Daily Sunshine

বাগমারা ও পুঠিয়ায় দুই খুন

Share

স্টাফ রিপোর্টার, বাগমারা ও পুঠিয়া প্রতিনিধি : রাজশাহীতে একই দিনে পৃথক ঘটনায় দুইটি খুনের ঘটনা ঘটেছে। রাজশাহীর বাগমারা ও পুঠিয়া উপজেলায় পৃথক ওই দুই খুনের ঘটনা ঘটে। এরমধ্যে বাগমারায় পাওনা টাকা চাওয়ার জেরে দোকানীকে পিটিয়ে ও পুঠিয়ায় জমিজমার বিরোধ নিয়ে প্রতিবেশীর লাঠির আঘাতে বৃদ্ধ খুন হয়েছে।
রাজশাহীর বাগমারায় পাওনা টাকা চাওয়াই যোগীপাড়া ইউনিয়নের বীরকুৎসা উত্তর পাড়ার কফিল শাহ (৫৫) নামে এক মুদির দোকানীকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে। বুধবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে বীরকুৎসা রাজবাড়ি বাজারে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার নিহতের বড় ছেলে সেজ্জাক শাহ(৩২) বাদী হয়ে একই গ্রামের রমজানের ছেলে ফেরদৌস(৩২) ও আমজাদের পুত্র মিঠুনকে(৩০) আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কফিল শাহ বীরকুৎসা রাজবাড়ি বাজারে মুদির দোকানের পাশাপাশি বোতলে পেট্রোল বিক্রি করেন। একই গ্রামের রমজান আলীর ছেলে সিএনজি চালক ফেরদৌস (৩২) বাকিতে পেট্রোল নেয়। বিগত দিনের পাওনা টাকা চাওয়ায় উভয়ের মধ্যে সন্ধ্যার পর বাকবিতণ্ডা বাধে। এক পর্যায়ে ফেরদৌসের চাচাত ভাই মিঠুন (৩০) ঘটনাস্থলে আসেন। দোকানী কফিল শাহকে দোকান থেকে বের করে উভয়ে মারপিট করতে থাকে। এক পর্যায়ে কফিল শাহকে তারা পাকা রাস্তায় ফেলে দেয় ধাক্কা দিয়ে। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং মাথা ফেটে ঘটনা স্থলে দোকানী কফিল মারা যান। অসহায় দোকানীর এমন মৃত্যুতে এলাকার লোকজন ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
এদিকে, এলাকাবাসী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা অভিযোগ করেন, ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে একটি মহল উঠেপড়ে লেগেছে। তবে, পুলিশ এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
এই ব্যাপারে বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, মামলা ভিন্ন খাতে নিয়ে যাওয়া বা কারো কোন তদবিরের সুযোগ নেই। আমরা ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করেছি। লাশের সুরতহালে মাথার রক্তাক্ত জখম ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। আসামিরা ঘটনার পর থেকে পলাতক। তাদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।
অপরদিকে, রাজশাহীর পুঠিয়ায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিবেশীর লাঠির আঘাতে আব্দুস সালাম (৭০) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছে। নিহত আব্দুস সালাম উপজেলার ভাল্লুকগাছী চকপাড়া গ্রামের মৃত কহের মণ্ডলের ছেলে।
এলাকাবাসীরা জানান, নিহত আব্দুস সালামের সাথে তার প্রতিবেশী সুমনের দীর্ঘ দিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিবাদ চলছিল। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার সময় আব্দুস সালামের বাড়ির পাশে পানি নিস্কাশনের পাইপ নিয়ে প্রতিবেশী ইয়াদ আলীর ছেলে সুমনের বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে সমুন পাশে পড়ে থাকা বাঁশ দিয়ে আব্দুস সালামের মাথায় আঘাত করে। এ সময় ঘটনা স্থালে আব্দুস সালাম গুরুতর আহত হয়। সে সময় তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) ভর্তি করে। রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকাল ৪টার দিকে আব্দুস সালাম মারা যায়।
নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আজ (শুক্রবার) আব্দুস সালামের ময়নাতদন্ত করা হবে। থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।
এব্যপারে পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম বলেন, এখনো এ ব্যাপারে কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া বলে তিনি জানান।

নভেম্বর ০৮
০৪:৫৪ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

বইমেলায় ইলিয়াস আরাফাতের তৃতীয় গল্পগ্রন্থ ‘মৃগাঙ্ক ডোবার পরে’

বইমেলায় ইলিয়াস আরাফাতের তৃতীয় গল্পগ্রন্থ ‘মৃগাঙ্ক ডোবার পরে’

স্টাফ রিপোর্টার : গল্পকার ইলিয়াস আরাফাতের তৃতীয় গল্পগ্রন্থ ‘মৃগাঙ্ক ডোবার পরে’ অমর একুশে বইমেলায় পাওয়া যাচ্ছে। মা, মাটি ও দেশের সঙ্গে জড়িয়ে থাকে যারা। সেই মানুষগুলোর যাপিত জীবনের সুখ, দুঃখ, কষ্ট এবং ভালবাসার টানাপোড়নের মধ্যে দিয়েই সময় পাড়ি দিচ্ছে ধরণী। এমন কিছু মানুষের জীবন গল্প নিয়েই গল্পগ্রন্থ ‘মৃগাঙ্ক ডোবার পরে’।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত