Daily Sunshine

মান্দায় শিক্ষক কর্তৃক সংখ্যালঘু পরিবারের ছাত্রী ধর্ষণের শিকার

Share

মান্দা প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় শিক্ষক কর্তৃক সংখ্যালঘু পরিবারের নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী (১৪) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। গত শুক্রবার সকালে উপজেলার কাঁশোপাড়া ইউনিয়নের ছোট চকচম্পক গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শিক্ষক আমিনুল ইসলাম ওই গ্রামের মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে। তিনি ছোট চকচম্পক বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।
ভিকটিম শিক্ষার্থীর দাদি জানান, ‘শুক্রবার সকালে ৭টার দিকে আমার নাতনিকে প্রাইভেট পড়ার জন্য প্রতিবেশি শিক্ষক আমিনুল ইসলামের বাসায় নিয়ে যাই। এসময় সেখানে আর কোনো শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিল না। নাতনিকে সেখানে রেখে আমি বাসায় চলে আসি। এর কিছু পরে নাতনি কাঁদতে কাঁদতে বাসায় ফিরে তার মায়ের নিকট শিক্ষক আমিনুল কর্র্র্র্তৃক ধর্ষণের বিষয়টি অবহিত করে।’
শিক্ষার্থীর দাদি আরও বলেন, অন্য শিক্ষার্থীদের অনুপস্থিতিতে শিক্ষক আমিনুল ইসলাম আমার নাতনিকে ডেকে বাসার তিনতলার একটি কক্ষে নিয়ে যায়। সেখানে মুখ চেপে ধরে ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণ করে। শিক্ষক আমিনুলের পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় সংখ্যালঘু পরিবারটি চরম আতঙ্কে রয়েছে বলেও দাবি করেন ভিকটিমের দাদি।
স্থানীয়রা জানান, এ ঘটনায় ভিকটিম শিক্ষার্থীর মা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিদুল ইসলামের নিকট গত শনিবার মৌখিক অভিযোগ দেন। কিন্তু প্রধান শিক্ষক এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ না নিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন। শিক্ষক আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে একাধিক নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ রয়েছে বলেও দাবি করেন স্থানীয়রা।
অবশেষে গত সোমবার ভিকটিমের মা বাদি হয়ে মান্দা থানায় শিক্ষক আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।
মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফফর হোসেন জানান, ঘটনাটি অবহিত হয়ে শিক্ষক আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা নেয়া হয়েছে। ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষাসহ আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

অক্টোবর ২৩
০৩:৫৭ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

হেমন্তেই শীতের পদধ্বনি

ফয়সাল আলম: কুয়াশার চাদরে মুড়ে শীত আসছে। এখন যদিও হেমন্তকাল তবুও শীতের আগমনী বার্তা শুরু হয়েছে রাজশাহী অঞ্চলে। কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা, অনুভূত হচ্ছে শীতের পদধ্বনি। সন্ধ্যার পর থেকেই শীত অনুভূত হচ্ছে। রাতে ও মধ্যরাতে অনুভূত হচ্ছে আরও বেশী। জেলা শহর ও সীমান্তবর্তী উপশহরসহ গ্রামাঞ্চলে শীত পড়তে শুরু করেছে। সন্ধ্যালগ্নে

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত