রেঞ্জ সেরা হওয়ার পরে জেলাতেও পঞ্চম বারের মত শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হয়েছেন – সাজ্জাদ

নুরুজ্জামান,বাঘা : পৃথিবীর ইতিহাসে অনেক সফল ব্যক্তির নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা আছে। যুগে যুগে, কালে কালে, যারা স্মরণীয় ও বরণীয় হয়েছেন, প্রকৃতপক্ষে তাদের সাফল্যের পেছনে লুকিয়ে আছে কঠোর পরিশ্রম ও অধ্যবসায়। আধুনিক বিশ্বে যা কিছু আবিষ্কার হয়েছে সবই পরিশ্রমের ফসল। তারই এক জলন্ত উদাহরণ বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সাজ্জাদ হোসেন।

তিনি পর-পর চারবার জেলায় শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হওয়ার পর সম্প্রতি রাজশাহী রেঞ্জের সেরা ওসি নির্বাচিত হন। অত:পর চলতি মাসে আবারও জেলায় শেষ্ট ওসি নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর সাফল্য এবং প্রতিভার কথা এখন বাঘা বাসীর মুখে-মুখে ফিরছে। ইতোমধ্যে অনেকেই তাঁকে ফুল দিয়ে সংবর্ধিত করেছেন। আবার অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে তাকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন।

ইতিহাস ঘাটলে জানা যাবে, কিছু মানুষ বিশ্বাস করে, প্রতিভা বা ভাগ্যের দ্বারা অসাধ্য সাধন করা যায়। কিন্তু পৃথিবীতে যারা কীর্তিমান, তারা প্রতিভার চেয়ে কঠোর পরিশ্রমকেই গুরুত্ব দিয়েছেন বেশি। প্রখ্যাত বিজ্ঞানী স্যার আইজ্যাক নিউটন বলেছেন, সাফল্যের মাত্র দুই ভাগ হল প্রতিভা , আর বাকি আটানব্বই ভাগই হল কঠোর পরিশ্রম। ওসি সাজ্জাস হোসেন সেই পথ ধরে সামনে এগোচ্ছেন। তাঁর স্বপ্ন, একদিন তার পদোন্নতি হবে। এরপর তিনি মানুষের কল্যান ও জান-মালের নিরাপত্তা দেয়ার পাশা-পাশি দেশের উন্নয়নে নিজেকে ব্রত করবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ভালো কাজের স্বীকৃতি ও সাফল্য পুরুস্কার দেয়া হচ্ছে বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগে। সেই ধারাবাহিকতা পূর্বের যে কোন সময়েরে চেয়ে পুলিশ প্রশসনের মধ্যে দেখা দিয়েছে ব্যাপক পরিবর্তন এবং কাজ করার আগ্রহ। এদিক থেকে পর-পর চারবার রাজশাহী জেলার নয়টি থানার মধ্যে মাদক উদ্ধার, গ্রেফতারী পরোয়ানা তামিল, থানা এলাকার সার্বিক আইন শৃঙ্খলার নিরাপত্তা ,মানুষের জন্য সেবা মূলক কার্যক্রম ইত্যার্দি বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখার সুবাদে রাজশাহী জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হবার পর সম্প্রতি তিনি রাজশাহী রেঞ্জের ৭২ টি থানার মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। সর্বশেষ চলতি মাসে তিনি আবারও জেলা পুলিশের মাসিক মুল্যায়নে প্রথম স্থান অর্জন করেছেন। তাঁর এই খবরে আনান্দিত হয়েছেন থানার সকল পুলিশ সদস্য সহ-বাঘার সর্বস্থরের মানুষ।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আমরা সততা ও নিষ্টার সাথে কাজ করে যাচ্ছি। সেই সাথে সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়ন কার্যক্রমকে গতিশীল করার লক্ষে রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালনের পাশা-পাশি মানুষকে সার্বিক সহায়তা দেয়ার চেষ্ট করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, আমি অশেষ কৃতজ্ঞ রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এবং ডি.আই.জি স্যারের প্রতি। তাঁর মতে, এ সাফল্য শুধু আমার একার নয়, এই সাফল্য পুরো বাঘা থানা পুলিশের।


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২২ | সময়: ১০:০৮ পূর্বাহ্ণ | সানশাইন

আরও খবর