বড়াইগ্রামে ১৩ দিন ধরে বন্ধ একটি এবতেদায়ী মাদরাসা

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি: বড়াইগ্রামের শ্রীরামপুর স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসায় শিশু শিক্ষার্থীদের ঝগড়ার জেরে এক শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের হামলা, মারপিট ও শ্রেণিকক্ষে মল ছিঁটানোর জেরে গত ১৩ দিন যাবৎ বন্ধ রয়েছে সকল কার্যক্রমসহ বার্ষিক পরীক্ষা। এতে মাদরাসার শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
মাদরাসা ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, গত ২২ নভেম্বর মাদরাসার পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান চলছিল। দুপুরে যোহরের নামাজের বিরতির সময় তুচ্ছ বিষয় নিয়ে প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী বায়েজিদের সঙ্গে তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী নুসাইবা খাতুনের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। বায়েজিদ বাড়িতে গিয়ে জানালে তার স্বজনরা মাদরাসায় এসে নুসাইবাকে মারপিট করে।
এ সময় বাধা দিলে তারা শিক্ষকদের উপরও চড়াও হয়। স্থানীয়রা এগিয়ে এলে তারা চলে যান। কিন্তু পুনরায় রাতের বেলায় মাদরাসার শ্রেণিকক্ষে মানুষের মল ছিটিয়ে রাখার ঘটনা ঘটে। বায়েজিদের স্বজনরাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবী মাদরাসা কর্তৃপক্ষের।
এরপর গত ২৩ নভেম্বর স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মিমাংসার উদ্যোগ নিলেও শেষ পর্যন্ত সমাধান হয়নি। এতে পুনরায় সংঘাতের আশঙ্কায় শিক্ষকরা মাদরাসা খুলতে পারছেন না। ফলে গত ২৭ নভেম্বর থেকে মাদরাসায় বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও তা সম্ভব হয়নি। এতে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন তাদের অভিভাবকরা।
মাদরাসার প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমানের কাছে মোবাইলে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে খুবই বিপাকে আছি। মাদরাসাও খুলতে পারছি না, পরীক্ষাও নিতে পারছি না। দ্রুত সমাধান না হলে শিক্ষার্থীদের অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে।
বড়াইগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান ও মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি মমিন আলী বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ছোট শিশুদের ঝগড়াকে কেন্দ্র করে মাদরাসায় একটু ঝামেলা হয়েছে। আমরা বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করছি। আশা করছি দ্রুতই সমাধান করে মাদরাসা খোলা ও পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে।


প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৬, ২০২১ | সময়: ৫:০২ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর