Daily Sunshine

মহানগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হতে চান বেন্টু

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিল ১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নিয়ে চাঙ্গা হয়ে উঠেছে নগরের রাজনীতি। কমিটির গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে পদপ্রত্যাশীরা নেতাকর্মীদের সঙ্গে সাংগঠনিক যোগাযোগ যেমন বেড়েছে, তেমনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হয়ে উঠেছেন সক্রিয়। প্রায় ৫ বছর পর মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আয়োজন করা হবে মাদ্রাসা মাঠে। এ সম্মেলন সফল করতে গঠন করা হয়েছে ৯টি উপ-কমিটি।
তবে সম্মেলন ঘিরে নেতায় নেতায় নানা মেরুকরণও শুরু হয়েছে। কার সঙ্গে কে থাকবেন, কে প্রার্থী হলে কারা সমর্থন দেবেন; এমন হিসাব-নিকাশ চলছে। তবে শীর্ষ দুই পদের মধ্যে এবারো সভাপতি হচ্ছেন মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন; এমনটাই নিশ্চিত বলে মনে করছেন নেতাকর্মীরা। ফলে সাধারণ সম্পাদক পদে নিয়েই সমীকরণটা জটিল। এ পদে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন প্রায় ডজন খানেক নেতা।
যাদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু একজন শক্তিশালী প্রার্থী। পারিবারিক ঐতিহ্য ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের সুবাদে বেন্টুর নগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনে শক্তিশালী অবস্থান ও সমর্থন রয়েছে। আসন্ন নগর কমিটিতে ঘনিষ্ঠ ও বিশ্বস্ত হিসেবে বেন্টুকে রানিংমেট হিসেবে পেতে আগ্রহী সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন এমন আলোচনা আছে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মাঝে।
রাজশাহী নগরের রাজপাড়া থানার হড়গ্রাম এলাকার একটি সম্ভ্রান্ত রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান আজিজুল আলম বেন্টু ১৯৯২ সালে যুবলীগের সদস্য হয়ে রাজনীতিতে সক্রিয় হন। বর্তমান তিনি রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। এর আগে তিনি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের গুরুত্বপূর্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার পর রাজনৈতিক মামলায় হয়রানি ও কারা নির্যাতিত হয়েছেন আজিজুল আলম বেন্টু।
তার বড় ভাই রবিউল ইসলাম বাবু ৮০’র দশকে রাজশাহীর তুখোর ছাত্র নেতা হিসেবে পরিচিত। বর্তমানে তিনি জেলা কৃষক লীগের সভাপতি। আজিজুল আলম বেন্টুর পিতা আলহাজ্ব রহুল আমিন সরকার জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামানের রাজনৈতিক সহকর্মী ছিলেন। তৎকালিন পবা থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের গুরুত্বপূর্ন পদের দায়িত্ব পালন করেছেন বেন্টুর পিতা রুহুল আমিন সরকার।
মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু বলেন, ‘‘সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ একই সংগঠনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই দুইটি পদে যদি বিতর্কিত মুক্ত সঠিক নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত করা যায় তবে সংগঠন আরও শক্তিশালী হবে এবং সাধারণ মানুষের কাছে আওয়ামী লীগের আস্তা আরও বাড়বে।’’
সফল ও সন্দুর ভাবে সম্মেলন সম্পন্ন করতে সকালকে একসঙ্গে কাজ করার আহবান জানিয়ে আজিজুল আলম বেন্টু বলেন, ‘‘মহানগর আওয়ামী লীগের এবার আমি সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী। আমি যদি এ পদে নির্বাচিত হতে পারি তবে মেধা ও যোগ্যতা দিয়ে দলকে আরও শক্তিশালী করতে পারবো।’’
রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয় ২০১৪ সালের ২৫ অক্টোবর। ওই কাউন্সিলে খায়রুজ্জামান লিটন সভাপতি ও ডাবলু সরকার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। বর্তমানে মহানগর আওয়ামী লীগের পাঁচটি সাংগঠনিক থানা ও ৩৭টি ওয়ার্ড কমিটি রয়েছে। ওয়ার্ড ও থানা কমিটিগুলো নতুনভাবে না হওয়ায় ২০১৪ সালের করা ৩৯৫ জন কাউন্সিলর দিয়েই এবারে মহানগর কমিটির সম্মেলন হবে।

ফেব্রুয়ারি ১৭
০৪:৫২ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

রোজিনা সুলতানা রোজি : সকাল থেকে রাত অবধি ডাবের সঙ্গেই সচল তার জীবিকার চাকা। প্রায় গত ৮ বছরের বেশী সময় ধরে সড়কের পাশে ফুটপাতে ডাব বিক্রি করে এক সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে তার সংসার ভালোই চলছে। ক’দিন আগেও প্রতিদিন ডাব বিক্রি করে প্রতিদিন ৬ থেকে সাতশ টাকা আয় হয়েছে তার।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

স্টাফ রিপোর্টার : তিন কোটি ৪৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের রাজশাহী শাখার কর্মকর্তা এফএম শামসুল ইসলাম ফয়সালকে সাত দিনের রিমান্ডে চায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আদালতে তার এই রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। আগামী ১ মার্চ রিমান্ড আবেদনের শুনানি হবে। এর আগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি এফএম শামসুল ইসলাম

বিস্তারিত