সর্বশেষ সংবাদ :

রান্নায় তেল বেশি দেয়ায় স্ত্রীর সাত আঙ্গুল কর্তন, গ্রেপ্তার ২

স্টাফ রিপোর্টার: রান্নায় তেল বেশি দিয়েছিলেন মুক্তি খাতুন (৩০)। এতে স্বামী আব্দুল হাই (৪৫) রেগে আগুন। ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় স্ত্রীর উপরে। নিজেকে বাঁচাতে গিয়ে দুই হাতের সাত আঙ্গুল হারায় মুক্তি খাতুন। ২৪ জুলাই নাটোর জেলার সদর থানাধীন হালসা ইউনিয়নের বড় হরিশপুর গ্রামে এ ঘটনায় দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৫ এর সদস্যরা।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলো নাটোর সদর এলাকার বড় হরিশপুর এলাকার মৃত ফজলু মিয়ার ছেলে আব্দুল হাই (৪৫) ও আব্দুল খালেকের ছেলে রাব্বি মিয়া (২০)। বুধবার রাতে নাটোর জেলার সদর থানাধীন হালসা ইউনিয়নের সুলতানপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
র‌্যাব এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, ২৪ জুলাই রান্নায় তেল বেশি দেয়ার কারণে মুক্তি বেগমকে তার স্বামী আব্দুল হাই, তার মামাতো ভাই রাব্বি মিয়াসহ (২০) হত্যার উদ্দেশ্যে হাসুয়া দিয়ে এলোপাথাড়ী ভাবে কোপাতে থাকে। এতে মুক্তি খাতুন এর দুই গালে ও বাম চোখের কোণায় হাসুয়ার কোপ লেগে রক্তাক্ত জখম হয়। মুক্তি খাতুন জীবন রক্ষার্থে স্বামী আব্দুল হাই এর হাঁসুয়ার এলোপাথাড়ী আঘাত দুই হাত দিয়ে প্রতিহত করতে যায়। এতে মুক্তি খাতুনের বাম হাতের চারটি আঙ্গুল এবং ডান হাতের তিনটি আঙ্গুল কেটে গুরুতর জখম হয় এবং চামড়ার সাথে ঝুলে থাকে। পরবর্তীতে মুক্তি খাতুনের ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসে এবং তাকে উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। মুক্তি খাতুন এর শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।
পরবর্তীতে মুক্তি খাতুনের ভাই বাদী হয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে নাটোর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত আব্দুল হাই ও সহযোগী রাব্বি মিয়া শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনসহ হাঁসুয়া দিয়ে এলোপাথাড়ী আঘাত করে মুক্তি খাতুনকে জখম করার কথা স্বীকার করেছে।


প্রকাশিত: জুলাই ২৮, ২০২২ | সময়: ৫:৪৭ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর