Daily Sunshine

লাল-সবুজের ফেরিওয়ালা

Share

রোজিনা সুলতানা রোজি : আর মাত্র ক’দিন পরই মহান বিজয় দিবস ১৬ ডিসেম্বর। এ দিবসকে ঘিরে সর্বত্রই বাড়তি আবেগ। সেই আবেগ উত্তেজনা যেন ছুঁয়ে দিয়েছে জাতীয় পতাকাকেও। এখন শহরের বিভিন্নস্থানে চোখ মেললেই দেখা মিলছে লাল সবুজে ঘেরা জাতীয় পতাকা। লাল সবুজ পতাকা মানেই বিজয় নিশান। লাল সবুজ পতাকা চোখে পড়লেই যে কারোরই মনে পড়বে বাংলাদেশের ইতিহাস। জাগ্রত হবে দেশপ্রেম। দেশপ্রেমীরা এই মাসের শুরু থেকেই তাদের বাড়ির ছাদ, আবার কেউ কর্মক্ষেত্র বা পড়ার টেবিলে, বিভিন্ন ধরনের যানবাহনে বিজয় নিশান উড়াচ্ছেন। কেউ কেউ মাথায়, হাতে বেল্ট আকারে আবার কেউ তাদের পছন্দের পোশাকেও জানান দিয়ে মনে করাচ্ছেন বিজয়ের এই দিনের কথা।
দেশপ্রেমীদের বিজয় নিশানের যোগান দিতেই কাঁধে লম্বা বাঁশ নিয়ে তার সঙ্গে থরে থরে বিভিন্ন মাপের জাতীয় পতাকা বিক্রি করছেন একদল যুবক। তারা ফরিদপুর থেকে এসে এই মৌসুমে রাজশাহী নগরীর অলি-গলি রাজপথে পতাকা বিক্রি করছেন। এই জাতীয় পতাকা বিক্রি করেই জীবিকা নির্বাহ করছেন তারা।
অলি গলি রাজপথে দৃশ্যমান হচ্ছে এখন লাল-সবুজ। ফেরিওয়ালারা মনের আনন্দে প্রিয় রং ফেরি করে বেড়াচ্ছেন। একইসঙ্গে বাঙালীর সংগ্রামের ইতিহাসকে তুলে ধরছে জাতীয় পতাকা। মুক্তিযোদ্ধারা যে কারণে অস্ত্র হাতে লড়েছিলেন, জীবনকে তুচ্ছ জ্ঞান করেছিলেন যে কারণে, সেইসব কারণ খুঁজতে উৎসাহী করছে।
বৃহষ্পতিবার নগরীর সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট এলাকায় কথা হয় এক পতাকা বিক্রেতা যুবকের সাথে। তিনি জানান, তার নাম আমিনুল (১৮)। তিনি ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা থানাধীন বাওনকান্দা গ্রামের আক্কাস শেখের ছেলে। বাবার অর্থনৈতিক অবস্থা সোচনীয় হওয়ায় পড়ালেখায় তেমন এগোতে পারেননি। ৬ষ্ঠ শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন তিনি। একমাত্র ছোট বোন সুমি স্থানীয় বিদ্যালয়ে ৫ম শ্রেণীতে পড়ে।
সংসারের হাল ধরতে পড়ালেখাকে বিসর্জন দিয়ে বিভিন্ন কাজের সন্ধানে ছুটে বেড়ান। খুজে নেন ঢাকায় ফার্নিচারের কাজ। কাজের ফাঁকে বিভিন্ন মৌসুমে যেমন, মার্তৃভাষা দিবস ২১শে ফেব্রুয়ারী, স্বাধীনতা দিবস ২৬শে মার্চ, মহান বিজয় দিবস ১৬ই ডিসেম্বর ইত্যাদি বিশেষ দিবসে জাতীয় পতাকা বিক্রি করেন। এ জন্য কখনো ঢাকা, ফরিদপুর আবার কখনো রাজশাহীসহ বিভিন্ন জেলায় ছুটে বেড়ান তিনি।
এভাবে কাজের সুবাদেই আবারো রাজশাহী শহরে এসেছেন কয়েকদিন হলো। পতাকা বিক্রি করে তার যে আয় হয় তা দিয়ে বোনের পড়াশোনা এবং সংসার খরচের জন্য বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। তিনি আরো জানান, বাবু শেখ (৩৫), মিজান (৩৫), জালো (৫৫), আইয়ুব (৭০), মাসুমসহ তারা প্রায় আট-দশ জন একসাথে ফরিদপুর থেকে রাজশাহী এসেছেন। তারা একত্রে তেরখাদিয়া এলাকায় একটি রুম ভাড়া নিয়েছেন। সবাই নগরীর বিভন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে পতাকা বিক্রি করছেন।

ডিসেম্বর ১৩
০৪:৩৬ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

একজন জীবন সংগ্রামী ইব্রাহীম

একজন জীবন সংগ্রামী ইব্রাহীম

রোজিনা সুলতানা রোজি : জীবনের প্রয়োজনে জীবিকার সাথে মানুষের আজীবনের সন্ধি। মানুষ মৃত্যু পর্যন্ত জীকিকার জন্য জীবনের সাথে সংগ্রাম করেন। এই সংগ্রামী জীবনযুদ্ধে কেউ হারে না। হয় জিতে না হয় শিখে। কেউ অন্যের দেখে শিখে তো কেউ আবার তার বাস্তব জীবনে জন্ম থেকেই সেই কাজটি করতে করতেই এমনিইতেই শিখে যায়।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত