Daily Sunshine

নিয়ামতপুরে কানুনগোর পদ শূন্য ৮ বছর, একবছর নেই এসিল্যান্ড

Share

নিয়ামতপুর প্রতিনিধি: নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার ভূমি অফিসে প্রায় এক বছর যাবত সহকারী কমিশনার (ভূমি) পদটি শূন্য রয়েছে। এছাড়া কানুনগো পদটি শূন্য রয়েছে আট বছরেরও বেশী সময় ধরে। ফলে এ অফিসে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও কানুনগো না থাকায় উপজেলার আটটি ইউনিয়নের চারটি ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ভূমি সেবা সংক্রান্ত কাজ চলছে ধীর গতিতে। এমনটি প্রতিনিয়ত হয়রানীর শিকার হচ্ছে সেবা নিতে আসা নাগরিকরা।
নামজারি জমি খারিজের জন্য লোকজন অফিসে সেবা নিতে এসে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা না থাকায় সময়মত কাগজপত্রে স্বাক্ষরের অভাবে ঘুরতে হচ্ছে দিনের পর দিন। গুরুত্বপূর্ণ এদুটি পদ শূন্য থাকায় ভূমি সংক্রান্ত দাফতরিক কার্যক্রমেও স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়ছেন সাধারণ জনগণ।
বর্তমানে সহকারী কমিশনার ভূমির পদ শূন্য থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরা। আর আটবছর যাবত কানুনগোর দায়িত্ব পালন করছেন বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন নামের সার্ভেয়ার।
বর্তমানে কানুনগোর দায়িত্ব পালন করছেন সার্ভেয়ার অলক কুমার মুকুট মনি। ভূমি অফিসের সেবার মান বাড়াতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও কানুনগোর পদ দুটি পূরণের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন ভূমি সেবা গ্রহীতারা।
ভূমি অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসের ১৭ তারিখে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফরোজা খাতুন বদলী হয়ে অন্যত্র চলে গেলে এ পদটি শূন্য হয়। এরপর থেকেই অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। একই বছরে আবারও পদটিতে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনে আসেন পার্শ্ববর্তী উপজেলা মান্দা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাবিবুল হাসান।
তিনি সপ্তাহে দুদিন (মঙ্গল ও বুধবার) অফিস করলে কাজের গতি কিছুটা ফিরে আসে। কিন্তু নতুন বছরের শুরুতেই জানুয়ারি মাসের ২৬ তারিখে তিনি আবারও চলে গেলে পদটি শূন্য হয়ে পড়ে। আবারও অতিরিক্ত দায়িত্ব চাপে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরার উপর। কিন্তু মুজিব শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে তিনি বিভিন্নভাবে ব্যস্ত থাকায় ভূমি সংক্রান্ত সেবা কার্যক্রম চলছে মন্থরগতিতে। অফিসের বারান্দায় দাঁড়িয়ে থাকা উপজেলার সিদাইন গ্রামের খোদা বক্সের ছেলে সিরাজুল ইসলাম বলেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও কানুনগো না থাকায় ভূমি অফিসের কোন কাজই সঠিক ভাবে ও সময়মত হচ্ছে না। একটি একটি জমি খারিজের জন্য দীর্ঘ পাঁচ মাস যাবত ঘুরছি। আসলেই একেকবার একেক কাগজ আনতে বলে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরা বলেন, পদ দুটি শূন্য আছে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি জানলেও আমি পুনরায় পদ দুটি পূরণের জন্য কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

ফেব্রুয়ারি ১৭
০৪:৩৮ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

ডাবেই সচল বাচ্চুর জীবিকার চাকা

রোজিনা সুলতানা রোজি : সকাল থেকে রাত অবধি ডাবের সঙ্গেই সচল তার জীবিকার চাকা। প্রায় গত ৮ বছরের বেশী সময় ধরে সড়কের পাশে ফুটপাতে ডাব বিক্রি করে এক সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে তার সংসার ভালোই চলছে। ক’দিন আগেও প্রতিদিন ডাব বিক্রি করে প্রতিদিন ৬ থেকে সাতশ টাকা আয় হয়েছে তার।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

প্রিমিয়ার ব্যাংকের সেই ফয়সালকে রিমান্ডে চায় দুদক

স্টাফ রিপোর্টার : তিন কোটি ৪৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের রাজশাহী শাখার কর্মকর্তা এফএম শামসুল ইসলাম ফয়সালকে সাত দিনের রিমান্ডে চায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আদালতে তার এই রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। আগামী ১ মার্চ রিমান্ড আবেদনের শুনানি হবে। এর আগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি এফএম শামসুল ইসলাম

বিস্তারিত