Daily Sunshine

মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়নে আরডিএ এর সাথে রাসিকের উন্নয়ন ভাবনা

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী সিটি করপোরেশনের আয়োজনে আগামী ২৫ বছরের উন্নয়ন কর্ম-পরিকল্পনা নিয়ে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাথে মাস্টারপ্লান প্রণয়ন বিষয়ে উন্নয়নের ভাবনা শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত নগর ভবনের সিটি হলরুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় সভাপতির বক্তব্যে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, সুন্দর, স্বাস্থ্যকর, সমৃদ্ধ ও বাসযোগ্য নগরী গড়ে তুলতে প্রয়োজন সকলের একান্ত সহযোগিতা। নগরবাসীর জীবন যাপনের জন্য সুপরিকল্পিত যুগোপযোগী বাসযোগ্য পরিবেশ তৈরি এবং একটি সুন্দর ভবিষ্যত বিনির্মানের মাধ্যমে রাজশাহী মহানগরীকে অথনৈতিকভাবে সমৃদ্ধশালী করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়ন করা হচ্ছে। রাজশাহীর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ২০০৪ সালে প্রথম মাস্টারপ্ল্যানের অধিনে ৩৬৫ কিলোমিটার রাজশাহী মেট্রোপলিটন ডেভলোপমেন্ট প্ল্যান (আরএমডিপি) ২০০৪-২০২৪ প্রণয়ন করা হয়। প্ল্যানটি সরকারি অনুমোদনক্রমে ২০০৫ সালে গেজেট আকারে প্রকাশিত হয় যেটি চার স্তর বিশিষ্ট পরিকল্পনা।
মেয়র আরো বলেন, রাজশাহীর সার্বিক উন্নয়নকে সামনে রেখে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করতে হবে। মাস্টারপ্ল্যান তৈরি ও বাস্তবায়িত হলে রাজশাহী মহানগরের অধিবাসীগণ নানাবিধ সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। পরিকল্পিত এবং অপেক্ষাকৃত দুর্যোগ নিরাপদ নগর গড়ে উঠবে। নগরের বিরাজমান সম্ভাবনা সমূহ নিকটবর্তী ও দূরবর্তী জেলাগুলিকে আকৃষ্ট করবে। অর্থনৈতিক অবস্থা সচল হবে এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি পাবে। বিদ্যমান সমস্যা দূরীভুত হবে এবং সবুজ ও পরিচ্ছন্ন নগর গড়ে উঠবে। ফুটপাত, সুপ্রশস্ত রাস্তা তৈরি হবে ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটবে। কার্যকর নর্দমা ব্যবস্থার ফলে জলাবদ্ধতার নিরসন হবে। অবসর যাপন ও বিনোদনের উপযুক্ত স্থান বৃদ্ধি পাবে। ইতিহাস ও ঐতিহ্য সংরক্ষণের মাধ্যমে পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটবে।
মেয়র আরো বলেন, সকল উন্নয়ন সংস্থার সমন্বিত উদ্যোগে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। পদ্মা নদীর ধার উন্নয়ন, রাজশাহীতে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর স্থাপন, তারকামানের হোটেল নির্মাণসহ নগরীর উন্নয়নে জনপ্রতিনিধিদের মতামত গ্রহণের মাধ্যমে দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণে করতে আরডিএ কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানান তিনি।
সভায় রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোঃ আনওয়ার হোসেন বলেন, জনপ্রতিনিধিদের সুপারিশ ও পরামর্শ গ্রহণ করে মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়ন করা হবে। মডেল মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়নে জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক। পাওয়ার পয়েন্টে প্রেজেন্টেশন দেন মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়ন প্রকল্পের ডেপুটি টিম লিডার জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক আকতার মাহমুদ। সভায় উপস্থিত ছিলেন রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, প্যানেল মেয়র-২ ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাওগাতুল আলম, আরডিএর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম, সচিব আবু হায়াত মোঃ রহমতুল্লাহ, মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়ন প্রকল্পের টিম লিডার খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক শামীম মাহবুবুল হক প্রমুখ।
উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন রাসিকের ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহাদত আলী শাহু, ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহম্মেদ, ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ারুল আমিন আযব, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ সরকার টেকন, সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র ও ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযীম, ২নং সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর আয়েশা খাতুন, ১০নং সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর সুলতানা রাজিয়া। মতবিনিময় সভায় রাসিকের সকল কাউন্সিলর, আরডিএ ও রাসিকের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অক্টোবর ২৩
০৪:০১ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

জীবিকা যখন কান পরিস্কার

জীবিকা যখন কান পরিস্কার

স্টাফ রিপোর্টার: নগরীতে প্রায় ৪০ বছর ধরে কান পরিস্কার করে যাচ্ছেন চারঘাটের রতন আলী। তার বয়স এখন ৫৬ বছর চলছে। সেই ১৯৮০ সাল থেকে এ পেশায় জীবিকা নির্বাহ করছেন। রতন আলী চারঘাট উপজেলার খোর্দ্দগোবিন্দপুর চকরপাড়া থেকে প্রায় প্রতিদিনই রাজশাহী নগরীতে আসেন। নগরীর বিভিন্ন পাড়া মহল্লা অফিস ঘুরে ঘুরে কান পরিস্কার

বিস্তারিত




চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত