সর্বশেষ সংবাদ :

পারিলা ইউনিয়নে নৌকা বিরোধীদের দলীয় পদ না দিতে আবেদন

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থানকারিরাই আবারো ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদে আসার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থানকারিদের দলীয় পদে না রাখার দাবিতে জেলা ও রাসিক মেয়রের কাছে আবেদন করেছে এলাকাবাসী।
১৬ জুন এলাকাবাসীর পক্ষে এ আবেদন করেন পারিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সহসভাপতি আলাউদ্দিন। আবেদন থেকে জানা যায়, নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্থানীয় সংসদ সদস্যের যোগসাজসে বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীকে জয়ী করতে তারা নেমে পড়ে। যে কারণে এই ইউনিয়নে নৌকাকে বিজয়ী করা যায়নি। বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে প্রকাশ্যে ও পরোক্ষাভাবে অবস্থায় নেয় পবা উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুকবুল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক হযরত আলী পারিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি সোহরাব আলী, সাধারণ সম্পাদক নবীবুর রহমান, সহসভাপতি খোরশেদ আলম, ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন উল্লেখযোগ্য।
নির্বাচনকালে সাবেকমন্ত্রী জিনাতুন নেসা তালুকদার, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি এ্যাড. ইব্রাহিম হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাড লায়েব উদ্দিন লাভলু, সাংগঠনিক সম্পাদক এএকেএম আসাদুজ্জামান, উপদপ্তর সম্পাদক আব্দুল মান্নান, জেলা মহিলা লীগ সভানেত্রী মর্জিনা পারভীন প্রত্যেক্ষভাবে সশরীরে উপরোক্ত অভিযুক্ত নেতৃবৃন্দকে নৌকার পক্ষে ভোট করতে বলেন। এতে জেলা নেতৃবৃন্দকে সরাসরি নৌকার পক্ষে ভোট করতে পারবে না বলে জানিয়ে দেন তারা।
আগামীকাল এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে আবারো নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থানকারি সোহরাব আলী ও নবীবুর রহমানকে সভাপতি, সম্পাদক পদে আসার চেষ্টা চালাচ্ছেন। এ নিয়ে তৃণমুলের আওয়ামী লীগকর্মী ও নেতাদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন এবং জেলা আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবরে এ আবেদন করা হয়।


প্রকাশিত: জুন ১৮, ২০২২ | সময়: ৫:২০ অপরাহ্ণ | সুমন শেখ