জামিনে মুক্তি পেয়ে আড়ানীকে মাদকমুক্ত করার ঘোষণা মুক্তারের

নুরুজ্জামান, বাঘা :

জীবনে বসন্ত এসেছে, ফুলে ফুলে ভরে গেছে মন-শীর্ষক গানের মতোই সময়ের আলোচিত নেতা ও আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার আলীর জীবনে এখন বসন্ত ! যদিও সময় বলছে, এখন পৌষ মাস। কনকনে ঠান্ডাও বটে, কিন্তু ব্যক্তিগত জীবনে মুক্তার আলীর এখন বসন্তকাল।

দীর্ঘ পাঁচ মাস দশদিন পর কারাভোগ শেষে রবিবার সন্ধ্যায় তিনি জেলখানা থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন ।এ যেন তার নবজন্ম ! এ খবর শুনে তাঁকে হাজার-হাজার জনগণ দেখতে আসছেন বাড়িতে। এর আগে তিনি জেলখানা থেকে বেরিয়ে সরাসরি আড়ানী পৌর বাজারে এসে উপস্থিত হন। সেখানে জনগণ তাকে ফুলের শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন। অত:পর একটি পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায় মেয়র মুক্তার আলী বলেন, আমি ২০০২ সাল থেকে জনপ্রতিনিধিত্ব করে আসছি। পর-পর দুইবার আপনাদের ভোটে নির্বাচিত হয়ে মেয়র এর দায়িত্ব পালন-সহ আপনাদের খেদমত করে আসছি। মানুষ মাত্রই ভুল করে। আমি ভুল করেছি এটি সত্য। কিন্তু এর খেসারত গুনতে হয়েছে আমার পরিবারকে। মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে আমার একমাত্র সন্তান এবং স্ত্রীকে। এর মধ্যে আমার সঙ্গে আমার স্ত্রী-ও কারাবাসে ছিলেন। এটা অনেকের প্রত্যাশা ছিলো না।

তিনি বলেন, আমি একদিক থেকে নিজেকে গর্বিত মনে করছি এই ভেবে যে, আমি দীর্ঘ সময় হাজত বাস করলেও আমার স্ত্রী সল্প সময়ের মধ্যে জামিন পান এবং আমার জায়গা থেকে যে কোন উৎসবে জনগনের পাশে ছিলেন। আমি আজ আপনার সামনে দাঁড়িয়ে ওয়াদা করছি, আল্লাহপাক আমাকে যতদিন বাঁচিয়ে রাখবেন, আমি আপনাদের খেদমত করে যাবো। আমি কথা দিচ্ছি, আজকের পর থেকে নিজে মাদক সেবন করবো না এবং অন্যকেও করতে দেবনা। আমি সাময়িক ভাবে বরখাস্ত হয়েছি। দায়িত্ব বুঝে পেলে এই আড়ানী পৌর সভাকে মাদক মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাল্লাহ।

আড়ানী পৌর বাজারের সুনামধন্য ব্যবসায়ী আলহাজ শামিম হোসেন সহ বনিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ও বাজারের ব্যবসায়ীরা বলেন, মুক্তার আলীকে পেয়ে আমরা অত্যান্ত শুশি হয়েছি। মানুষের চলার পথে কিছু ভুল-ত্রুটি থাকতে পারে, তবে মুক্তার আলী যে প্রকৃত অর্থে জনগণের সেবক, তথা খেদমতকারী তাতে কোন সন্দেহ নাই।

উল্লেখ গত জুলাই মাসে আড়ানী পৌর এলাকার বাসিন্দা ও পল্লী চিকিৎসক মনোয়ার হোসেন মজনু (৫০)কে তার বাড়িতে গিয়ে মারপিট করেন মেয়র মুক্তার আলী ও তার কতিপয় লোকজন ।এ ঘটনায় তিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ ঐ রাতেই মুক্তার আলীর বাড়িতে আভিযান পরিচালনা করেন। এ অভিযানে তার নিজ শয়ন ঘর থেকে মাদক এবং আলমারির ড্রয়ার থেকে অস্ত্র পান। এ ঘটনায় পুলিশ ঐ রাতে মুক্তার আলীকে বাড়িতে না পেয়ে তার স্ত্রীকে আটক করেন এবং ঘটনার একদিন পর মুক্তার আলীকেও আটক করে জেল-হাজতে প্রেরণ করেন।

সানশািইন /শামি


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৯, ২০২১ | সময়: ১১:২২ অপরাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর