Daily Sunshine

নওগাঁর ক্লিনিকে নারীর মৃত্যু, ডাক্তার চম্পট

Share

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁয় সদর হাসপাতাল রোডে শাহ্ নার্সিং হোম এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামক বেসরকারি ক্লিনিকে ডাক্তারের ভূল চিকিৎসায় এক নারীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার দুপুরে সুফিয়া বেগম (৬০) নামের এক নারীকে ওই ক্লিনিকে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. কাজী ওহিদুল ইসলাম রোগী দেখার পর রোগীর লোকজনকে জানায় রোগীর জরুরী রক্তের প্রয়োজন।
চিকিৎসকের কথা মত রোগীর লোকজন বিকাল ৫টার দিকে ওই ক্লিনিক থেকে রক্ত সংগ্রহ করে ডাক্তারকে দিলে ওই রক্ত রোগীর শরীরে দেয়া মাত্র ১০ মিনিট পর রোগী মারা যায়। মৃত সুফিয়া বেগম জেলার মহাদেবপুর উপজেলার হরিপুর গ্রামের মৃত হামিদ সরদারের স্ত্রী। এ ঘটনায় জানাজানি হলে ক্লিনিকের মালিক নূরুল ইসলাম রোগীর লোকজনের সঙ্গে মোটা অংকের টাকায় আপোশ মিমাংসা হয়। পরে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসলে ক্লিনিকের মালিক তড়িঘড়ি করে মাইক্রো ভাড়া করে লাশ পাঠিয়ে দেয়। রোগীর জামাই আব্দুর রহিম বলেন, চিকিৎসা করতে এসে শ্বাশুড়ির লাশ হয়ে ফেরত হলো।
রোগীর সঙ্গে আসা আত্মীয়া তসলিমা বলেন, রোগী সুস্থ ছিল কিন্তু ডাক্তার ভূল চিকিৎসা দিয়ে মেরে ফেলেছে। ধারনা করা হচ্ছে, রোগীর শরীরে ব্লাড মাসিং না হওয়ার কারনে রোগীর মৃত্যু হয়েছে। ডা. কাজী ওহিদুল ইসলাম রোগী মারা যাওয়ার সাথে সাথে ক্লিনিক থেকে পলায়ন করেন। ক্লিনিকের ও‘টি ও বিভিন্ন দিকের ব্যবস্থাপনা দেখলে মনে হয় এটি একটি বাড়ি যার নেই কোন ডাক্তার নেই কোন প্রয়োজনীয় জনবল।
এ বিষয়ে নওগাঁর সির্ভিল সার্জন ডা. মমিনুল হকের সঙ্গে সেল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় নওগাঁর জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদকে জানালে তিনি বলেন বিষয়টি সিভিল সার্জনের দেখার কথা তথাপি আমি তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার জন্য বলছি।
নওগাঁ সদর মডেল থানার এস.আই রবিউল বলেন, মৃতের পক্ষ থেকে কেউ অভিযোগ করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
গত কয়েক দিন আগেও শহরের পার-নওগাঁয় বেসরকারি নওগাঁ ডায়াবেটিক সমিতি হাসপাতালে ভূল সিজারিয়ান অপারেশনে রাজিয়া সুলতানা (২৭) নামে এক প্রসূতি অপারেশন টেবিলেই মারা যায়।

জানুয়ারি ১৬
০৪:৩২ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

তবুও স্বপ্ন দেখেন আকবর

তবুও স্বপ্ন দেখেন আকবর

মাহবুব মোরসেদ : আকবর আলী। বয়স ৪৮ বছর। চার ভাই ও এক বোন। পিতা আব্দুল্লাহ। বাড়ী নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলার আই-হাই গ্রামে। বাবা-মা মারা গেছে অনেক আগে। সীমান্তবর্তী এই উপজেলার সীমান্ত ঘেঁষা গ্রাম এটি। কাজের সন্ধানে অনেক বছর আগে অন্য দেশে পাড়ি জমায় অন্য তিন ভাই, মোনতাজ, লতিফ ও বাবু।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত