Daily Sunshine

কর্মস্পৃহা সৈয়দের জীবিকার উৎস

Share

রোজিনা সুলতানা রোজি : প্রয়োজন মানে না কোনো বাঁধা। বোঝে না মানসিক এবং শারিরীক অবস্থা কিংবা বয়স। প্রয়োজনের তাগিদে মানুষ আরাম-আয়েশ ত্যাগ করে দিন-রাত পরিশ্রম করে। এদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা শারিরীক প্রতিবন্ধী। তার পরেও বেঁচে থাকার জন্য জীবনের সাথে যুদ্ধ করছেন প্রতিনিয়তই। এমনই একজন জীবন সংগ্রামী সৈয়দ আলী (৪৫)। যিনি শারিরীক প্রতিবন্ধী। তা সত্বেও বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক আচার বিক্রি করেই সংসার নামক সাগর পাড়ি দিচ্ছেন।
রাজশাহী নগরীর লক্ষ্মীপুর মোড় থেকে রামেক হাসপাতাল যাওয়ার মাঝামাঝি ফুটপাতেই তার আচারের পসরা, সঙ্গে ফল। সেখানে থরে থরে সাজানো সুস্বাদু পেয়ারা, শশা, টক-ঝাল-মিষ্টি স্বাদের চালতা এবং তেঁতুলের আচার। পথচারীদের অনেকেই থমকে যায় সেই দোকানে পছন্দমত রসনা তৃপ্তির জন্য। ফুটপাত হলেও বেচাকেনা ভালোই হয় সৈয়দ আলীর আচার সম্ভারে।
সৈয়দ আলী জানান, তিনি নগরীর রাজপাড়া থানাধীন হড়গ্রাম মোল্লাপাড়া মহল্লার মৃত শেখ সুনাম উদ্দিনের ছেলে। চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি তৃতীয়। দুই বোন থাকলেও তারা নিজেদের সংসার নিয়েই ব্যস্ত। সৈয়দ আলী ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন। পরে বাবা মারা যাওয়ায় এত ভাই-বোনদের সংসারে তা চালিয়ে যাওয়া আর সম্ভব হয় নি। এরপর মাও মারা যায়। ভাইয়েরাও বিয়ে করে আলাদা সংসার করছেন।
তিনি জানান, স্ত্রীসহ তার এক মেয়ে এবং দুই ছেলে রয়েছে। মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। বড় ছেলে ৫ম শ্রেণীতে এবং ছোট ছেলে ৩য় শ্রেণীতে পড়াশোনা করে। এ আচার ব্যাবসা করেই সংসার এবং তাদের পড়াশোনার খরচ বহন করছেন।
তেরো বছর বয়সে শরীরে জ্বর হয় এবং তা থেকে টাইফয়েডে আক্রান্ত হন তিনি। সেই টাইফয়েডই কাল হয় তার জীবনে। এ থেকে তার শরীরের পিঠের পুরো অংশই বাঁকা হয়ে যায়। ঠিকমত আর সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারেন না। তারপর ইচ্ছা থাকলেও আর ভারি কাজ করতে পারেন না। কেউ কাজেও নিতে চায় না। তখন তিনি মানসিক এবং শারিরীক ভাবে ভেঙ্গে পড়েন। জীবনে তখন নেমে আসে দূর্বীসহ অবস্থা। কিন্তু তার কর্মস্পৃহা তাকে তাকে দমিয়ে রাখতে পারে নি। তিনি বেছে নেন এই আচার বিক্রির কাজ।
নগরীর বিভিন্ন বাজার থেকে পেয়ারা, আমড়া, শশা, চালতা, তেঁতুলসহ বিভিন্ন মুখরোচক খাদ্যপণ্য কিনে সেগুলোকে আরো সুস্বাদু করে বিক্রি করেন। প্রথমে সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট, পদ্মা গার্ডেন, টি বাঁধ, সিএন্ডবি মোড়সহ বিভিন্ন লোক সমাগম স্থানে তা বিক্রি করতেন। বর্তমানে এ স্থানে আসা প্রায় পাঁচ বছর হলো। প্রায় ২৭ বছর ধরে এভাবে আচারেই ঘুরছে সৈয়দ আলীর জীবিকার চাকা।

ফেব্রুয়ারি ২৮
০৪:০৪ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

রোজিনা সুলতানা রোজি : সকাল থেকে রাত অবধি ডাবের সঙ্গেই সচল তার জীবিকার চাকা। প্রায় গত ৮ বছরের বেশী সময় ধরে সড়কের পাশে ফুটপাতে ডাব বিক্রি করে এক সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে তার সংসার ভালোই চলছে। ক’দিন আগেও প্রতিদিন ডাব বিক্রি করে প্রতিদিন ৬ থেকে সাতশ টাকা আয় হয়েছে তার।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

স্টাফ রিপোর্টার : তিন কোটি ৪৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের রাজশাহী শাখার কর্মকর্তা এফএম শামসুল ইসলাম ফয়সালকে সাত দিনের রিমান্ডে চায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আদালতে তার এই রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। আগামী ১ মার্চ রিমান্ড আবেদনের শুনানি হবে। এর আগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি এফএম শামসুল ইসলাম

বিস্তারিত