Daily Sunshine

রাতে ক্যাম্পাস বন্ধের পর ১৭ দাবি নিয়ে সকালে রাজপথে শিক্ষার্থীরা

Share

শাহ মখদুম মেডিক্যাল কলেজ
স্টাফ রিপোর্টার : চলমান আন্দোলনের মুখে রাতে বন্ধ ঘোষণার পর রবিবার সকালে রাজপথে নেমেছে রাজশাহীর শাহ মখদুম মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীরা। সকালে রাজশাহী মহানগরের সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) রেজিস্ট্রেশনসহ ১৭ দফা দাবি জানিয়েছে তারা।
মানববন্ধন কর্মসূচিতে শাহ মখদুম মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীরা ইন্টার্নশিপের ব্যবস্থা ও নিজস্ব পরীক্ষাকেন্দ্রসহ নিজেদের কলেজের প্রয়োজনীয় ল্যাব, পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল ফ্যাসিলিটি, শিক্ষক, ল্যাইব্রেরি ব্যবস্থারও দাবি জানিয়েছেন।
মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, শাহ মখদুম মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের ভর্তি করে কোটি কোটি টাকা আদায় করলেও বিএমডিসির অনুমতি না পাওয়ায় ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা চরম অনিশ্চয়তায় রয়েছেন। কলেজ কর্তৃপক্ষের কারণে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চয়তায় পড়েছে। এ বিষয় মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানালে ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মনিরুজ্জামান স্বাধীন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নানাভাবে ভয়-ভীতি দেখান। এমনকি শিক্ষার্থীর অভিভাবকদেরও তিনি হেনস্থা করছেন বলেও অভিযোগ করা হয়।
এর আগে শিক্ষার্থীদের লাগাতার আন্দোলনের মুখে রাজশাহীর শাহ মখদুম মেডিক্যাল কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়ছ। শনিবার রাত ৮টার মধ্যে ছাত্রদের ও রবিবার সকাল ১০টার মধ্যে ছাত্রীদের হোস্টেল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। শাহ মখদুম মেডিক্যাল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. হাসানুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
জানা গেছে, বিএমডিসির অনুমোদন ছাড়াই গত সাত বছর ধরে অবৈধভাবে শিক্ষার্থী ভর্তি করিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বিষয়টি এতদিন চেপে রাখলেও সম্প্রতি শিক্ষার্থীরা তা জানতে পারেন। তারা দ্রুত বিএমডিসির অনুমোদনসহ বেশ কয়েকটি দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন।
শিক্ষার্থীরা জানান, বিএমডিসির অনুমোদন ছাড়াই গত সাত বছর ধরে অবৈধভাবে শিক্ষার্থী ভর্তি করিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বিষয়টি এতদিন ধামাচাপা দিয়ে রাখলেও সম্প্রতি পাস করা কয়েকজন শিক্ষার্থী এমবিবিএস পাস করে। কিন্তু বিএমডিসির অনুমোদন না থাকায় তারা ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ পাননি। এর পর বিষয়টি জানা জানি হয়। এর পর দ্রুত বিএমডিসির অনুমোদনসহ ১৭ দফা দাবিতে গত ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ক্লাস বর্জন করে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।
এ কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করা শিক্ষার্থী মামুনুর রশিদ বলেন, ‘নানা সংকটের মধ্যেও আমি গত বছর ১২ মার্চ এমবিবিএস পাস করেছি। কিন্তু ইন্টার্নশীপ করতে পারছি না। সেটি জানতে বার বার মেডিকেল কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের কাছে গেছি। কিন্তু তারা আমাকে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। উল্টো আমাকেই নানাভাবে হুমকি দেওয়া হয়েছে, যেন আমি বিষয়টি নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি না করি। পরে খবর নিয়ে যানতে পারি বিএমডিসির রেজিস্টেশন এখনো হয়নি। এ কারণে ইন্টর্নশিপ করতে পারছি না। চারজন এমবিবিএস পাস শিক্ষার্থীর একই অবস্থা বলে জানান তিনি।’
তবে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনিরুল ইসলাম স্বাধীন বলেন, ‘বিএমডিসির অনুমোদনের জন্য আবেদন করা হয়েছে। তারা পরিদর্শন করেছে। কিছু শর্ত দিয়েছে। সেগুলো পূরণের চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, কিছু শিক্ষার্থী হয়তো কারো প্ররোচণায় আন্দোলনে গেছে। তারপরেও তারা তাদের ন্যায্য দাবি উত্থাপন করতেই পারে। আমার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে বোঝানোর চেষ্টা করছি। তারা শুনেনি। ক্লাস বর্জন করে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিল। সে কারণে কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

ফেব্রুয়ারি ১৭
০৪:৫৬ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

রোজিনা সুলতানা রোজি : সকাল থেকে রাত অবধি ডাবের সঙ্গেই সচল তার জীবিকার চাকা। প্রায় গত ৮ বছরের বেশী সময় ধরে সড়কের পাশে ফুটপাতে ডাব বিক্রি করে এক সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে তার সংসার ভালোই চলছে। ক’দিন আগেও প্রতিদিন ডাব বিক্রি করে প্রতিদিন ৬ থেকে সাতশ টাকা আয় হয়েছে তার।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

স্টাফ রিপোর্টার : তিন কোটি ৪৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের রাজশাহী শাখার কর্মকর্তা এফএম শামসুল ইসলাম ফয়সালকে সাত দিনের রিমান্ডে চায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আদালতে তার এই রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। আগামী ১ মার্চ রিমান্ড আবেদনের শুনানি হবে। এর আগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি এফএম শামসুল ইসলাম

বিস্তারিত