নগরীতে সংঘবদ্ধ ল্যাপটপ চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মহানগরীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর ল্যাপটপ চুরির অভিযোগে সংঘবদ্ধ চোর চক্রের সক্রিয় ৩ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে আরএমপি’র মতিহার থানা পুলিশ। এসময় আসামিদের কাছ থেকে রাবি শিক্ষার্থীর চুরি যাওয়া ল্যাপটপটি উদ্ধার হয়।
গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলো চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর থানার রহনপুরের ইলিয়াস আহমদের ছেলে এআর শাকিল আহমেদ (২৫), সে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার বালিয়াপুকুর বটতলার ছোটবনগ্রামের বাসিন্দা। অপর দুইজন চন্দ্রিমা থানার ছোটবনগ্রাম এলাকার মৃত আলতাব হোসেন মন্ডলের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান নয়ন (২৩) এবং সাজ্জাদ হোসেনের ছেলে মমিনুল ইসলাম মমিন (২৬)।
ঘটনা সূত্রে জানা যায়, গত ৯ সেপ্টেম্বর রাতে মতিহার থানার কাজলা এলাকার একটি মেসের গ্রিল কেটে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞানের শিক্ষার্থীর একটি ল্যাপটপ, একটি মোবাইল ফোন এবং সাড়ে ৫ হাজাট টাকা-সহ একটি মানিব্যাগ চুরি হয়। এ সংক্রান্তে মতিহার থানায় একটি মামলা রুজু হয়।
এ ঘটনায় আরএমপি’র পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক শিক্ষার্থীর চুরি যাওয়া মালামাল দ্রুত উদ্ধার-সহ আসামি গ্রেফতারে মতিহার থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন।
পরবর্তীতে উপ-পুলিশ কমিশনার মনিরুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আনেয়ার আলী তুহিনের নেতৃত্বে এসআই আমিনুর রহমান ও তার টিম আসামিদের নাম ঠিকানা সনাক্ত করে গ্রেফতার-সহ হারানো ল্যাপটপ, মোবাইল ও ম্যানিব্যাগ উদ্ধারে অভিযানে নামে।
এদিকে শাকিল নামের একটি ব্যক্তি তার ফেসবুকে একটি ল্যাপটপ বিক্রির পোস্ট দেয়। সেই পোস্টের সূত্রে ধরে মতিহার থানা পুলিশের ওই টিম ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুর সোয়া ১টায় আরএমপি সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় নিউ মার্কেটের দোতালায় কম্পিউটারের দোকান থেকে আসামি এআর শাকিল আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান নয়নকে গ্রেপ্তার করে। এসময় আসামিদের কাছ থেকে রাবি শিক্ষার্থীর চুরি যাওয়া ল্যাপটপটি উদ্ধার হয়।
জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা জানায়, তারা আসামি মোমিনুল ইসলামের কাছ থেকে ল্যাপটপটি ক্রয় করেছে। আসামিদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মতিহার থানা পুলিশ একই দিন দুপুর সোয়া ২ টায় চন্দ্রিমা থানার ভদ্রা আবাসিক এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আসামি মোমিনুলকে গ্রেপ্তার করে। সেই ল্যাপটপটি অপর এক ব্যক্তির কাছ থেকে ক্রয় করেছে বলে মোমিনুল জানায়।
গ্রেপ্তারকৃত সকলেই সংঘবদ্ধ সক্রিয় চোর দলের সদস্য। জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা জানায়, তারা বিক্রয়.কম-এর মাধ্যমে চুরির মালামাল বিক্রি করে থাকে। সহযোগী আসামিদের গ্রেপ্তারসহ অন্যান্য মালামাল উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত আছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।


প্রকাশিত: অক্টোবর ২, ২০২২ | সময়: ৬:৪৮ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর