Daily Sunshine

মৃৎশিল্পের শৈল্পিক সম্ভারে সুজনের পথচলা

Share

রোজিনা সুলতানা রোজি : বাঙালির শত বছরেরর পুরনো লোকজ ঐতিহ্য মৃৎ শিল্প। প্রাচীনকাল থেকে বংশানুক্রমে গড়ে ওঠা গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী মৃৎ শিল্প আজ প্রায় বিলুপ্তির পথে। কিন্তু কিছু সংখ্যক লোক শরীরের ঘামের সঙ্গে কাদা-মাটি মিশিয়ে এ শিল্পকে এখনো বাংলার ঐতিহ্য হিসেবে ধরে রেখেছে।
এ শিল্পের সাথে সখ্যতা করে এবং আকড়ে ধরেই চলমান রেখেছেন তাদের জীবিকার চাকা। তারা কাদা-মাটিতে শিল্পের নান্দনিক আচড়ে এবং রং তুলির ছোঁয়ায় প্রয়োজনীয় বা বিলাসি রূপে তৈরী করেই জীবনের মৌলিক চাহিদাগুলো পূরণ করেন। এদের মত এমনই এক জীবন সংগ্রামী সুজন চন্দ্র পাল (২৫)। যিনি সুদূর নীলফামারী জেলা থেকে রাজশাহী শহরে এসে মৃৎ শিল্পের বিভিন্ন সৌখিন আসবাবপত্র ভ্যানে করে ঘুরে ঘুরে বিক্রি করেন। ভ্যানের চাকা ঘুরলেই ঘুরে তার জীবিকার চাকা।
সুজন চন্দ্র পাল নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার চওড়াপাল পাড়া গ্রামের শ্রী তুলসিরাম চন্দ্র পালের ছেলে। পাঁচ ভাইয়ের মধ্যে সুজন সবার ছোট।
তিনি জানান, ২০১২ সালে স্থানীয় উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসিতে জিপিএ ৪ গ্রেড পেয়েছেন। তারপর স্থানীয় একটি কলেজে ভর্তি হন । সেখান থেকে ২০১৪ সালে বিজ্ঞান বিভাগ থেকেই পরিক্ষায় অংশ নিয়ে একটি বিষয়ে ফেল করেন। তারপর বাবা-মা এবং পাঁচ ভাইয়ের অভাবের সংসারে আর পড়াশোনা করা হয়নি। সংসারের হাল ধরতে বাবা এবং ভাইদের মত তিনিও শুরু করেন এই মৃৎশিল্পের ব্যাবসা।
সুজন পাল জানান, তিনি প্রায় আট বছর ধরে সুদূর নীলফামারী জেলা থেকে এই রাজশাহী শহরে এসে সাহেব বাজার এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে এসব জিনিসপত্র বিক্রি করেন। তিনি শহরের রেলওয়ে ষ্টেশন চত্বর এলাকায় থেকে এ ব্যবসা করেন। এছাড়াও মেলাসহ বিশেষ মৌসুমে বগুড়া, চাপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁসহ বিভিন্ন জেলায় ঘুরে এসব বিক্রি করেন বলে জানান সুজন পাল।
জীবিকার তাগিদে পরিবার ছেড়ে এভাবেই বিভিন্ন জেলায় কাটে তার মাসের পর মাস। এ থেকে ভালোই আয় হয় বলে জানান সুজন পাল। তার আসবাবপত্রের মধ্যে রয়েছে কারুকার্য খচিত বিভিন্ন রকমের ছোট-বড় নানা মাপের ফুলদানী, ব্যাংক, ফলসহ বাহারী বিলাসি পণ্য।

ফেব্রুয়ারি ০৭
০৪:৫৭ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগর আ’লীগের সভাপতি হতে চাননি ফারুক চৌধুরী

নগর আ’লীগের সভাপতি হতে  চাননি ফারুক চৌধুরী

গুজব ছড়ানো হচ্ছে আসাদুজ্জামান নূর : আসন্ন ১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন। ইতোমধ্যে স্থানীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে, এবারের সম্মেলনে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনসহ সভাপতি হতে চান রাজশাহী-১ (তানোর-গাদাগাড়ী) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী। এসকল খবরের সত্যতা

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত