Daily Sunshine

এনজিওর কিস্তি দিতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

Share

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি: বড়াইগ্রামে এনজিওর কিস্তি পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে বিউটি খাতুন (৩৪) নামে এক গৃহবধু গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বিউটি খাতুন নিশ্চিন্তপুর গ্রামের আলতাফ হোসেনের স্ত্রী ও জয়নাল আবেদীনের মেয়ে। সংসার জীবনে তার দু’জন ছেলেমেয়ে রয়েছে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য ডা. নুর ইসলাম সিদ্দিকী জানান, বিউটি খাতুন একটি এনজিও থেকে তার পিতাকে কিছু টাকা ঋণ তুলে দিয়েছিলেন। সোমবার সে ঋণের সাপ্তাহিক কিস্তি দেয়ার নির্ধারিত দিন ছিলো। কিন্তু তার পিতা কিস্তির টাকা যোগাড় করতে পারেননি।
এদিকে, এনজিও’র লোকজন কিস্তির জন্য বারবার চাপ দিচ্ছিলেন। এতে ক্ষোভে অভিমানে সন্ধ্যায় আরিফা খাতুন পরিবারের সদস্যদের অগোচরে নিজ শোবার ঘরের তীরের সঙ্গে দড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস নেন। পরে গোঙানীর শব্দে বুঝতে পেরে স্বজনেরা বিউটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
বড়াইগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক সানোয়ার হোসেন জানান, সোমবার রাতেই নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানুয়ারি ১৫
০৪:০৩ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

তবুও স্বপ্ন দেখেন আকবর

তবুও স্বপ্ন দেখেন আকবর

মাহবুব মোরসেদ : আকবর আলী। বয়স ৪৮ বছর। চার ভাই ও এক বোন। পিতা আব্দুল্লাহ। বাড়ী নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলার আই-হাই গ্রামে। বাবা-মা মারা গেছে অনেক আগে। সীমান্তবর্তী এই উপজেলার সীমান্ত ঘেঁষা গ্রাম এটি। কাজের সন্ধানে অনেক বছর আগে অন্য দেশে পাড়ি জমায় অন্য তিন ভাই, মোনতাজ, লতিফ ও বাবু।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত