সর্বশেষ সংবাদ :

মান্দায় প্রতিপক্ষের দুদফা হামলায় চারজন আহত

মান্দা প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলা ও মারপিটে চারজন আহত হয়েছেন। গত রোববার দুপুর ও সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার গনেশপুর ইউনিয়নের উত্তর শ্রীরামপুর ও পঞ্চমীতলা মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনায় মান্দা থানায় এজাহার করা হলেও এখন পর্যন্ত তা রেকর্ডভূক্ত করা হয়নি বলে ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ।
হামলায় আহতরা হলেন উত্তর শ্রীরামপুর এলাকার আতাউর রহমান (৫০), হাফিজুর রহমান (৪৮) ও সোহাগ হোসেন (২২) এবং দুর্গাপুর গ্রামের সোহেল রানা (২৫)। এদের মধ্যে আতাউর রহমান রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি পেশায় একজন ভাংগাড়ী ব্যবসায়ী।
স্থানীয়রা জানান, উত্তর শ্রীরামপুর গ্রামের আরেজ উদ্দিনের একটি চার্জারভ্যান বাড়ি থেকে চুরি যায়। ভ্যান চুরিকে কেন্দ্র করে গ্রামের হাসান আলীর দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন অনেকেই। এনিয়ে রোববার দুপুরে গ্রামের মমতাজ হোসেনের ছেলে বাবুর নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে ভাংগাড়ী ব্যবসায়ী আতাউর রহমানকে কুপিয়ে জখম করা হয়।
হামলায় আহত হাফিজুর রহমান বলেন, এ সময় আতাউর রহমানকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তাকেও হাঁসুয়ার দিয়ে কোপ দেওয়া হয়। এতে তিনি আহত হন। পরে তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয়রা। ঘটনায় রোবরার রাতে আহত আতাউর রহমানের স্ত্রী সার্থী আক্তার বাদি হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মান্দা থানায় মামলা করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেই মামলাটি রেকর্ডভূক্ত করা হয়নি। অভিযুক্তরা এলাকায় থেকে আতাউর রহমানের দোকান কর্মচারী সোহল ও সোহাগের ওপর দ্বিতীয় দফায় হামলা করে।
এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রোববার বিকেলে আহত আতাউর রহমানের ভাংগাড়ীর দোকানে গিয়ে কর্মচারী সোহেল রানাকে প্রাণনাশের হুমকি দেন বাবুসহ তার কয়েক সহযোগী। জের ধরে সোমবার সন্ধ্যার পর সতিহাটের অদুরে পঞ্চমীতলা মোড়ের একটি খাবারের দোকানে সোহেল রানা ও সোহাগ হোসেনকে চড়থাপ্পড় দেন বাবু ও তার ক্যাডার বাহিনী।
দোকান কর্মচারী সোহেল রানা বলেন, খাবার দোকান থেকে বের হয়ে একটি চার্জারভ্যানে তারা বাড়ি ফিরছিলেন। পঞ্চমীতলা মোড়ের অদুরে তাদের ভ্যানগাড়ী আটকিয়ে কয়েকজন যুবক তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে চাকু দিয়ে গলায় আঘাত করেন। চাকুটি হাত দিয়ে ঠেকাতে গিয়ে হাতের কয়েকটি স্থান কেটে রক্তাক্ত হয়। তাদের চিৎকারে লোকজন এগিয়ে গেলে হামলাকারীরা সটকে পড়েন। পরে তাদের মান্দা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
এ প্রসঙ্গে অভিযুক্ত বাবুর সঙ্গে কথা বলার জন্য মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।
মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান বলেন, মারপিটের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি এজাহার পাওয়া গেছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২২ | সময়: ৮:০৯ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর