সর্বশেষ সংবাদ :

ডু প্লেসি-মঈনদের অপেক্ষায় রেখে ফাইনালে সাকিবের বরিশাল

স্পোর্টস ডেস্ক: জিতলেই ফাইনাল, হারলে সুযোগ থাকবে আরো একটি। তবে দ্বিতীয় সুযোগের অপেক্ষায় কেই বা থাকতে চাইবে? বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের প্রথম কোয়ালিফায়ারে সোমবার মুখোমুখি হয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও ফরচুন বরিশাল। এ ম্যাচে ফাফ ডু প্লেসি, মঈন আলী, ইমরুল কায়সদের কুমিল্লাকে ১০ রানে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ফাইনালে সাকিব আল হাসানের বরিশাল।
হারলেও ফাইনালে ওঠার আরো একটু সুযোগ পাচ্ছে কুমিল্লার। আগামীকাল বুধবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের মুখোমুখি হবে তারা। এই ম্যাচে জয়ী দল আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি মেগা ফাইনালে মুখোমুখি হবে আজ ফাইনাল নিশ্চিত করা সাকিব আল হাসানের বরিশালের।
মিরপুরে আগে ব্যাট করে স্কোর বোর্ডে ১৪৩ রানের সংগ্রহ পায় বরিশাল। ১৪৪ রানের লক্ষ্য টপকাতে নেমে দেখেশুনে খেলেন কুমিল্লার দুই ওপেনার লিটন দাস আর মাহমুদুল হাসান জয়। ৬২ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়লেও দুজন মিলে খেলেন ৬৪ বল। যেখানে গোটা টুর্নামেন্টে আগ্রাসী ভূমিকায় থাকা জয় এ ম্যাচে ব্যাট করেন অনেকটা টেস্ট মেজাজে। মেহেদী হাসান রানার দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ৩০ বলে মাত্র ২০ রান করে।
আরেক ওপেনার লিটনের ব্যাটিং ছিল ওয়ানডে গতির। যেখানে ৪টি চার মেরে আউট হন ৩৫ বলে ৩৮ করে। লিটনকে বোল্ড করার আগে অধিনায়ক ইমরুলকে তুলে নেন পেসার শফিকুল ইসলাম। গেইলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ইমরুল বিদায় নেন ৫ রানে। ৬ রানের ব্যবধানে টপ অর্ডারের এই তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়ে বরিশাল। দলকে সেই চাপ থেকে মুক্ত করার চেষ্টা করেন মঈন আলি। ৩ ছয়ে ১৫ বলে খেলে মঈন ফেরেন ২২ রানে।
মঈনকে আউট করে কুমিল্লাকে আরো চেপে ধরেন ব্রাভো। যদিও ইনিংসের ইনিংসের ১৯তম ওভারে সুনীল নারাইনের ক্যাচ ফেলে দলকে শঙ্কায় মুখে ফেলেন এই ক্যারিবীয়। তবে জয় পেতে বেগ পেতে হয়নি পরের বলে ফাফ আউট হলে। মেহেদী হাসান রানা ফাফকে ফেরান তৌহিদ হৃদয়ের হাতে ক্যাচ বানিয়ে। দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই অধিনায়ক ১৫ বলে ২২ রানে আউট হলে মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন ফেরেন ১ রানে।
উইকেটে থাকা নারিন শেষ ওভারে ১৮ রান তুলতে ব্যর্থ হলে পরাজয় নিশ্চিত হয় কুমিল্লা। ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৩ রানে থামে বিপিএলের দুইবারের চ্যাম্পিয়নদের ইনিংস। এতে ১০ রানে জয় নিয়ে সবার আগে ফাইনালে বরিশাল। নারিন ১৬ বলে করেন ১৭ রান। বরিশালের হয়ে ২টি করে উইকেট নেন শফিকুল, মেহেদী আর মুজিব উর রহমান।
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন ফরচুন বরিশালের ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার। ক্রিস গেইলকে একপাশে দর্শক বানিয়ে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন এই তরুণ। ইনিংসের সপ্তম ওভারে গেইল-মুনিমের ৫৮ রানের জুটি ভাঙেন শহিদুল ইসলাম। ১৯ বলে ২২ রান করে বিদায় নেন গেইল। দ্বিতীয় উইকেটে ১৮ বলে ২৬ রান যোগ করেন মুনিম ও নাজমুল হোসেন শান্ত।
মারমুখী ভঙ্গিতে থাকা মুনিম বড় শট খেলতে গিয়েই তানভীরের বলে এলবিডব্লিউ হন। ২টি চার ও ৪টি ছয়ে মুনিম ৩০ বলে ৪৪ রান করে ফিরলে চারে নামা সাকিব রান-আউট হন। ২ বলে ১ রান করেন তিনি। এরপর ব্যাটিং ব্যর্থতায় বড় সংগ্রহের স্বপ্নে ধাক্কা খায় বরিশাল। ৮৪ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারানো দলটি ৯৪ রানের মধ্যে হরিয়ে ফেলে পাঁচটি উইকেট। যেখানে শান্ত ১৩, তৌহিদ হৃদয় ১, জিয়াউর আউট হন ১৭ রান করে। শেষদিকে ব্রাভোর ১৭ আর নুরুল হাসান সোহানের ১১ রানের কল্যাণে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ১৪৩ রান সংগ্রহ করতে পারে বরিশাল। কুমিল্লার পক্ষে শহিদুল ৩টি এবং মঈন ২টি উইকেট নেন।


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২২ | সময়: ৬:৩৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর