে স্বপ্নটা পূরণ করে দেবে। সমাজের সামর্থ্যহীন মানুষের স্বপ্ন পূরণে এভাবে কেউ যদি এগিয়ে আসেন, তবে তিনি হবেন সত্যিকারের ইচ্ছা পূরণের ফেরিওয়ালা। বাস্তবেই এমন একজন সাদা মনের মানুষ ও ফেরিওয়ালার দেখা পেয়েছেন রাজশাহী জেলার চারঘাট-বাঘার মানুষ।  তিনি হলেন স্থানীয় সাংসদ ও  পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ শাহরিয়ার আলম। মঙ্গলবার বাঘার এক বৃদ্ধা নারীকে ফ্রিজ উপহার দিয়ে নতুন করে আলোচিত হয়েছেন তিনি।

 

 

 

জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত এই মানুষটি পরপর তিন বার নির্বাচিত সাংসদ এবং পর-পর দুইবার বর্তমান সরকারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। তিনি তাঁর সম্মানী ভাতার অর্থ শিক্ষাখাতে ব্যায় করে থাকেন। এ ছাড়াও নিজ উদ্যোগে নানামুখী অনুদান-সহ অসংখ্য গরিব-দু:খি মানুষের কল্যানে পাশে দাড়ান। সর্বশেষ একজন বৃদ্ধকে ফ্রিজ কিনে দিয়ে অত্র এলাকায় সর্বমহলের কাছে প্রশংশিত হয়েছেন।

 

 

 

 

বাঘা মোজাহার হোসেন মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ ও সাবেক উপজেলা আ’লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নছিম উদ্দিন জানান, গত ২১ অক্টোবর বাঘায় একটি উন্নয়ন মূলক কাজের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মন্ত্রী মহোদ্বয়ের কাছে এসে দাড়ালেন ষাটোর্ধ্ব বয়স্ক নারী জেলেমনি। তাঁর বাড়ি উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের পাওসাওতা গ্রামে।

 

 

 

 

তিনি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমকে বললেন, তুমি আমার বেটা, আমাকে একটা ফ্রিজ কিনে দাও। আমি একটু একটু করে খাবার ফ্রিজে রাখবো, এরপর একটু একটু করে ফ্রিজ থেকে খাবার বের করে খাব। বৃদ্ধ নারীর এ কথা শুনে হতবাক হয়ে তাঁর মুখের দিয়ে চেয়ে রইলেন মন্ত্রী মহোদয়। অত:পর রাজি হলেন তিনি। এরপর আমাকে ফ্রিজটি কিনে দেয়ার দায়িত্ব দিলেন। আমি মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ওয়ালটন প্লাজায় গিয়ে জেলেমনি কাংখিত চাওয়া ফ্রিজটি তার হাতে তুলে দিয়েছি।

 

 

 

বাঘার বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান খন্দকার মনোয়ারুল ইসলাম মামুন বলেন, আমরা চারঘাট-বাঘায় বিগত সময়ে অনেক এমপি,মন্ত্রী পেয়েছি। তবে শাহরিয়ার আলম একজন ব্যাতিক্রমী মানুষ। তিনি গরিব-দুখিদের ফেরিওয়ালা। শাহরিয়ার আলম নিজ অর্থায়নে ইতোমধ্যে দুটি ইউনিয়ন পরিষদ এবং একটি পৌর সভার ভবন নির্মানের জন্য জমি ক্রয় করে দিয়েছেন। এ ছাড়াও অভুত পূর্ব উন্নয়ন সহ-সকল অসচ্ছল মানুষদের আর্থিক সহায়তা এবং শিক্ষাখাতে তাঁর রয়েছে সর্বোচ্চ অবদান। যা বিগত সময়ে কেউ করেনি। আমরা বাঘাবাসি তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ।

 

 

 

সার্বিক বিষয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, আমার ধর্ম মানবতা। পৃথিবীতে নানা মত আর পথ আছে, আছে নানা বিশ্বাস আর ধর্মবোধ। তবে এগুলোর মধ্যে মানব ধর্মই সবচেয়ে বড় ধর্ম। মানুষ যখন এই মানব ধর্মকে সবার ওপরে স্থান দেবে, সব ভুল থেকে বেরিয়ে আসবে, তখন চিন্তা হবে কল্যাণকামী আর মানবপ্রেমী তবেই মানুষের সঙ্গে মানুষের প্রাণের সম্মিলন ঘটানো সম্ভব হবে। যেটি আমাদের প্রিয়নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা করে থাকেন।

সানশাইন / শাহ্জাদা মিলন


প্রকাশিত: অক্টোবর ২৫, ২০২২ | সময়: ৫:৩৬ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর