অধিক ফসল উৎপাদনে অস্ট্রেলিয়ান গবেষকদের সাথে কৃষকদের মতবিনিময়

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

 

পরিমিত সুষম সারের ব্যবহারের মাধ্যমে অধিক ফসল উৎপাদনের লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি গবেষকদের সাথে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কৃষকদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  মঙ্গলবার বিকেলে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার ছয়ঘাটি ঈদগাঁ ময়দানে এ মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়।

 

নিউম্যান প্রকল্পের সহযোগী প্রতিষ্ঠানসমূহের আয়োজনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ড. জেমস কুইলটি।

 

প্রকল্প কারিগরী কর্মকর্তা ড. মো. জহির উদ্দিনের সভাপতিত্বে উন্মুক্ত আলোচনা ও অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন নিউম্যান প্রকল্পের বাংলাদেশের প্রতিনিধি ড. এনামুল হক। এ ছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, প্রকল্প প্রধান অষ্ট্রেলিয়ার মারডক বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. রিচার্ড ডাব্লিউ বেল, গ্রিফিত বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি গবেষক ড. চেং গুরুং চেন, মিস বেলিন্ডা নিলসেন।

 

এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, বিআরআরআই মো. সালেক, কেজিএফ এর নির্বাহী পরিচালক ড.নাথুরাম, বিএইউ মো: জহিরউদ্দীন, বিএইউ ড. এএমআর জাহাঙ্গীর, বিএফএ জহিরুল ইসলাম, খান, বি এআরআই ড. এম এ মোনায়েম মিয়া, বি ডাব্লিউ এম আর আই ড. মো: ইলিয়াস আলী, বিএআরআই ড. জগদীশ চন্দ্র বর্মন, পিএসও এসআরডিআই মো: নাজমুল ইসলাম বিএআরআই, রাজশাহী, মো: নাজমুল ইসলাম,পিএসও, এসআরডিআই,ডিভিশনাল অফিস, রাজশাহী, রাজশাহী, জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম, মো: আনোয়ার হোসেন, ডাটা ম্যানেজমেন্ট অফিসার, কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট কর্মকর্তা রেজিয়া বেগম, অ্যাডমিন অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস অ্যাসোসিয়েট রুবিনা আক্তার বিনা, রাশেদ রানা, কাসপার সদস্যবৃন্দ সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার সুরক্ষা কৃষি কার্ড উপকারভোগী কৃষকরা।

 

এসময় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ এবং জমিতে রাসায়নিক সারের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে যার ফলে মাটির উর্বরতা শক্তি কমে যাচ্ছে। এ অবস্থায় কৃষকদের পরিমিত সুষম সারের ব্যবহারের মাধ্যমে অধিক ফসল উৎপাদনে কাজ করে যাচ্ছে নিউম্যান প্রকল্প। সরকারি বেসরকারি মিলিয়ে মোট ১২টি প্রতিষ্ঠান নিয়ে এক যোগে কাজ করে যাচ্ছে প্রকল্পটি।

 

 

সানশাইন/তৈয়ব


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৬, ২০২২ | সময়: ৭:৩৩ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine