সর্বশেষ সংবাদ :

কমেছে মটরসাইকেল বিক্রি ও রাস্তার দাপট

স্টাফ রিপোর্টার, বাগমারা: গত ৫ আগস্ট থেকে ডিজেল ও কেরোসিনের সাথে পেট্রোল ও অকটেনের দাম বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা নির্ধারন করেছে সরকার। এ মূল্য বৃদ্ধি দারুণভাবে প্রভাব ফেলেছে মটরসাইকেলের বেপরোয়া চলাচলে। বিশেষ করে অকটেনের দাম বাড়ায় দামী মটরসাইকেলের দাপট রাস্তাপথে এখন কম দেখা যাচ্ছে। সম্প্রতি রাজশাহীর বাগমারা এলাকার রাস্তাঘাটে এ চিত্র লক্ষ করা যাচ্ছে।
আবার তেলের দাম বাড়ার সাথে সাথে মটরসাইকেলের পাইকারি ও খুচরা বিক্রি কমে এসেছে বলেও দাবী করছেন বাইক ব্যবসায়ীরা। একইসঙ্গে বিভিন্ন পেট্রোল ও তেলের দোকানে অকটেন সরবরাহ আগের তুলনায় অনেক কমে গেছে।
সম্প্রতি ভবানীগঞ্জ বাজারের ব্র্যাক মোড়, গোডাউন মোড়, সিএনজি ট্যান্ড ও কলেজ মোড় সহ বাজারের কয়েকজন পেট্রোল ও অকটেন বিক্রেতা জানান, পেট্রোল ও অকটেনের দাম বাড়ার কারণে এখন তাদের বিক্রি অর্ধেকে নেমে এসেছে। আগে দিনে ৭০ থেকে ৮০ লিটার তেল বিক্রি হলেও এখন দিনে বিক্রি হচ্ছে মাত্র ৩০ থেকে ৪০ লিটার। মানুষ এখন প্রয়োজন ছাড়া মটরসাইকেলে চলাচল করছে না।
ভবানীগঞ্জের মেসার্স শিবলী মটর এর মালিক অধ্যক্ষ আতাউর রহমান শিবলী জানান, তেলের দাম বাড়ার কারণে অগের তুলনায় তার শো-রুমে মটরসাইকেল বিক্রির পরিমান অর্ধেকে নেমে এসেছে।
ভবানীগঞ্জ গোডাউন মোড়ের ডা. ইদ্রিস আলী জানান, তেলের দাম বাড়ার কারণে তিনি আগের তুলনায় এখন মটরসাইকেল নিয়ে ঘুরাঘুরি কমিয়ে দিয়েছেন। ভবানীগঞ্জ ফিলিং স্টেশনের কর্মচারীরা জানান, আগে প্রতিদিন ৭০০ থেকে ৮০০ লিটার অকটেন সাপ্লাই হতো বিভিন্ন জায়গায়। এখন দাম বাড়ার পর সেটা ৪০০ থেকে ৫০০ লিটারে নেমে এসেছে।
বাগমারা থানার এসআই রফিক জানান, আগের তুলনায় এখন রাস্তায় মটরসাইকেল অনেক কমে গেছে। আগে রাস্তায় কারণে অকারণে দল বেঁধে অনেকে মটরসাইকেল নিয়ে ছুটাছুটি করতো। এখন সে দৃশ্য আর চোখে পড়ে না।


প্রকাশিত: আগস্ট ২৮, ২০২২ | সময়: ৬:০৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর