সর্বশেষ সংবাদ :

চকবাজারের পোড়া ভবন থেকে ৬ লাশ উদ্ধার

সানশাইন ডেস্ক: চারতলা ভবনে আগুন লাগার পর ফায়ার সর্ভিসের দশটি ইউনিট সোয়া দুই ঘণ্টার চেষ্টায় তা নিয়ন্ত্রণে আনে। পুরান ঢাকার চকবাজারে আগুনে পোড়া ভবন থেকে ছয়জনের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস।
সোমবার বেলা ১২টার দিকে কামালবাগের দেবী দাস ঘাট এলাকার ওই চারতলা ভবনে আগুন লাগার পর ফায়ার সর্ভিসের দশটি ইউনিট সোয়া দুই ঘণ্টার চেষ্টায় তা নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নেভার পর চার তলা ওই ভবন থেকে বডি ব্যাগে করে লাশ নামাতে দেখা যায় উদ্ধারকর্মীদের। ফায়ার সার্ভিসের অয়্যার হাউজ ইনস্পেক্টর আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, “আমরা ভবনের ভেতরে ছয়জনের দেহাবশেষ পেয়েছি।”
চকবাজারে পুড়ল প্লাস্টিকের কারখানা: পুরান ঢাকার ঘিঞ্জি ওই এলাকায় সরু গলির মধ্যেই সারি সারি প্লাস্টিকের কারখানা ও প্লাস্টিক পণ্যের গুদাম। যে ভবনটি আগুনে পুড়েছে, সেখানেও প্লাস্টিকের কারখানা ছিল। ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশনস) লেফটেন্যান্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান জানান, তিন তলা ভবনের ওপর সেখানে টিন দিয়ে আরেকটি তলা বানানো হয়েছে।
“নীচতলায় একটি খাবার হোটেল ছিল, নাম বরিশাল রেস্তোরাঁ। তৃতীয় তলার ছিল প্লাস্টিকের গুদাম আর কারখানা। চতুর্থ তলায় প্লাস্টিকের খেলনার গুদামও আগুনে পুড়ে গেছে। এছাড়া পাশের একটি ভবনের দ্বিতীয় তলাও আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।” লাশগুলো পাওয়া গেছে দোতলায়, সেখানে খাবার হোটেলের কর্মীরা ঘুমাতেন বলে জানিয়েছেন চকবাজার থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম।
সেখান থেকে প্রথম লাশটি উদ্ধারের পর ভবনের বাইরে কান্নায় ভেঙে পড়েন ওই রেস্তোরাঁর কর্মী মো.ইকবাল। তিনি জানান, যখন আগুন লাগল, তার ভাই ওসমানও ছিলেন ভেতরে। এরপর থেকে তাকে আর ফোনে পাওয়া যাচ্ছে না। রেস্তোরাঁর আরেক কর্মী বিল্লালের শ্যালক মো. আব্দুল্লাহ জানান, আগুন লাগার পর থেকে বিল্লালের খোঁজ পাচ্ছেন না তারা। বিল্লাল সাধারণত রাতে ডিউটি করে দিনের বেলায় দোতলার ওই ঘরে ঘুমাতেন।


প্রকাশিত: আগস্ট ১৬, ২০২২ | সময়: ৫:৫৪ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ