Daily Sunshine

সেরা করদাতার তালিকায় ববিতা-মাশরাফি-সাকিব

Share

সানশাইন ডেস্ক: জর্দা ব্যবসায়ী মো. কাউছ মিয়া আবারও ব্যবসায়ী শ্রেণিতে সেরা করদাতা হয়েছেন। সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনও দ্বিতীয় সেরা করদাতা এই শ্রেণিতে। আর বর্তমান বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী সেরা করদাতা হয়েছেন সিনিয়র সিটিজেন শ্রেণিতে। এ ছাড়া আইনজীবী শ্রেণিতে সেরা করদাতার তালিকায় আছেন সাংসদ শেখ ফজলে নূর তাপস, আইনজীবী রফিক-উল-হক, খেলোয়াড় হিসেবে তিন ক্রিকেটার তামিম ইকবাল, সাবিক আল হাসান, মাশরাফি বিন মর্তুজা, অভিনেত্রী হিসেবে ফরিদা আক্তার ববিতা, গায়ক হিসেবে তাহসান রহমান খান ও গায়িকা মমতাজ।
প্রতিবারের মতো এবারও জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন শ্রেণিতে সেরা করদাতা হিসেবে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের এই তালিকা গতকাল বুধবার প্রকাশ করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এবারের তালিকায় ৭৬ ব্যক্তি করদাতা ও ৬৭টি প্রতিষ্ঠান আছে। তাঁরা কর কার্ড পাবেন। ১৪ নভেম্বর রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সেরা করদাতা ও প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ নির্বাহীদের হাতে কর কার্ড তুলে দেওয়া হবে। গত অর্থবছরে দেওয়া বার্ষিক কর বিবরণীর ভিত্তিতে এই তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে।
কর কার্ড পাওয়া ব্যক্তি করদাতারা বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় সুবিধা পাবেন। যেমন বিমানবন্দরে সিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহার, তারকা হোটেলসহ সব আবাসিক হোটেলে বুকিংয়ে অগ্রাধিকার; কর কার্ডধারী নিজে ও তাঁর স্ত্রী বা স্বামী, নির্ভরশীল সন্তানের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালে কেবিন সুবিধা প্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার; আকাশ, রেল ও জলপথে সরকারি যানবাহনে টিকিট প্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার এবং জাতীয় অনুষ্ঠানে এবং সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাসহ স্থানীয় সরকার কর্তৃক আয়োজিত সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ। এই কর কার্ডের মেয়াদ হবে এক বছর।
কোন শ্রেণিতে কারা পেলেন- জ্যেষ্ঠ নাগরিক: এই শ্রেণিতে আছেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, খন্দকার বদরুল হাসান, রাজশাহী কর অঞ্চলের অনিতা চৌধুরী, চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-১-এর আলীহোসাইন আকবরআলী ও ঢাকা কর অঞ্চলের মোস্তাফিজুর রহমান।
গেজেটভুক্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা: লে. জেনারেল (অব.) আবু সালেহ মো. নাসিম, এস এম আবদুল ওয়াহাব ও কুমিল্লার আল মামুন সরকার। প্রতিবন্ধী: চট্টগ্রামের সুকর্ণ ঘোষ, ঢাকার আকরাম মাহমুদ ও সিলেটের মামুনুর রশিদ।
নারী: ঢাকার রুবাইয়াত ফারজানা হোসেন, লায়লা হোসেন, হোসনে আরা হোসেন, পাবনার রত্না পাত্র ও মাহমুদা আলী শিকদার। তরুণ: নাফিস সিকদার, গাজী গোলাম মর্তুজা, মেহেদী হাসান, আবু রায়হান রুবেল ও জুলফিকার হোসেন মাসুদ রানা।
ব্যবসায়ী: ঢাকার মো. কাউছ মিয়া, সৈয়দ আবুল হোসেন, কামরুল আশরাফ খান, চট্টগ্রামের মোহাম্মদ কামাল ও ঢাকার আসলাম সেরনিয়াবাত। বেতনভোগী শ্রেণির পাঁচজনের মধ্যে তিনজনই একই পরিবারের। তাঁরা হলেন মোহাম্মদ ইউসুফ, খাজা তাজমহল ও এম এ হায়দার হোসেন। অন্যরা হলেন ইনসেপটা ফার্মার আব্দুল মুক্তাদির এবং চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা।
চিকিৎসক: সেরা পাঁচ করদাতা হলেন এ কে এম ফজলুল হক, প্রাণ গোপাল দত্ত, এম এ এম মোমেনুজ্জামান, নার্গিস ফাতেমা ও শামসুল আরেফিন। আইনজীবী: এই শ্রেণির সবাই কর অঞ্চল ৮-এর। তালিকায় আছেন সাংসদ শেখ ফজলে নূর তাপস, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, নিহাদ কবির, আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন ও রফিক-উল-হক।
প্রকৌশলী: ঢাকার রেজাউল করিম, শাহ মোহাম্মদ হান্নান ও চট্টগ্রামের এস এম আবু সুফিয়ান। স্থপতি শ্রেণিতে ফয়েজ উল্লাহ, রফিক আজম ও গোলাম আজম সিজার। হিসাবরক্ষক (অ্যাকাউনট্যান্ট): ঢাকার মোক্তার হোসেন, মনজুরুল আলম ও মোহাম্মদ ফারুক।
নতুন করদাতা হিসেবে সেরা হলেন ঢাকার মতিউর রহমান, সিলেটের সৈয়দা জমিলা বেগম, মিরাজুল ইসলাম, ঢাকার হোসনে নুজহাত, নারগিছ আকতার, মিয়া মো. রেজুয়ান কবির ও সোনিয়া সারহা পিংকি। খেলোয়াড় শ্রেণিতে আছেন তিন ক্রিকেটার। তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান ও মাশরাফি বিন মুর্তজা। অভিনেতা-অভিনেত্রী: আনিসুল ইসলাম হিরু, ফরিদা আক্তার ববিতা ও সাকিব খান। গায়ক-গায়িকা: তাহসান রহমান খান, এস ডি রুবেল ও মমতাজ বেগম। অন্যান্য শ্রেণিতে নাম আছে শওকত আলী চৌধুরী, আকতার মতিন চৌধুরী ও নজরুল ইসলাম মজুমদার।

নভেম্বর ০৮
০৪:৪৩ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

হেমন্তেই শীতের পদধ্বনি

ফয়সাল আলম: কুয়াশার চাদরে মুড়ে শীত আসছে। এখন যদিও হেমন্তকাল তবুও শীতের আগমনী বার্তা শুরু হয়েছে রাজশাহী অঞ্চলে। কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা, অনুভূত হচ্ছে শীতের পদধ্বনি। সন্ধ্যার পর থেকেই শীত অনুভূত হচ্ছে। রাতে ও মধ্যরাতে অনুভূত হচ্ছে আরও বেশী। জেলা শহর ও সীমান্তবর্তী উপশহরসহ গ্রামাঞ্চলে শীত পড়তে শুরু করেছে। সন্ধ্যালগ্নে

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত