সর্বশেষ সংবাদ :

আদালতের আদেশ অমান্য, সরকারী রাস্তা দখল করে ভবন নির্মান অব্যাহত

 

নিয়ামতপুর প্রতিনিধিঃ

 

আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও তা অমান্য করে, আদালত পুলিশ প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে সরকারী রাস্তা দখল করে ভবন নির্মানের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। সরেজমিনে জানা যায়, নওগাঁর নিয়ামতপুরে সরকারি রাস্তা দখল করে ভবন (পাকা বাড়ী) নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছে।

 

জানা যায়, নিয়ামতপুর উপজেলার পাড়ইল ইউনিয়নের ফুলহারা (বড় সমাসপুর) উপজেলার মৃত হযরত আলীর ছেলে খাইরুল ইসলাম (৪৫) নিজ দখলে থাকা সরকারী রাস্তার উপর ভবন (পাকা বাড়ী) আরসিসি পিলার দিয়ে নির্মানের কাজ শুরু করেছেন। ইতি মধ্যে ভবনের ২৫% কাজ শেষ হয়েছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞার কাজ পাওয়ার পর পুলিশ প্রশাসন সরেজমিনে গিয়ে ভবনের কাজ বন্ধ রাখার কথা বলে আসলেও অজ্ঞাত শক্তির কারণে খাইরুল ইসলাম ভবনের কাজ বন্ধ না করে চালিয়ে যাচ্ছেন।

 

খাইরুল ইসলাম বলেন, আমি আদালতের কোন কাগজ পাই নাই। তবে পুলিশ এসে কাজ বন্ধ রাখার কথা বলে। আমি ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের নির্দেশে বাড়ীর কাজ করছি। তা ছাড়া রাস্তার জন্য তো কিছু জমি ফেলে রাখা হয়েছে। তাতে চলাচলের অসুবিধা হওয়ার কথা না। আসলে গ্রামের কিছু মানুষ আমার এখানে ঘর করাটা সহ্য করতে পারছে না।’

 

এলাকারবাসীর আপত্তির পরও সে ভবনের (পাকা বাড়ী) নির্মানের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। বাড়ীর পুরোটাই সরকারী রাস্তার জায়গা। বাড়ীর মালিক খাইরুল ইসলাম নিজে স্বীকার করেছেন। যার ফলে স্থানীয়দের চলাচলে বাধাঁ সৃষ্টি হচ্ছে। অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে সরকারি রাস্তা থেকে ভবন সরানোর দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

 

গ্রামের সচেতন বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন বলেন, আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও আদালতকে অমান্য কোন কোন শক্তির বলে খাইরুল ইসলাম সরকারী রাস্তার উপর পাকা বাড়ী নির্মান করছে। আমরা গ্রামবাসী অবাক হয়ে যাই।

 

তিনি আরো বলেন, রাস্তাটি কাঁচা মাটির হলেও, এলাকাবাসীর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই রাস্তা দিয়ে আমরা রাজবাড়ী হাট, উপজেলা সদরের যাই, ভ্যান গাড়িতে প্রয়োজনীয় মালপত্র বাড়িতে নেই। কিন্তু যেভাবে ভবন নির্মান করা হয়েছে, তাতে রাস্তাাটি ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়বে। রাস্তাটি পাকা করার সময় বিঘ্ন ঘটবে।

 

সরকারী কর্মকর্তা পরিদর্শন করে বাড়ীর কাজ বন্ধ রাখতে বললেও তারা কাজ বন্ধ না করে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে বাড়ী কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইন চার্জ হুমায়ন কবির বলেন, আদালতের নিষেধাজ্ঞার কাগজ পাওয়ার পর আমার ফোর্স গিয়ে নোটীশ জারি করে এসেছে। তাকে আদালতের নির্দেশ মেনে কাজ বন্ধ রাখার কথা বলা হয়েছে। তারপরেও যদি সে আদালতে অমান্য করে কাজ চালিয়ে যায়, যেহেতু বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন। আদালতই পর সমাধান দিবে।

 

সানশাইন/তৈয়ব

 


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৫, ২০২২ | সময়: ৯:০৫ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine

আরও খবর