‘ওরা বেশি কথা বলে’, মেসির নিন্দুকদেরকে নেইমার

স্পোর্টস ডেস্ক: ফরাসি সুপার কাপ জয়ের পর মেসির সমালোচনাকারীদের এক হাত নিলেন নেইমার। দুর্দান্ত পারফরম্যান্স ও শিরোপা জয়ে পিএসজির মৌসুমের শুরুটা হয়েছে দারুণ আশা জাগানিয়া। ফরাসি কাপ জয়ের ম্যাচে ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে উজ্জ্বল ছিলেন লিওনেল মেসি। প্রথম গোলটি আসে তার পা থেকেই। ম্যাচ জুড়ে তার এমন সপ্রতিভ উপস্থিতির পর নতুন করে শুরু হয়েছে আলোচনা, ‘এবার কি তাহলে চেনা মেসির দেখা মিলবে?’ বন্ধু-সতীর্থকে নিয়ে এমন আলোচনায় নেইমার বেশ চটেছেন। তার চোখে, মেসি সবময়ই সেরা।
ইসরায়েলের তেল আবিবে ব্লুমফিল্ড স্টেডিয়ামে রোববার রাতে নঁতের বিপক্ষে ৪-০ গোলে জিতে ফরাসি সুপার কাপ ঘরে তোলে পিএসজি। যে জয়ে উজ্জ্বল ছিলেন নেইমারও। মেসি প্রথম দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর জোড়া গোল করেন তিনি। মেসির গোলেও তার অবদান। অন্য গোলটি করেন সের্হিও রামোস।
ম্যাচের পর প্রাইম ভিডিওর সঙ্গে নেইমারের আলাপকালে ওঠে মেসি প্রসঙ্গ। বার্সেলোনা ছেয়ে গত মৌসুমে পিএসজিতে পা রাখা মেসির পারফরম্যান্স নিয়েও কথা উঠে। প্যারিসের ক্লাবটির হয়ে অভিষেক মৌসুমে ‘বার্সেলোনার মেসিকে’ খুঁজে পাওয়া যায়নি। নিজের ছায়া থেকে এবার তিনি বেরিয়ে আসতে পারবেন কি-না, এমন প্রশ্ন শুনে নেইমার বিরক্তি প্রকাশ করেন।
“আমি এমনটা মনেই করি না। আমার মনে হয়, লোকে বেশি কথা বলে। তারা জানে না, প্রতিদিন কী ঘটছেৃলিও লিও-ই। এখনও লিও একই রকম আছে, সে বদলায় না। সে সব সময় পার্থক্য গড়ে দেয়, মানিয়ে নেয়।” আকাশছোঁয়া প্রত্যাশা নিয়ে ২০১৭ সালে রেকর্ড ট্রান্সফার ফিতে নেইমার পিএসজিতে পাড়ি জমালেও এই পাঁচ বছরে সময়টা তার ভালো কাটেনি। মাঝেমধ্যেই সইতে হয়েছে সমালোচনা।
নেইমার ছাড়াও কাড়ি কাড়ি অর্থ ঢেলে মেসি, এমবাপেদের নিয়ে দল গড়েছে পিএসজি। আসল লক্ষ্য তাদের ইউরোপের সেরা হওয়া। কিন্তু রীতিমতো তারার হাট বসিয়েও গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলো থেকেই বিদায় নেয় দলটি। রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে হেরে যাওয়া সেই ম্যাচে পুরোপুরি নিষ্প্রভ ছিলেন মেসি ও নেইমার। তাতে ঘরের মাঠে ফিরে দুজনকেই শুনতে হয়েছিল দুয়ো।
এবার অবশ্য নেইমারের আশা, তাদের তিন জনের জন্যই ভালো কাটবে মৌসুমটা। “অবশ্যই আমরা আশা করি, আমাদের তিন জনের জন্যই সবকিছু ভালো যাবে। আমার জন্য, লিওর জন্য, কিলিয়ানের (এমবাপে) জন্য। আর আমরা তিন জনই যদি ভালো থাকি, তাহলে আমি নিশ্চিত দলের জন্যও ভালো হবে।”
ফরাসি সুপার কাপে খেলতে পারেননি এমবাপে। তবে তার অভাব বুঝতেই দেননি মেসি ও নেইমার। বিশেষ করে ব্রাজিলিয়ান তারকার পারফরম্যান্স ছিল নজরকাড়া। অসাধারণ ফ্রি কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করার পর বুদ্ধিদ্বীপ্ত স্পট কিকে শেষ গোলটি করেন নেইমার। “আমি সন্তুষ্ট, আমাদের দলের জন্য খুব ভালো একটি ম্যাচ ছিল। জয়ে মৌসুম শুরু করাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। শিরোপা জয় দিয়েই ম্যাচটা শেষ হলো। আসলে মূল কথা- যাই ঘটুক না কেন, জিততে হবে।”


প্রকাশিত: আগস্ট ২, ২০২২ | সময়: ৫:৫৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ