Daily Sunshine

আবর্জনা দেখে পরিষ্কারে নামলেন নেদারল্যান্ডের দুই পর্যটক

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার হামহাম জলপ্রপাতে বেড়াতে এসে দুই বিদেশি পর্যটক পরিষ্কার করলেন বাংলাদেশি পর্যটকদের ফেলে যাওয়া আবর্জনা।

মঙ্গলবার দুপরে জলপ্রপাতে বেড়াতে এসে এসব আবর্জনা দেখে পরিষ্কার অভিযানে নামেন নেদারল্যান্ড থেকে ঘুরতে আসা দুই বিদেশি পর্যটক লুই ও ডিডারিক।

তাদের সঙ্গে থাকা ট্যুর গাইডের সূত্রে জানা যায়, বেড়াতে এসে হামহাম এলাকায় ফেলে রাখা বিভিন্ন পলিথিন, চিপসের প্যাকেট ও প্লাস্টিকের বোতল দেখে হতাশা ব্যক্ত করেন এই দুই বিদেশি পর্যটক।

পরবর্তীতে নিজেদের উদ্যোগে পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু করেন তারা। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী সময় ধরে হামহামের পরিচ্ছনতার পাশাপাশি প্লাস্টিকের বিভিন্ন বর্জ্য আগুন দিয়ে পুড়িয়ে নষ্ট করেন ভিনদেশি দুই পর্যটক।

তাদের সঙ্গে থাকা ইকো ট্যুর গাইড ও ভ্রমণবিষয়ক লেখক শ্যামল দেববর্মা বলেন, আমরা সর্বত্র কোনো না কোনোভাবে পরিবেশ দূষণ করছি। অথচ আমাদের একটু সচেতনতায় পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা হতে পারে, এটি আমরা মানছি না। এখানে যারা বেড়াতে আসেন তারা বিভিন্ন স্থানে আবর্জনা ফেলে যান। পরিবেশের কথা মাথায় রেখে ময়লা-আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেললে এমন হতো না। অথচ আজ দুই ভিনদেশি পর্যটক এসব আবর্জনা দেখে নিজেরাই পরিষ্কার করেন। এটি আমাদের জন্য অনুকরণীয়।

মৌলভীবাজার জেলা পরিবেশ সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক নূরুল মোহাইমিন মিল্টন জাগো নিউজকে বলেন, আমরা যে কত অসচেতন এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন এই ঘটনায় আবারও তা প্রমাণিত হলো। বিদেশিরা আমাদের সৃষ্ট আবর্জনা পরিষ্কার করছেন বিষয়টি আমাদের জন্য লজ্জাজনক। আমাদের উচিত পরিবেশকে গুরুত্ব দেয়া এবং পরিবেশের যত্ন নেয়া।

তিনি আরও বলেন, শুধু আবর্জনার ক্ষেত্রে নয়, অন্য সবকিছুতেই আমাদের কমনসেন্সের অভাব। বিদেশিরা আমাদের সংরক্ষিত বনে এসে নীরবে উপভোগ করেন, আর আমরা লাউড স্পিকার নিয়ে মাইক বাজিয়ে বনের ভেতর ঘুরি। বন্যপ্রাণী দেখলে ঢিল ছুড়ি। এসব বিষয়ে আমাদের সচেতন হওয়া দরকার।

ফেব্রুয়ারি ১৪
১৩:৪৭ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

বাবুর্চি থেকে হোটেল মালিক আফজাল

বাবুর্চি থেকে হোটেল  মালিক আফজাল

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: ছিলেন বাবুর্চি এখন হোটেল মালিক। ৯০’ এর দশকে হোটেলের বয় হিসাবে যাত্রা শুরু এই যুবকের। আজ তিনি নিজেই একটি হোটেল পরিচালনা করছে। সুদীর্ঘ এই পেশাদার জীবনে অনেক পেয়েছেন। পেয়েছেন অর্থ, খ্যাতি, সম্মান ও সর্বোপরি সবার ভালোবাসা। এ ছাড়া বাগমারার সকল হোটেল কর্মচারিরা তাকে নেতাও বানিয়েছে। তিনি

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত