Daily Sunshine

রাজশাহীতে বিশ্ব রেডিওলজি দিবস পালন

Share

স্টাফ রিপোর্টার: ‘ইওর সেফটি আওয়ার প্রায়োরিটি’ সারাদেশের মতো রাজশাহীতেও বিশ^ রেডিওলজি দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব রেডিওলজি অ্যান্ড টেকনোলজিস্টের রাজশাহী জোনের আয়োজনে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।
এর মধ্যে সকাল ১০টায় রাজশাহী ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি (আইএইচটি) থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি নগরীর লক্ষ্মীপুর হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) সামনে থেকে ঘুরে আবার আইএইচটিতে গিয়েই শেষ হয়। পরে সেখানে কেক কাটা হয়। এরপর অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা।
সভায় বক্তরা চিকিৎসাক্ষেত্রে রেডিওলজির গুরুত্ব তুলে ধরেন। তারা বলেন, চিকিৎসা বিজ্ঞানে রেডিওলজির অবদান অনেক। মানুষের শরীরের সুক্ষ্ম রোগগুলোও রেডিওলজি প্রযুক্তি ব্যবহার করে নির্ণয় করা সম্ভব। আর চিকিৎসা বিজ্ঞানে এক গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কার হচ্ছে এক্স-রে। আর এক্স-রে থেকেই মূলত এই বিভাগের জন্ম। রেডিওলজি প্রযুক্তি আবিষ্কারের পর এটি সফলতার সাথে মানুষের রোগ নির্ণয়ে কাজ করে যাচ্ছে।
বক্তারা আরো বলেন, রেডিওলজি যেমন গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে তেমনি এর কিছু সমস্যাও রয়েছে। সিটি স্ক্যান, এক্সরে থেকে যে রেডিয়েশান নির্গত হয় তা মানুষের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তাই সাধারণ রোগীদের এবং যারা রেডিয়েশান নিয়ে কাজ করেন তাদের সচেতন করা এই দিবস পালনের অন্যতম উদ্দেশ্য।
সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. হাফিজুর রহমান। রামেকের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক তরুণ কুমার ধরের সজ্ঞলনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- রামেকের রেডিওগ্রাফির মেডিকেল টেকনোলজিস্ট তৌহিদুর রহমান, সাইফুল বাশার, শামসুদ্দীন ইসলাম, রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগের ইনচার্চ রেজাইল করিম, আব্দুস শুকুর প্রমুখ।

নভেম্বর ০৯
০৪:০০ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

হেমন্তেই শীতের পদধ্বনি

ফয়সাল আলম: কুয়াশার চাদরে মুড়ে শীত আসছে। এখন যদিও হেমন্তকাল তবুও শীতের আগমনী বার্তা শুরু হয়েছে রাজশাহী অঞ্চলে। কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা, অনুভূত হচ্ছে শীতের পদধ্বনি। সন্ধ্যার পর থেকেই শীত অনুভূত হচ্ছে। রাতে ও মধ্যরাতে অনুভূত হচ্ছে আরও বেশী। জেলা শহর ও সীমান্তবর্তী উপশহরসহ গ্রামাঞ্চলে শীত পড়তে শুরু করেছে। সন্ধ্যালগ্নে

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত