Daily Sunshine

একজন জীবন সংগ্রামী ইব্রাহীম

Share

রোজিনা সুলতানা রোজি : জীবনের প্রয়োজনে জীবিকার সাথে মানুষের আজীবনের সন্ধি। মানুষ মৃত্যু পর্যন্ত জীকিকার জন্য জীবনের সাথে সংগ্রাম করেন। এই সংগ্রামী জীবনযুদ্ধে কেউ হারে না। হয় জিতে না হয় শিখে। কেউ অন্যের দেখে শিখে তো কেউ আবার তার বাস্তব জীবনে জন্ম থেকেই সেই কাজটি করতে করতেই এমনিইতেই শিখে যায়। প্রয়োজনের তাগিদে মানুষ দূর-দূরান্তে ছুটাছুটি করে মাসের পর মাস, বছরের পর বছর। আবার কেউ বা বাড়িতে থেকেই ছোট বা বড় পরিসরে ব্যাবসা করে বাড়ির পাশেই বা পার্শবতী এলাকায় আপ্রাণ চেষ্টা করে নিজের সাধ্যমতো জীবিকা নির্বাহ করে জীবনের প্রয়োজন মেটাচ্ছেন।
এদের মতোই একজন সংগ্রমী জীবনের ‘বীর সৈনিক’ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ইব্রাহিম হোসেন। তার নেই কোন সুনির্দিষ্ট দোকান, নেই মাথার উপরে কোন ছাউনি। এমনকি দোকানের জিনিসপত্র সাজানোর চটি পর্যন্তও নেই। তার এই ক্ষুদ্র ব্যাবসার পণ্য বলতে কয়েক আঁটি ধনেপাতা আর কয়েকটা খোসা ছাড়ানো নারকেল।
মাঘের হাড় কাঁপানো শীতের বিকেলবেলা। রাজশাহী নগরীর প্রাণকেন্দ্র সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট। জিরো পয়েন্ট থেকে একটু পশ্চিমে সোনাদীঘি মোড়ের বিপরীত পাশেই কাঁচা বাজার এলাকা। এ বাজারে ঢোকার আগেই বাম পাশে খোলা কয়েকটা ফলের দোকান। তার পাশেই দেখা যায় গ্রমীণ পোশাক পরিহিত একজন লোক রাস্তায় কয়েকটা নারকেল আর ধনেপাতার পসরা সাজিয়ে বসে আছেন। সেখানে একটা জরাজীর্ণ বস্তাই যেন তার বসার চেয়ার আর পিচঢালা ধুলোমাখা রাস্তাই ব্যাবসার চটি।
তার সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান, তার নাম ইব্রাহিম হোসেন। বয়স প্রায় ৬৫ বছর। তিনি নগরীর পবা থানাধীন বড়গাছি গ্রামের মৃত গুল মোহাম্মাদ সরকারে ছেলে। ছয় ভাই এবং দুই বোনের মধ্যে ইব্রাহিম দ্বিতীয়। তার দুই ছেলে এবং দুই মেয়ে। মেয়েদের বিয়ে দিয়ে দিয়েছেন এবং ছেলেরাও বিয়ে করে আলাদা হয়ে গেছেন। সংসার বলতে স্ত্রীসহ তিনিই।
তিনি জানান, তিনি যখন স্থানীয় বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণীতে পড়াশোনা করতেন তখন তার বাবা মারা যান। তারপর আর পড়াশোনা করা হয়নি। এতগুলো ভাই-বোনের সংসারে তখন নেমে আসে দূর্ভোগ। বাধ্য হয়েই একাজ-সে কাজ করেই তার সংসার চলতো।
তিনি আরো জানান, তিনি প্রায় ২৫ বছর ধরে তার এলাকা বড়গাছি বাজারে শনিবার এবং মঙ্গলবার শুধু বাজারের দিন লবণের ব্যাবসা করে আসছেন। সপ্তাহের অন্যান্য দিনেও বসে না থেকে এবং ভবিষ্যৎ চিন্তা করে বাড়তি আয়ের জন্য এই ছোট্ট ব্যাবসা শুরু করেন প্রায় বছর দুয়েক আগে।
দুই বছর ধরেই তিনি সকাল হলেই বেরিয়ে পড়েন নগরীর এই শহরের উদ্দেশ্যে। এখানে এসে অল্প পরিসরে কিছু নারকেল, ধনেপাতা, মরিচ, পিয়াজ, আমড়া, বরই ইত্যাদি পণ্য কিনেন। এর পর সুবিধা মতো জায়গায় বসে পড়েন তা বিক্রির জন্য। আশপাশের বাজার করতে আসা লোকজন এবং পথচারীই তার দোকানের ক্রেতা। তারপর সারাদিন ধরে তা বিক্রি করে রাত হলে আবার বাড়ি ফিরেন। এ থেকে যা রোজগার হয় তা দিয়েই তার বর্তমান জীবনের সংসার ঘড়ির কাঁটা সময় পার করে। এভাবেই হচ্ছে ইব্রাহিমের সংগ্রমী জীবন এবং জীবিকার পালা-বদল।

জানুয়ারি ২৪
০৪:২৯ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগর আ’লীগের সভাপতি হতে চাননি ফারুক চৌধুরী

নগর আ’লীগের সভাপতি হতে  চাননি ফারুক চৌধুরী

গুজব ছড়ানো হচ্ছে আসাদুজ্জামান নূর : আসন্ন ১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন। ইতোমধ্যে স্থানীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে, এবারের সম্মেলনে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনসহ সভাপতি হতে চান রাজশাহী-১ (তানোর-গাদাগাড়ী) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী। এসকল খবরের সত্যতা

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত