Daily Sunshine

বাবুর্চি থেকে হোটেল মালিক আফজাল

Share

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: ছিলেন বাবুর্চি এখন হোটেল মালিক। ৯০’ এর দশকে হোটেলের বয় হিসাবে যাত্রা শুরু এই যুবকের। আজ তিনি নিজেই একটি হোটেল পরিচালনা করছে। সুদীর্ঘ এই পেশাদার জীবনে অনেক পেয়েছেন। পেয়েছেন অর্থ, খ্যাতি, সম্মান ও সর্বোপরি সবার ভালোবাসা।
এ ছাড়া বাগমারার সকল হোটেল কর্মচারিরা তাকে নেতাও বানিয়েছে। তিনি এখন বাগমারা হোটেল কর্মচারি সমিতিরি সভাপতি আফজাল। সভাপতি হলেও গোটা উপজেলা ও এর আশেপাশের এলাকায় তিনি সর্বমহলে আফজাল বাবুর্চি হিসাবে পরিচিত।
জানা গেছে ১৯৯০ সালে হোটেলে হোটেলে প্রথম বয়ের কাজ নেন আফজাল। সে সময় ভাই ভাই হোটেল ছিল উপজেলার একমাত্র হোটেল। এ হোটেলের মালিক প্রয়াত সাকবর আলী মোল্লার হাত ধরেই হোটেল বয়ের কাজে নেমে পড়েন আফজাল। দেখতে দেখতে ত্রিশ বছর কেটে যায় তার একই পেশায়। এরই মাঝে হার্ট এ্যাটার্কে মারা যান সাকবর আলী মোল্লা। সে সময় আফজাল বাবুর্চি হাল ধরে ভাই ভাই হোটেলের সুখ্যাতি ধরে রাখেন।
পরে নিজেই একটি হোটেল পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেন। সে সময় উপজেলা পরিষদের গেইটে বিজলী হোটেল এ্যান্ড রেস্টুরেন্টটি ভাড়া নিয়ে হাটলে ব্যবসায় নেমে পড়েন আফজাল। এরপর তাকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। উপজেলা ব্যাপি ছড়িয়ে পড়ে আফজালের সুনাম। বিয়ে বাদিসহ সকল অনুষ্ঠানে বাবুর্চি হিসাবে ডাক পড়ে আফজালের।
আফজাল জানান, এর আগের জেলা প্রশাসক আব্দুল কাদের তার হাতের রান্না খেয়ে ব্যাপক প্রশংসা করেছেন। প্রশংসা করেছেন আগের ইউএনও জাকিউল ইসলাম। তিনি বাগমারায় থাকতে মাঝে মধ্যে রান্নার কাজে ডেকে পাঠাতেন আফজালকে। পোলাও কোর্মা কোপ্তা রোস্ট, কয়েক পদের বিনিয়ানীসহ পাকিস্থানী ইন্ডিয়ান ইরানী চাইনিজ ও থাইসহ বিভিন্ন রান্নায় অত্যন্ত পারদর্শী আফজাল হোসেন।
বাবুর্চি হিসাবে তার এখন অনেক শিষ্য তৈরি হয়েছে। এসব শিষ্যদের অনেকে ঢাকা রাজশাহীতে বড় বড় হোটেলে কর্মরত আছেন। স্থানীয় ভাবে রান্নার ডাক পড়লে আফজাল তার শিষ্যদের পাঠিয়ে থাকেন। শিষ্যরা তাকে বড়ই মান্য করে। প্রায় তারা বিভিন্ন উপহার নিয়ে দেখতে আসে ওস্তাদকে।
হোটেল ব্যবসা করে আফজাল এখন সুখের নাগাল পেয়েছেন। ভবানীগঞ্জ চাঁনপাড়া মহল্লায় ৫ শতক জমি কিনে নির্মাণ করেছেন পাকা বাড়ি। এখানেই ছেলে পুলে নিয়ে তার বসবাস। আফজালের স্বপ্ন তিনি তার আদরের সন্তানকে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনের পর বিসিএস পাশ করে প্রশাসনিক কর্মকর্তা তৈরি করে দেশের সেবায় আত্ম নিয়োগ করাতে চান।

ডিসেম্বর ০১
০৪:২৬ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সেলাই মেশিনেই চল্লিশ বছর

সেলাই মেশিনেই চল্লিশ বছর

রোজিনা সুলতানা রোজি : জীবন তো চলবেই জীবনের মতো ! তবে জীবনের মান চলমান রাখতে বিভিন্ন জন বেছে নিচ্ছেন বিচিত্র পেশা। কারন, জীবনের ভার বহন করতে জীবিকা প্রয়োজন সর্বাগ্রে। কেউ ছোটবেলা তো কেউ বড় হয়ে, সবাইকেই কোনো না কোনো পেশার সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করতেই হয়। যার যার সুবিধা মত তারা

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত