সর্বশেষ সংবাদ :

তানোর থানায় জব্দ করা মোটরসাইকেল গায়েব, ওসির বিরুদ্ধে অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর তানোরে জব্দ করা মোটরসাইকেল থানা থেকে গায়েব হয়ে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মোটরসাইকেলের মালিক বেলাল হোসেন এ ঘটনায় রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে গিয়ে তানোর থানার ওসি ও এসআই মানিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, তানোর পৌর সদরের বুরুজ গ্রামের বাসিন্দা লোকমান হাফেজের ছেলে বেলাল হোসেন বুলু (৩৯) গত ৩ মার্চ সন্ধ্যায় তার মোটরসাইকেল নিয়ে তানোর সদরে যাচ্ছিলেন। পথে জিওল-চাঁদপুর নামক মোড়ে মনজিল নামের একব্যক্তির সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে মনজিল সামান্য আহত হন এবং বেলাল হোসেন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা করান।
এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে তনোর থানার এসআই ঘটনাস্থলে গিয়ে বেলাল হোসেনের মোটরসাইকেলটি (রাজশাহী-হ-১১-৬১২২) জব্দ করে থানায় নেন। ঘটনার কয়েক মাস পরে গত ২৪ জুন সকালে স্থানীয় কাউন্সিলর মুনজুর রহমানের উপস্থিতিতে শালিস বৈঠকে চিকিৎসা খরচ বাবদ ১০ হাজার টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি মিমাংসা করা হয়।
বেলাল হোসেন জানান, মিমাংসাপত্র নিয়ে ওইদিন তিনি থানায় যান। এরপর তানোর থানার ওসি কামরুজ্জামান মিয়াকে অবগত করেন মোটরসাইকেল ছাড়িয়ে দেবার জন্য। তবে ওসি তাদের জানায় জব্দ মোটরসাইকেল ব্যাপারে তিনি অবগত নয়। মানিক এসআই থানায় নেই অন্যত্র বদলি হয়ে গেছে। মোটরসাইকেল নিতে চাইলে মানিক এসআইকে নিয়ে আসতে হবে। পরে তার মোটরসাইকেল উদ্ধার ব্যাপারে ওসি এবং এসআইয়ের বিরুদ্ধে এসপির নিকট অভিযোগ করেন।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে এসআই মানিক বলেন, ওসি স্যারের নির্দেশে ঘটনাস্থল থেকে মোটরসাইকেল জব্দ করে থানা হেফাজতে নেয়া হয়। পরে জিডি করে মোটরসাইকেলটি থানা হেফজতে রাখা হয়।
তবে থানার ওসি কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, এসআই মানিক মোটরসাইকেল আটকের ব্যাপারে তাকে অবগত করেননি। থানা হেফাজতে মোটরসাইকেল আছে বলে তার জানা নেই। যদি থানায় এমন মোটরসাইকেল জব্দ থাকে কাগজপত্র দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


প্রকাশিত: আগস্ট ২৪, ২০২২ | সময়: ৫:৫২ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ