Daily Sunshine

আচারেই ভরসা মর্জিনার

Share

রোজিনা সুলতানা রোজি: জীবনের তাগিদেই মানুষকে বেছে নিতে হয় নানা পেশা। এটি একটি চলমান প্রকৃয়া। জীবন-যাপনের জন্য মানুষ বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত। জীবিকার জন্য নারীরাও করছেন নানা কাজ। পুরুষের পাশাপাশি তারাও সম্পৃক্ত হচ্ছেন বিভিন্ন ব্যবসায়। কেউ বড় পরিসরে তো কেউ ক্ষুদ্র পরিসরে নানা পন্যের পসরা সাজান। বিশেষ করে সমাজের দরিদ্র জনগোষ্ঠির ব্যবসা বলতেই ছোট্ট পরিসর। জীবিকার উৎস হিসেবে এদের মধ্যে কেউ কেউ কালাই রুটি, ভাপা পিঠা, সবজি, ফুল বিক্রিসহ বেছে নিয়েছে তাদের বেঁচে থাকার পথ। এমনই একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মর্জিনা।
চল্লিশ বছর বয়সী মর্জিনা বেগম জীবিকার তাগিদে বিভিন্ন রকম টক, ঝাল, মিষ্টি আচার বিক্রি করেই তার সংসারের হাল ধরেছেন। তিনি বিভিন্ন রকম মুখরোচক আচারের পসরা সাজিয়ে বসেন নগরীর বড়কুঠি এলাকায় পদ্মা গার্ডেনে। এভাবেই সংগ্রমী জীবনে ঘুরছে তার জীবিকার চাকা।
অনেকেই তাকে আন্টি বলেই ডাকেন। আচারের দোকানের সামনে দিয়ে কেউ গেলেই থরে থরে সাজানো আচার খেতে মন চাইবে সবার। অন্তত দৃষ্টি পড়বে সবার। এ সময় ‘আন্টি আমাকে পেয়ারা মাখা দেন, কেউ বলে জলপাই আচার দেন, চালতা আচার দেন, কেউ বলেন টক মিস্টি স্বাদের তেঁতুল আচার চাই। কেউ বলেন, বেলের আচার দেন, আমড়া মাখা দেন। ক্রেতাদের সামলাতে যেন নিঃস্বাস নেওয়ারও সময় নেই তার। আবার কখনো বা ক্রেতাদের অপেক্ষায় পথপানে চেয়ে থাকেন।
মর্জিনা বেগম জানান, তার বাড়ি নগরীর বাশার রোড, কেদুর মোড় এলাকায়। সেখানে একটি টিন শেড বাসায় স্বামী সুলতানকে নিয়েই থাকেন। কোন ছেলে না থাকলেও দুটি মেয়ে আছে যাদের বিয়ে দিয়েছেন আচার বিক্রি করেই। তাদের দেখভালসহ সংসারের একমাত্র ভরসাই আচার। তিনি জানান, দীর্ঘ ১৫-১৬ বছর ধরে এই আচার বিক্রি করেন। স্বামীর আচার বিক্রির সঙ্গি হয়ে তিনিও সহায়তা করছেন সংসারে। এতে তার সংসার ভালোই চলে বলে জানান মর্জিনা।

অক্টোবর ১৮
০৪:০৪ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

তবুও স্বপ্ন দেখেন আকবর

তবুও স্বপ্ন দেখেন আকবর

মাহবুব মোরসেদ : আকবর আলী। বয়স ৪৮ বছর। চার ভাই ও এক বোন। পিতা আব্দুল্লাহ। বাড়ী নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলার আই-হাই গ্রামে। বাবা-মা মারা গেছে অনেক আগে। সীমান্তবর্তী এই উপজেলার সীমান্ত ঘেঁষা গ্রাম এটি। কাজের সন্ধানে অনেক বছর আগে অন্য দেশে পাড়ি জমায় অন্য তিন ভাই, মোনতাজ, লতিফ ও বাবু।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত