বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে বীর সন্তানদের স্মরণ

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি ও মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসের প্রথম প্রহরেই রাজশাহীর শহীদ মিনারগুলোতে মানুষের ঢল নামে একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে। আর সূর্যোদয়ের সাথে সাথে রাজশাহী জেলা পুলিশ লাইনসে ৫০ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির কার্যক্রম শুরু হয়।
এ ছাড়া সূর্যদয়ের সাথে সাথে রাজশাহীর সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত এবং বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ৭টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে শহিদ স্মৃতিস্তম্ভে বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর, পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) আব্দুল বাতেন, রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেনসহ বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
এর আগে প্রথম প্রহরে রাত ১২টা ১ মিনিটে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানায় রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ ও মহানগর বিএনপিসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংষ্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের সদস্যরা। সকালে দলীয় কার্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহানগর আওয়ামী লীগ। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে দলীয় কার্যালয় থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন শেষে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে সেখানে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।
পথসভায় বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল ও সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। এ সময় অন্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে সকাল ৯টায় জেলা মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং অভিবাদন গ্রহণ করেন। দিবসটি উপলক্ষে সরকারি-বেসরকারি, স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসমূহ, প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপসমূহে আলোকসজ্জা এবং জাতীয় পতাকাসহ বিভিন্ন পতাকা দ্বারা সজ্জিত করা হয়।

নগর আ’লীগ: মহান বিজয় দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে পালনের লক্ষে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বৃহষ্পতিবার বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করা হয়। কর্মসূচীসমূহের মধ্যে ১৬ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ১২.০১ মিনিটে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
সূর্যোদয়ের সাথে সাথে কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ৯টায় দলীয় কার্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে দলীয় কার্যালয় থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়।
র‌্যালীটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন শেষে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। র‌্যালী শেষে সেখানে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল ও সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। সন্ধ্যা ৭টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে আতশবাজীর উদ্যাপন করা হয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, ডাঃ তবিবুর রহমান শেখ, নাঈমুল হুদা রানা, বদরুজ্জামান খায়ের, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহম্মেদ লিমন, দপ্তর সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম বুলবুল, প্রচার সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ, কৃষি সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু, আইন সম্পাদক অ্যাড. মুসাব্বিরুল ইসলাম, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক ফিরোজ কবির সেন্টু, ধর্ম সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, বন ও পরিবেশ সম্পাদক রবিউল আলম রবি, মহিলা সম্পাদিকা ইয়াসমিন রেজা ফেন্সি, শ্রম সম্পাদক আব্দুস সোহেল, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মকিদুজ্জামান জুরাত, শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক ওমর শরীফ রাজিব, সাংস্কৃতিক সম্পাদক কামারউল্লাহ সরকার কামাল, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা সম্পাদক ডাঃ ফ ম আ জাহিদ, উপ-দপ্তর সম্পাদক পংকজ দে, উপ-প্রচার সম্পাদক সিদ্দিক আলম, সদস্য নফিকুল ইসলাম সেল্টু, নিঘাত পারভীন, জহির উদ্দিন তেতু, মুশফিকুর রহমান হাসনাত, নজরুল ইসলাম তোতা, শাহাব উদ্দিন, আশরাফ উদ্দিন খান, আতিকুর রহমান কালু, হাফিজুর রহমান বাবু, আব্দুস সালাম, অ্যাড. শামীমা আখতারী, তোজাম্মেল হক বাবলু, মন্তাজ আহমেদ, মজিবুর রহমান, ইসমাইল হোসেন, বাদশা শেখ, জয়নাল আবেদীন চাঁদ, খায়রুল বাশার শাহীন, মাসুদ আহম্মেদ, কে এম জুয়েল জামান, থানা আওয়ামী লীগের মধ্যে বোয়ালিয়া (পূর্ব) থানার সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ, বোয়ালিয়া (পশ্চিম) থানার সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান রতন, রাজপাড়া থানার সাধারণ সম্পাদক শেখ আনসারুল হক খিচ্চু, নগর যুবলীগ সভাপতি রমজান আলী, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন বাচ্চু, নগর কৃষক লীগ সভাপতি রহমতউল্লাহ সেলিম, সাধারণ সম্পাদক সাকের হোসেন বাবু, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আব্দুল মোমিন, সাধারণ সম্পাদক জেডু সরকার, নগর মহিলা লীগ সভাপতি সালমা রেজা, সাধারণ সম্পাদক কানিজ ফাতেমা মিতু, নগর যুব মহিলা লীগ সভাপতি অ্যাড. ইসমত আরা, সাধারণ সম্পাদক নিলুফার ইয়াসমিন নিলু, নগর ছাত্রলীগ সভাপতি নূর মোহাম্মদ সিয়াম, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ সিরাজুম মুবিন সবুজ প্রমুখ।

বিকাল সাড়ে ৩টায় নগরীর শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান চত্বরে জমায়েত হয়ে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র শপথ অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। এ সময় নেতাকর্মীরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র পাঠকৃত শপথ পাঠ করেন। উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, ডাঃ তবিবুর রহমান শেখ, নাঈমুল হুদা রানা, বদরুজ্জামান খায়ের, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহম্মেদ লিমন, দপ্তর সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম বুলবুল, প্রচার সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ, কৃষি সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু, আইন সম্পাদক অ্যাড. মুসাব্বিরুল ইসলাম, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক ফিরোজ কবির সেন্টু, ধর্ম সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, বন ও পরিবেশ সম্পাদক রবিউল আলম রবি, মহিলা সম্পাদিকা ইয়াসমিন রেজা ফেন্সি, শ্রম সম্পাদক আব্দুস সোহেল, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মকিদুজ্জামান জুরাত, শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক ওমর শরীফ রাজিব, সাংস্কৃতিক সম্পাদক কামারউল্লাহ সরকার কামাল, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা সম্পাদক ডাঃ ফ ম আ জাহিদ, উপ-দপ্তর সম্পাদক পংকজ দে, উপ-প্রচার সম্পাদক সিদ্দিক আলম, সদস্য নফিকুল ইসলাম সেল্টু, নিঘাত পারভীন, জহির উদ্দিন তেতু, মুশফিকুর রহমান হাসনাত, নজরুল ইসলাম তোতা, শাহাব উদ্দিন, আশরাফ উদ্দিন খান, আতিকুর রহমান কালু, হাফিজুর রহমান বাবু, আব্দুস সালাম, অ্যাড. শামীমা আখতারী, তোজাম্মেল হক বাবলু, মন্তাজ আহমেদ, মজিবুর রহমান, ইসমাইল হোসেন, বাদশা শেখ, জয়নাল আবেদীন চাঁদ, খায়রুল বাশার শাহীন, মাসুদ আহম্মেদ, কে এম জুয়েল জামান, থানা আওয়ামী লীগের মধ্যে বোয়ালিয়া (পূর্ব) থানার সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ, বোয়ালিয়া (পশ্চিম) থানার সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান রতন, রাজপাড়া থানার সাধারণ সম্পাদক শেখ আনসারুল হক খিচ্চু, নগর যুবলীগ সভাপতি রমজান আলী, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন বাচ্চু, নগর কৃষক লীগ সভাপতি রহমতউল্লাহ সেলিম, সাধারণ সম্পাদক সাকের হোসেন বাবু, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আব্দুল মোমিন, সাধারণ সম্পাদক জেডু সরকার, নগর মহিলা লীগ সভাপতি সালমা রেজা, সাধারণ সম্পাদক কানিজ ফাতেমা মিতু, নগর যুব মহিলা লীগ সভাপতি অ্যাড. ইসমত আরা, সাধারণ সম্পাদক নিলুফার ইয়াসমিন নিলু, নগর ছাত্রলীগ সভাপতি নূর মোহাম্মদ সিয়াম, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ সিরাজুম মুবিন সবুজ প্রমুখ।
রাসিক: ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস ও বিজয়ের সুর্বণজয়ন্তী যথাযথ মর্যাদায় উদযাপন করেছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় নগরভবন চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

প্রথমে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনে পক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কাউন্সিলরবৃন্দ। এরপর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে পৃথকভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।
এরআগে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, কর্মকর্তাদের পক্ষে প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ মোঃ নুর-ঈ-সাঈদ ও কর্মচারীদের পক্ষে কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আজমীর আহম্মেদ মামুন। কর্মসূচির শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চার নেতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
পরে শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন সোনাদিঘী জামে মসজিদের পেশ ইমাম ক্বারী মোঃ মামুন-উর-রশীদ। এছাড়া বাদ যোহর নগরভবন মসজিদে জাতির শান্তি ও অগ্রগতি কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।
কর্মসূচিতে সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন, প্যানেল মেয়র-২ ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, প্যানেল মেয়র-৩ তাহেরা বেগম, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নুরুজ্জামান, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাসেল জামান, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, ১৩নং ওয়ার্ড আব্দুল মমিন, ১৪নং আনোয়ার হোসেন, ১৫নং আব্দুস সোবহান, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযীম, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ, ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম পল্টু, ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ারুল আমিন আযব, ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল হাসান বাচ্চু, ২৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাসুদ রানা, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর আয়েশা খাতুন, শিরিন আরা খাতুন, মাজেদা বেগম, উম্মে সালমা ও নাদিরা বেগম, সিটি করপোরেশনের সচিব মোঃ মশিউর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নূর ইসলাম তুষার, প্রধান স্বাস্থ্য কমকর্তা ডা. এফ এএম আঞ্জুমান আরা বেগম, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ ইমরানুল হক, বাজেট কাম হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম খান, বিভিন্ন শাখার প্রধানগণ ও রাসিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ দুলাল শেখ অন্যান্য কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন রাসিকের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোস্তাফিজ মিশু।
রাবি: এ দিবসটি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করা হয়। দিবসের প্রথম প্রহর রাত ১২:০১ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে উদ্যাপন করা হয় বিজয়ক্ষণ। এই আয়োজনে ছিল তোপধ্বনি ও আতশবাজি। ভোরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসন ভবনসহ অন্যান্য ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
সকাল ৬টায় ৪৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার শহীদ মিনারে ও সকাল ৭টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে এবং সকাল ৭টা ১৫ মিনিটে বধ্যভূমির স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, উপ-উপাচার্য প্রফেসর মো. সুলতান-উল-ইসলাম, রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. আবদুস সালাম, বিভিন্ন অনুষদের অধিকর্তা, হল প্রাধ্যক্ষ, ইনস্টিটিউট পরিচালক, বিশিষ্ট শিক্ষক, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর মো. লিয়াকত আলী, ছাত্র উপদেষ্টা এম তারেক নূর, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক ড. মো. আজিজুর রহমানসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক সমিতি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন প্রভৃতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।
এদিন সকালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও সকাল সাড়ে ৯টায় মিনিট থেকে শেখ রাসেল মডেল স্কুলে বিভিন্ন অনুষ্ঠান হয়। উপাচার্য এসব আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ও পুরস্কার প্রদান করেন। প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণও এসব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এরপর সকাল ১০টায় শেখ কামাল স্টেডিয়ামে বিজয় দিবস উপলক্ষে বিএনসিসি, রোভার স্কাউট, গার্লসগাইড এর কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়।
সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ‘সাবাস বাংলাদেশ’ চত্বরে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়া বাদ জোহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআন খানি ও মিলাদ মাহফিল এবং সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। এদিন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসজুড়ে আলোকসজ্জাও করা হয়।
রুয়েট: সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন ও হলসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। দিনের শুরুতে রুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম সেখ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর সকাল ৯টায় রুয়েট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রুয়েট উপাচার্য ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সম্মানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। রুয়েট প্রশাসনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের পর রুয়েট শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি রুয়েট, বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদ রুয়েট, রুয়েট শাখা ছাত্রলীগ, রুয়েট কর্মচারী সমিতি, বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ পৃথকভাবে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে।
এরপরে ক্যাম্পাসে অবস্থিত শহীদ ছাত্রদের কবর জিয়ারত করা হয়। সকাল ১০টায় রুয়েটের শারীরিক শিক্ষা বিভাগে রুয়েটের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ছেলে মেয়েদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী, শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে খেলাধুলার উদ্বোধন করেন রুয়েট উপাচার্য। পরে সকাল সাড়ে ১১টায় রুয়েটের শারীরিক শিক্ষা বিভাগে ‘মহান বিজয় দিবস’ শীর্ষক আলোচনা ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপ¯ি’ত থেকে বক্তব্য রাখেন এবং পুরস্কার বিতরণী করেন রুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম সেখ। এসকল কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন মহান বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটির সভাপতি এবং ছাত্রকল্যাণ দপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. রবিঊল আওয়াল।
এসকল অনুষ্ঠানে অন্যদের মাঝে রুয়েটের রেজিষ্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. সেলিম হোসেন, বিভিন্ন অনুষদের ডীন, বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।
এয়াড়াও দিবসটি উপলক্ষে বাদ যোহর রুয়েট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সুউচ্চ ভবনসমূহে আলোকসজ্জা করা হয়। এছাড়া হল সমূহে রাতে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জন্য উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়।
রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড: মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড রাজশাহী কর্তৃক বোর্ড চত্বরে প্রধানমন্ত্রীর কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ ও আলেচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো: হাবিবুর রহমান।
আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের সচিব ড. মোয়াজ্জেম হোসেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আরিফুল ইসলাম, বিদ্যালয় পরিদর্শক প্রফেসর দেবাশীষ রঞ্জন রায়, উপ-পরিচালক (হিসাব ও নিরীক্ষা) বাদশা হোসেন, মুঞ্জুর রহমান খান, সভাপতি, অফিসার্স কল্যাণ সমিতি, কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোহা: হুমায়ুন কবীর এবং তথ্য ও গণসংযোগ কর্মকর্তা এ.এফ.এম. খায়রুল আলম। এ ছাড়াও বোর্ডের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ বোর্ডের কর্মচারী ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ ও অফিসার্স কল্যাণ সমিতির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
রাকাব: রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব) এর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে রাজশাহী জেলা প্রশাসন চত্বরের স্মৃতিস্তম্ভে সকালে মহান মুক্তিযুদ্ধে দেশের জন্য আত্মোৎসর্গকারী বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইসমাইল হোসেন।
এ সময়ে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধান কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) জয়নাল আবেদীন, মহাব্যবস্থাপক (নিরীক্ষা, হিসাব ও আদায় বিভাগ) মাকসুদা নাসরীন, রাজশাহী বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামিল বুরহান ফিরদৌস, প্রধান কার্যালয়ের বিভাগীয় প্রধানগণ, প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ, প্রজেক্ট ডাইরেক্টর, এসইসিপি, রাজশাহী; উপ-মহাব্যবস্থাপক, স্থানীয় মুখ্য কার্যালয়, রাজশাহী, জোনাল ব্যবস্থাপক রাজশাহী, রাকাব কর্মচারী সংসদ (রাজ-৬১১), রাকাব অফিসার্স এসোসিয়েশন, রাকাব অফিসার্স ফোরাম; বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দসহ প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় নিরীক্ষা কার্যালয়, রাজশাহী; এসইসিপি ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনে অবস্থিত রাকাবের বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।
এছাড়াও সকাল সাড়ে ১০টায় “স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলার উন্নয়ন” শীর্ষক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে ঢাকা থেকে সরাসরি অংশগ্রহণ করেন রাকাব পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান রইছউল আলম মন্ডল। উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে উক্ত সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইসমাইল হোসেন।
ভার্চুয়াল সভায় রাকাবের উর্ধ্বতন নির্বাহীগণসহ সকল জোনের জোনাল ব্যবস্থাপক ও বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ অংশগ্রহণ করেন।
রামেবি: রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রামেবি) উদ্যোগে বিজয় দিবস-২০২১ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. এ জেড এম মোস্তাক হোসেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. রুস্তম আলী আহমেদ। অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক ছিলেন, প্রফেসর ড. আবুলকাশেম, ইতিহাস বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।
কর্মসূচির মধ্যে ছিলো- রামেবির অস্থায়ী কার্যালয়ে সূর্যদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলোন, সকাল ৮ টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও মোনাজাত, সকাল ৯ টায় বিজয় র‌্যালি, সকাল ১০টায় আলোচনাসভা, রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ, চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার আধ্যাপক ডা.আনোয়ারুল কাদের, পরিচালক (প.উ.) ইঞ্জিনিয়ার সিরাজুম মুনির, পরিচালক (অ.হি.) ডা. জাকির হোসেন খোন্দকার, উপ-রেজিস্ট্রার ডা. আমিন আহমেদ খান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক ডা. আনোয়ার হাবিব, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ডা. সারওয়ার জাহান, উপ কলেজ পরিদর্শক ডা. মোহাম্মদ মেহেরওয়ার হোসেন, শুভেন্দু দত্ত, সেকশন অফিসার, রাসেদুল ইসলাম, লিয়াজোঁ ও প্রটোকল অফিসার ইসমাঈল হোসেন, কবির আহমেদ, আব্দুস সোবহান, সেকশন অফিসার নাজমুল হোসাইন, সিমা আক্তার, মেহেদী মাসুদ সানি, আশরাফুল ইসলাম, মেহেদী হাসান, নাজমুল আলম ইমন, গোলাম রহমানসহ বিভিন্ন নাসিং কলেজের অধ্যক্ষ, শিক্ষক ও কর্মকর্তাবৃন্দ।
বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়: কর্মসূচীর মধ্যে ছিল মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, অনলাইন আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
সকাল ৮ টা ৩০ মিনিটে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কাজলা ভবন প্রাঙ্গনে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে বিজয় দিবস উদযাপন শুরু হয়। এরপর স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিজয় শোভাযাত্রা বের করা হয়। সেটি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। এরপর শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
শোভাযাত্রা পরবর্তী অনুষ্ঠানে আলোচনা সভা ও অনলাইন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সভাপতিত্ব করেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপাচার্য প্রফেসর ড. এম. ওসমান গনি তালুকদার। প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন মাগুরা ১-এর মাননীয় সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান।
বিশেষ অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. বিশ্বজিৎ চন্দ, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্ট এর সম্মানিত চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান খান এবং বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপদেষ্টা প্রফেসর ড. এম. সাইদুর রহমান খান।
আরো যুক্ত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ডীন, বিভাগীয় প্রধান এবং কো-অর্ডিনেটরবৃন্দ। যুক্ত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়-এর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার পারমিতা জামানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের সম্মানিত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও ছাত্রছাত্রীবৃন্দ।
রাজশাহী হার্ট ফাউন্ডেশন : রাজশাহী হার্ট ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মহা: হবিবুর রহমানের নেতৃত্বে হার্ট ফাউন্ডেশনের কার্যনির্বাহী কমিটি ও রাজশাহী হার্ট ফাউন্ডেশন মেডিকেল সেন্টারের কর্মকর্তা-কর্মচারী বৃন্দ স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত সকল শহীদের স্মরণে স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। ১৬ ডিসেম্বর বেলা ১০ টায় পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সাড়ে ১০ টায় রাজশাহী হার্ট ফাউন্ডেশনের উদ্যেগে ‘ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প’ এর আয়োজন করা হয়।
মেডিকেল ক্যাম্পে আগত রোগীদের ফ্রি ব্যবস্থাপত্র প্রদান করেন, রাজশাহী হার্ট ফাউন্ডেশন মেডিকেল সেন্টারের চীফ কনসালটেন্ট ও পরিচালক, বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা: এম এ খালেক ও অন্যান্য চিকিৎসক বৃন্দ। গরীব ও দু:স্থ রোগীদের ইসিজি ও অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা ফ্রি দেয়া হয়।
এনবিআইইউ: নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে (এনবিআইইউ) যথাযোগ্য মর্যাদা ও নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মহান বিজয় দিবস উদ্যাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে রাজশাহী মহানগরীর চৌদ্দপাই-এ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এছাড়া সকাল ৯টায় রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় শহীদ মিনারে শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুস্পস্তবক অর্পণ ও এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
এরপর দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে ক্যাম্পাসে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় ইউনিভার্সিটির উপাচার্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. আবদুল খালেকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারম্যান নারীনেত্রী ও সুসাহিত্যিক অধ্যাপিকা রাশেদা খালেক। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটি ট্রেজারার প্রফেসর ড. মদন মোহন দে, চীফ কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ড. পি.এম. সফিকুল ইসলাম এবং উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেকের অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী নাতনি। ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা হাসান ঈমাম সুইট এর সঞ্চালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রক্টর, সহকারি প্রক্টরসহ বিভিন্ন বিভাগের কো-অর্ডিনেটর, শিক্ষক- কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
বিএমডিএ: সকালে শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন বরেন্দ্র বহুমুখি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশীদ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শামসুল হোদা, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. আবুল কাসেম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও সচিব (ভারপ্রাপ্ত) নাজিরুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এটিএম মাহফুজুর রহমান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শরীফুল হক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শহিদুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাক, নির্বাহী প্রকৌশলী শিবির আহমেদ, নির্বাহী প্রকৌশলী জিন্নুরাইন খান, উপ ব্যবস্থাপক এটিএম রফিকুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী তরিকুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী নাজমুল হুদা, হিসাবরক্ষণ অফিসার রোকনুজ্জামান বিশ্বাস। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিবিএ-৩০৪২ এর সভাপতি ও সেক্রেটারী, সিবিএ রাজ-১৫০০ সভাপতি ও সেক্রেটারীসহ কর্র্তৃপক্ষের অন্যান্য কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ।
আরইউজে: রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের (আরইউজে) উদ্যোগে মহান বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে ঐতিহ্যবাহী রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। এসময় আরইউজের সদস্যরা পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
উপস্থিত ছিলেন, আরইউজে সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈয়বুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক, কার্যনির্বাহী সদস্য শরিফুল ইসলাম তোতা, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্মমহাসচিব রাশেদ রিপন, কার্যনির্বাহী সদস্য বদরুল হাসান লিটন, আরইউজে সদস্য সৌরভ হাবিব, জিয়াউল গণি সেলিম, সাইফুর রহমান রকি, সালাহ উদ্দিন, আবুল কালাম, মোস্তাফিজুর রহমান রাসেল, রিমন রহমান, আবদুস সালামসহ ইউনিয়নের সদস্যরা।
নেসকো: ‘মহান বিজয় দিবস ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে নেসকো লিঃ এর অধীনস্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-৫, রাজশাহী কর্তৃক শিশুদের জন্য চিত্রাঙ্কন, রচনা ও আবৃতি প্রতিযোগিতাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ নেসকো লিঃ এর নির্বাহী পরিচালক (কারিগরি ও অপারেশন), প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ, নির্বাহী পরিচালক (অর্থ) সৈয়দ গোলাম আহাম্মদ, প্রধান প্রকৌশলী (বিতরণ জোন-রাজশাহী) প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ এবং পরিচালন ও সংরক্ষণ সার্কেল-১, রাজশাহী এর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শিরিন ইয়াসমিন। এছাড়াও নেসকো লিঃ এর অন্যান্য কর্মকর্তাগণ ও কর্মচারীবৃন্দ উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
পুনাক: রাজশাহী কোর্ট শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে পুস্পস্তবক অর্পন করেন বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) রাজশাহী জেলা শাখার সভানেত্রী জেনিফার রেবেকা। এ সময় রাজশাহী জেলা পুনাকের অন্যান্য সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন।
রাজশাহীতে পুনাককের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবসে সকল শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।
মহান বিজয় দিবস ২০২১ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় রাজশাহী কোর্ট শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে পুস্পস্তবক অর্পন করেন বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) রাজশাহী জেলা শাখার সভানেত্রী জেনিফার রেবেকা। এ সময় রাজশাহী জেলা পুনাকের অন্যান্য সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন ।
জেলা পুলিশ: রাজশাহী জেলা পুলিশের বিজয় দিবসে সকল শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে। মহান বিজয় দিবস ২০২১ উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজশাহী কোর্ট শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে রাজশাহীর পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন, বিপিএম (বার) মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে পুস্পস্তবক অর্পন করেন।
পরবর্তীতে পুলিশ সুপার পুলিশ লাইন্স স্মৃতিস্তম্ভে এবং গণকবরে পুস্পস্তবক অর্পন করে মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী পুলিশ সদস্য সহ সকল শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন। এসময় রাজশাহী জেলা পুলিশের অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
পবা উপজেলা: এদিন নওহাটা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সকাল ৮টায় জাতীয় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের সাংসদ সদস্য ও জেলা আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আয়েন উদ্দিন। এতে অংশ নেন পবা উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার লসমী চাকমা, পবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সিরাজুন মনির।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নওহাটা পৌর মেয়র মো. হাফিজুর রহমান, পবা সহকারি কমিশনার ভূমি শেখ এহসান উদ্দীন, পবা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাবেয়া বসরী, পবা সাব রেজিস্টার রওশন আরা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজিয়া বেগম, প্রধান শিক্ষক ওমর আলী, সাবেক অধ্যক্ষ আশরাফ আলী দেওয়ান, সাবেক অধ্যক্ষ আব্দুল খালেক, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো. এমদাদুল হক, পবা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি এসএম আয়নাল হক প্রমুখ।
দামকুড়া ইউনিয়ন আ’লীগ: স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে পবার দামকুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত কর্মসুচিতে অতিথি ছিলেন জেলা যুবলীগ সভাপতি আবু সালেহ, সহসভাপতি মীর আকতার মিতুল, জেলা আওয়ামী লীগ ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক আকতারুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, দামকুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও দামকুড়া ইউনিয়ন পরিষদ নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক তফিকুল ইসলাম, দামকুড়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি শাহীন অকতার লিটন প্রমুখ।
নওগাঁ: নওগাঁয় শহরের মশরপুর বাইপাস মোড়ে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পনের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। পুষ্পস্তবক অর্পন করেন জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদ। পরে পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার হারুন অল রশিদসহ জেলা পরিষদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক, পৌর মেয়র নজমুল হক সনি, জেলা প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠন। পরে স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ, সালাম গ্রহণ ও ডিসপ্লে প্রদর্শন করা হয়। দুপুরে জেলা প্রশাসন মুক্তিযোদ্ধা সহ শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
রুয়েট: দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি পালন করে। রুয়েটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম সেখ শহীদদের সম্মানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে রুয়েট শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি রুয়েট, বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদ রুয়েট, রুয়েট শাখা ছাত্রলীগ, রুয়েট কর্মচারী সমিতি, বিভিন্ন হলের প্রভোস্ট পৃথক পৃথক ভাবে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে। ক্যাম্পাসে অবস্থিত শহীদ ছাত্রদের কবর জিয়ারত করা হয়।
নিয়ামতপুর: নিয়ামতপুরে খাদ্যমন্ত্রী সাধন মজুমদার, উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ ও নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন শহীদদের উদ্যেশ্যে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর উপজেলা আ’লীগ বিএনপি, জাতীয় পার্টি, উপজেলা প্রেস ক্লাব সহ বিভিন্ন সংগঠন শহীদদের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। সম্মিলিত কুচকাওয়াজ, শাারীরিক কসরত প্রদর্শন, ক্রীড়া অনুষ্ঠান, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, হাসপাতাল ও এতিমখানায় উন্নত খাবার পরিবেশন সহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়।
আক্কেলপুর: জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে বর্ণাঢ্য আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। গণকবর সমুহে পুস্মমাল্য অর্পণ এবং শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামানা করে দোয়া করা হয়েছে। পুলিশ, আনসার, ফায়ারসার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্যসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহনে মার্চপাস্ট অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাবিবুল হাসান। পোরশা: নওগাঁর পোরশায় দিবস উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা দলিল লেখক সমিতি, উপজেলা আদিবাসী পরিষদসহ সরকারী-বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, এনজিওসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছিল ব্যাপক কর্মসূচি। সারাইগাছী বাজারের বিজয়স্তম্ভে প্রথমে খাদ্যমন্ত্রী সাধন মজুমদারের পক্ষে, পরে পর্যায়ক্রমে উপজেলা প্রশাসন। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হামিদ রেজা, উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ্ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকির হোসেন, উপজেলা সহকারী সাব-রেজিস্ট্রার খালেদা বেগম।
গোমস্তাপুর: গোমস্তাপুরে দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন, স্থানীয় আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচি পালন করে। মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনী, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারবর্গকে সংবর্ধনা, ফুটবল ও ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত সকল কর্মসূচিতে ছিলেন সাবেক সাংসদ জিয়াউর রহমান ও গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, উপজেলা চেয়ারম্যান হুমায়ুন রেজা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, রহনপুর পৌর মেয়র মতিউর রহমান খান, গোমস্তাপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামসুল আজম, গোমস্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস।
এনবিআইইউ: নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (এনবিআইইউ) ক্যাম্পাসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় শহীদ মিনারে শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। ক্যাম্পাসে আলোচনা সভায় উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা রাশেদা খালেক। বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রেজারার প্রফেসর ড. মদন মোহন দে, চীফ কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ড. পি.এম. সফিকুল ইসলাম। শিবগঞ্জ: শিবগঞ্জে শহীদ বেদীতে পুস্পস্তবক অর্পণের মধ্যদিয়ে দিবসটি পালিত হয়। উপজেলা চত্বরের শহীদ দেবীতে পুস্পস্তবক অর্পন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড, উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল-রাব্বী. শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ ফরিদ উদ্দিন, শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ মুনিরুল ইসলাম সহ উপজেলা আওয়ামী লীগ, শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পূর্ণবাসন কেন্দ্র সহ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠন।
মোহনপুর: বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে মোহনপুর স্মৃতি সৌধে পবা-মোহনপুর আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন, উপজেলা প্রশাসন, আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা, বিএনপির, জাতীয় পার্টি সহ বিভিন্ন সংগঠন, পুষ্প স্তবক অর্পণ করেন। দিন ব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে মোহনপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কুচকওয়াজ, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানে সভাপতি করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা সানওয়ার হোসেন। প্রধান অতিথি ছিলেন এমপি আয়েন উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুস সালাম। মোহনপুর উপজেলঅ প্রেস ক্লাবের পক্ষেও স্মৃতি সৌধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পুষ্পস্তবক আর্পণ করা হয়।
বড়াইগ্রাম: নাটোরের বড়াইগ্রাম পৌরসভার উদ্যোগে বর্ণাঢ্য র‌্যালী, পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। মেয়র মাজেদুল বারী নয়নের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খাইরুল আলম, ইউএনও মারিয়াম খাতুন, বনপাড়া পৌর মেয়র জাকির হোসেন, ওসি নজরুল ইসলাম।
ভোলাহাট: ভোলাহাটে স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কবর জিয়ারত করা হয়। রামেশ্বর হাই স্কুল মাঠে বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজ ও ইউএনও সমর কুমার পালের সভাপতিত্বে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।
বাঘা: বাঘায় শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন সহ নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। বাঘা মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত কর্মসূচিতে ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. লায়েব উদ্দিন লাভলু, নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা ও বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ সাজ্জাদ হোসেন। পুলিশ, আনসার ভিডিপি ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে আগত শিক্ষার্থীদের কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত হয়।
ধামইরহাট: ধামইরহাটে উপজেলা স্মৃতিসৌধে সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকারের পক্ষ থেকে শহীদ বেদীতে উপজেলা প্রশাসন, আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, শুভসংঘসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে পুর্স্পমাল্য অর্পন করে। এম এম কলেজ মাঠে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কষরত প্রদর্শন ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
পত্নীতলা: পত্নীতলায় নজিপুর সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনের শহীদ মিনারে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, অঙ্গ সংগঠন সহ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, এনজিও সংস্থা, সর্বস্তরের মানুষ শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পমাল্য অর্পন করে। উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল গাফফার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটন সরকার ও পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুল আলম শাহ্ দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নেন।


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৮, ২০২১ | সময়: ৬:০৮ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর