Daily Sunshine

বাঘায় মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হকের ইন্তেকাল

Share

স্টাফ রিপোর্টার, বাঘা: পৃথিবীর সকল মায়া-মমতা ত্যাগ করে না ফেরার দেশে চলে গেলেন বাঘার বিশিষ্ঠ সমাজ সেবক ও ৭১ এ রনাঙ্গনের সৈনিক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক (ইন্নালিল্লাহি.. রাজিউন)। বুধবার সকাল ৯ টায় আড়ানী ঈদগা মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় প্রথম জানাজা ও চারঘাট উপজেলার ভায়ালক্ষীপুর ইউনিয়নের পরানপুর গ্রামে দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বার্ধক্যজনিত কারণে দির্ঘদিন অসুস্থ থাকার এক পর্যায় মঙ্গলবার দুফুরে মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক তাঁর নিজ বাড়ি আড়ানীতে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তিনি ১ স্ত্রী, ১ ছেলে, ১ মেয়ে-সহ অসঙ্খ গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর ছেলে শাহিনুর রহমান রাজশাহী বিভাগীয় সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক।
মরহুমের জানাজায় উপস্থিত ছিলেন বাঘা উপজেলা চেয়ারম্যান ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. লায়েব উদ্দীন লাবলু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা, বাঘা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার আলী, বাঘা পৌরসভার সাবেক মেয়র আক্কাছ আলী, বাঘা থানার তদন্ত ওসি আতিক রেজা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড আবদুল খালেক, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শফিউর রহমান শফি, আড়ানী পৌর আ’লীগের সভাপতি শহীদুজ্জামান শাহীদ ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিনসহ অসংখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লী।
এদিকে মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হকের মৃত্যুর খবর শুনে তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন স্থানীয় সাংসদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, রাজশাহী সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খাইরুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

নভেম্বর ০৭
০৪:২২ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

হেমন্তেই শীতের পদধ্বনি

ফয়সাল আলম: কুয়াশার চাদরে মুড়ে শীত আসছে। এখন যদিও হেমন্তকাল তবুও শীতের আগমনী বার্তা শুরু হয়েছে রাজশাহী অঞ্চলে। কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা, অনুভূত হচ্ছে শীতের পদধ্বনি। সন্ধ্যার পর থেকেই শীত অনুভূত হচ্ছে। রাতে ও মধ্যরাতে অনুভূত হচ্ছে আরও বেশী। জেলা শহর ও সীমান্তবর্তী উপশহরসহ গ্রামাঞ্চলে শীত পড়তে শুরু করেছে। সন্ধ্যালগ্নে

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত