Daily Sunshine

জাপানি নারীদের কর্মস্থলে চশমা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা

Share

সানশাইন ডেস্ক: কর্মস্থলে নারীদের চশমা পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে কয়েকটি জাপানি প্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি এ ব্যাপারে দেশটির সংবাদমাধ্যম নিপ্পন টিভি ও বিজনেস ইনসাইডার জাপান পৃথক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
বিজনেস ইনসাইডার জানিয়েছে, একটি প্রতিষ্ঠান তাদের নারী রিসিপশনিস্টকে কর্মস্থলে চশমা ব্যবহার না করার নির্দেশ দিয়েছে। তবে পুরুষ রিসিপশনিস্টকে এই নিষেধাজ্ঞার বাইরে রাখা হয়েছে। একটি বিউটি ক্লিনিকে কর্মরত এক নার্সকেও তার প্রতিষ্ঠান চশমা ব্যবহার না করার নির্দেশ দিয়েছে। এছাড়া কর্মস্থলে সার্বক্ষনিক মেকআপ ব্যবহার ও ওজন নিয়ন্ত্রণের নির্দেশও দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
অভ্যন্তরীণ বিমান পরিচালনাকারী একটি সংস্থা জানিয়েছে, নিরাপত্তার কারণে তারা প্রতিষ্ঠানে চশমা ব্যবহার না করার নিয়ম জারি করেছে। এছাড়া নারী কর্মীরা চশমা ব্যবহার করলে সেটি ঐতিহ্যগত বেশভূষার সঙ্গে মানানসই নয় বলে জানিয়েছে কয়েকটি রেঁস্তোরা। চশমা নিয়ে কর্তাদের এতো হৈচৈ কেন? সংবাদমাধ্যম দুটিতে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নারীরা জানিয়েছেন, কর্তাদের দৃষ্টিতে নারী কর্মীরা চশমা ব্যবহার করলে তাদের নাকি ‘শান্ত আবেগের’ প্রকাশ হয় না, কিংবা মেকআপ ঢেকে যায় কিংবা কর্তারা এমনিতেই তা পছন্দ করেন না।
ক্ষুব্ধ নারীরা ইতোমধ্যে তাদের ক্ষোভ প্রকাশের জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমকে বেছে নিয়েছেন। বুধবার থেকে তারা টুইটারে ‘গ্লাসেস আর ফরবিডেন’ হ্যাশট্যাগ চালু করেছেন। ইউমি ইশিকাওয়া নামে এক নারী ব্লুমবার্গ নিউজকে বলেছেন, ‘কর্মস্থলে চশা পরা যদি সমস্যা হয় তাহলে নারী-পুরুষ উভয়ের ওপরই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হোক।…আসলে এই নিয়মটি কেবল নারী কর্মীদের জন্যই।’

নভেম্বর ১০
০৩:৫১ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

জীবিকা যখন কান পরিস্কার

জীবিকা যখন কান পরিস্কার

স্টাফ রিপোর্টার: নগরীতে প্রায় ৪০ বছর ধরে কান পরিস্কার করে যাচ্ছেন চারঘাটের রতন আলী। তার বয়স এখন ৫৬ বছর চলছে। সেই ১৯৮০ সাল থেকে এ পেশায় জীবিকা নির্বাহ করছেন। রতন আলী চারঘাট উপজেলার খোর্দ্দগোবিন্দপুর চকরপাড়া থেকে প্রায় প্রতিদিনই রাজশাহী নগরীতে আসেন। নগরীর বিভিন্ন পাড়া মহল্লা অফিস ঘুরে ঘুরে কান পরিস্কার

বিস্তারিত




চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত