Daily Sunshine

ছয় শিশুকে ধর্ষণ করেছে জয়নাল

Share

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় জলপাই খায়ানোর লোভ দেখিয়ে চার শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে জয়নাল আবেদীন (৫৫) নামে এক সিরিয়াল ধর্ষক। একই সঙ্গে ধর্ষণের শিকার চার শিশু শিক্ষার্থীকে আদালতে হাজির করা হলে তাদের সঙ্গে আরও দুই সহপাঠীকে ধর্ষণের কথা বিচারকের কাছে প্রকাশ করে তারা।

এ নিয়ে জয়নালের বিরুদ্ধে ছয় শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেল। গত বৃহস্পতিবার (১১ সেপ্টেম্বর) বগুড়া আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় জয়নাল আবেদীন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ধুনট থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরজ্জামান সরদার শনিবার এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আদালতে প্রকাশ করা তথ্য অনুযায়ী আরও দুই শিশুকে ধর্ষণের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনাটির প্রমাণ পাওয়া গেলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তিন সন্তানের জনক জয়নাল আবেদীন এলাকায় ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে। সে উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের গোপালপুর খাদুলী গ্রামের ফজর আলীর ছেলে। ধর্ষণের শিকার চার শিশু শিক্ষার্থী জয়নালের প্রতিবেশী। তারা জয়নালের দূর সম্পর্কের নাতনি। হতদরিদ্র পরিবারের চার শিশুর মধ্যে দুই জন তৃতীয় শ্রেণির এবং দুইজন প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।

গত ৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে তৃতীয় শ্রেণির দুই ছাত্রী জয়নালের বাড়িতে জলপাই কুড়াতে যায়। এ সময় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে জয়নাল ওই দুই শিশুকে জলপাই খাওয়ানের লোভ দেখিয়ে ঘরের ভেতর নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর ৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে একই কৌশলে প্রথম শ্রেণির দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে সে।

এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার দুই শিশুর বাবা বাদী হয়ে জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে থানায় দুই মামলা দায়ের করে। গত ১০ সেপ্টেম্বর জয়নালকে গ্রেফতারের পর ১১ সেপ্টেম্বর বগুড়া আদালতে হাজির করা হলে সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। একই দিন চার শিশু আদালতে ধর্ষণের বর্ণনাকালে তাদের সঙ্গে আরও দুই সহপাঠীকে ধর্ষণের কথা প্রকাশ করে তারা। সিরিয়াল ধর্ষক জয়নাল আবেদীন বগুড়া কারাগারে আটক রয়েছে।

সানশাইন অনলাইন/এন এ

সেপ্টেম্বর ১৫
১৭:১১ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

রোজিনা সুলতানা রোজি : এমন এক সময় ছিল যখন মেয়েদের সাইকেল চালানোকে সমাজ নেতিবাচক দিক হিসেবেই দেখতো। মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে দেয়া হত যখন তারা বুঝতোই না যে বিয়ে কি? সাইকেল চালানো তো দূরের কথা মেয়েদের পড়ালেখারও তেমন সুযোগ দেয়া হত না। কিন্তু সমাজ আজ আধুনিকতার ছোঁয়ায় সচেতন হয়েছে। সমাজের

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত