বাগমারায় আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নারীসহ আহত ১৫

স্টাফ রিপোর্টার, বাগমারা: আসন্ন ইউপি নির্বাচন নিয়ে তুচ্ছ কথা কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের মোহাম্মাদপুর গ্রামে সোমবার সন্ধ্যার সময় স্থানীয় আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের মহিলা সহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে।
সংঘর্ষের পর গ্রামবাসীরা আহতদের উদ্ধার করে বাগমারা মেডিকেলে নিয়ে ভর্তি করেছে। আহতদের দুই জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় রাতেই তাদেরকে রাজশাহী মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।
আহতরা হলেন একই গ্রামের জেহের আলী (৫০), আব্দুল গফুর (৪০), ভোলা (৪২) তার স্ত্রী আফরোজা (৩৬), মেয়ে সুরাইয়া খাতুনসহ (১৫), একই গ্রামের শামিম (২৫), আব্দুর রাজ্জাক (৩৬), আইনাল (৩৮), আতাউর (৩৫), আজাদ (৪৫) ও ইসাহাক (৩০) সহ প্রায় ১৫ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে আইনাল ও আফরোজার অবস্থা আশংঙ্খাজনক হওয়ায় তাদেরকে রাজশাহী মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।
গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন নৌকা প্রতীক পেয়েছেন ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মাষ্টার লুৎফর রহমান। এই নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চেয়ে নিরাশ হন উপজেলা আ’লীগের দপ্তর সম্পাদক নুরুল ইসলাম। তিনিও ইউনিয়নব্যাপি ব্যাপক গণসংযোগ চালান ও নেতা কর্মী তৈরি করেন। ওই দিন সন্ধ্যায় লুৎফর ও নুরুল পক্ষের লোকজন মোহাম্মাদপুর বাজারে চা পান করতে গেলে উভয়ের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে তুচ্ছ কথাকাটাকাটিকে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ জানান, তিনিও নেতা কর্মীদের মাধ্যমে সংঘর্ষের বিষয়টি জানতে পারেন। পরে স্থানীয় সংসদ সদস্য এনামুল হকের নির্দেশে দ্রুত বাগমারা মেডিকেলে গিয়ে আহতদের উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।
তিনি আরো বলেন, এমপি স্যারের নির্দেশে উভয় পক্ষকে কঠোর সতর্কতা জানানো হয়েছে। এভাবে আর কোন দলীয় হট্টগোল মেনে নেওয়া হবে। যে কেউ নৌকার বিরোধিতা করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাক আহম্মেদ জানান, ঘটনা শোনার সাথে সাথে তিনি এলাকায় পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করেন। তবে ওই ঘটনায় এখনও কোন পক্ষ কোন অভিযোগ দাখিল করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে তিনি জানান।


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৮, ২০২১ | সময়: ৫:৪২ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ