সর্বশেষ সংবাদ :

নগরীতে ‘সিটি বাস সার্ভিস’ চালু, রিকশা ধর্মঘট প্রত্যাহার

স্টাফ রিপোর্টার: কোনো আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই অবশেষে রাজশাহীতে চালু হলো ‘সিটি বাস সার্ভিস’। এর আগে উত্তরের বিভাগীয় এই শহরে গণপরিবহন ছিল না। সাধারণ মানুষ দীর্ঘ দিন থেকে গণপরিবহন চালুর দাবি জানিয়ে আসছিল। নির্বাচনের আগে-অনেক জনপ্রতিনিধির নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিল এটি। কিন্তু নানা কারণে তা বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি।
দুই দিন ধরে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ধর্মঘটের পর মানুষের দুর্ভোগ ও ভোগান্তির কথা চিন্তা করে রাজশাহী মহানগরীতে সোমবার সকাল থেকে হঠাৎ করেই চলতে শুরু করেছে সিটি সার্ভিস বাস। সোমবার সকাল থেকে অন্তত পাঁচটি বাস মহানগর এলাকায় চলাচল করছে।
পরিবহন নেতারা জানান, প্রাথমিক পর্যায়ে কাটাখালী থেকে রাজশাহী কোর্ট পর্যন্ত এবং নওহাটা বাজার থেকে রাজশাহী কোর্ট পর্যন্ত দুইটি রুট নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া ভদ্রা স্মৃতি অম্লান চত্বর থাকা থেকে আরেকটি নতুন রুটের পরিকল্পনাও পর্যায়ে রয়েছে।
প্রথম রুটটি কাটাখালী থেকে শুরু হয়ে বিনোদপুর বাজার, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় গেইট, কাজলা গেইট, তালাইমারী মোড়, আলুপট্টি মোড়, কুমারপাড়া মোড়, সাহেববাজার জিরো পয়েন্ট, মনিচত্বর, ফায়ার সার্ভিস মোড়, সিঅ্যান্ডবির মোড়, বাংলাদেশ ব্যাংক গেইট ও ভেড়িপাড়া মোড় হয়ে কোর্ট চত্বর গিয়ে শেষ হবে। সেখান থেকে একই রুট ধরে আবারও কাটাখালী গিয়ে শেষ হবে।
এদিকে, দ্বিতীয় রুটটি নওহাটা বাজার থাকা থেকে শুরু হয়ে বিমানবন্দর, আম চত্বর, নওদাপাড়া বাজার, রেলগেইট, নগর ভবন, দড়িখরবোনা মোড়, বর্ণালির মোড়, মেডিকেল বন্ধ গেইট, সিটি বাইপাস মোড়, লক্ষ্মীপুর মোড়, সিঅ্যান্ডবির মোড়, বাংলাদেশ ব্যাংক গেইট ও ভেড়িপাড়া মোড় হয়ে কোর্ট চত্বর গিয়ে শেষ হবে। সেখান থেকে একই রুট ধরে আবারও নওহাটা বাজারে গিয়ে শেষ হবে।
আজ প্রথমদিনে বাস চলাচলের অভিজ্ঞতা নিয়ে চালক ও সহকারীরা জানিয়েছেন, প্রথম দিনে খুব বেশী লোক না হলেও তেল খরচ উঠেছে। যেহেতু ভাড়া নির্ধারণ হয়নি, প্রথম দিনে যাত্রীরা খুশি মনে যা দিচ্ছেন তাই নেওয়া হচ্ছে। তবে শিগগিরই ভাড়া নির্ধারণ হবে।
রাজশাহীর সড়ক পরিবহন গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মতিউল হক জানান, হঠাৎ করে অটোরিকশা চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়া রোববার ভোর থেকে মহানগরবাসী দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছে। সবার কষ্ট ও সুবিধার কথা চিন্তা করে আজ সকাল থেকে ‘সিটি বাস সার্ভিস’ চালু করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ৫ থেকে ৭টি বাস চলাচল করবে মহানগরীর ভেতরে। প্রয়োজন হলে এ সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে।
তবে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোস্তাফিজ মিশু বলেন, পরিবহন মালিকরা সিটি করপোরেশনের অনুমতি নিয়ে বাস চালানো শুরু করেনি। তারা মহানগরবাসীর দুর্ভোগ ও ভোগান্তি কমাতে আজ বাস চালানো শুরু করেছে।
এদিকে বাস চলাচল শুরু করায় কোনো সমঝোতা বৈঠক ছাড়াই আজ বিকেল থেকে আবার সড়কে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালানো শুরু করেছেন চালকরা। যাত্রী না পাওয়ার আশঙ্কায় তার চলমান ধর্মঘট প্রত্যাহারের জন্য আর কোনো শর্ত বা কোনো আনুষ্ঠানিকতার অপেক্ষা করেননি। আকস্মিক ডাকা এই রিকশা ধর্মঘট ডাকা নিয়ে তারা এরই মধ্যে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছেন। এরই মধ্যে নিজেরা নিজেরাই কোন্দলে জড়িয়েছেন।
একদিন পর ধর্মঘট প্রত্যাহার প্রশ্নে রাজশাহী মহানগর ইজিবাইক চালক শ্রমিক সমিতির সভাপতি মফিজ উদ্দিন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, অটোরিকশা আর বন্ধ রাখা সম্ভব নয়। আর সিটি মেয়রও বর্তমানে বাইরে আছেন। তাই তারা আপাতত অটোরিকশা চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল থেকে পুরোদমে চলবে। পরে ভাড়া বাড়ানোর বিষয়ে সিটি মেয়রের কাছে সবাই যাবেন।


প্রকাশিত: আগস্ট ৩০, ২০২২ | সময়: ৬:২৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ