Daily Sunshine

রেল যোগাযোগের যুগান্তকারী পদক্ষেপ

Share

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসের যাত্রা শুরু
দেশের উত্তর জনপদের অবহেলিত জেলা কুড়িগ্রাম। যোগাযোগের ক্ষেত্রে বহু পেছনে পড়ে ছিল রংপুরের এই জেলাটি। রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াতে এ কারণে এই জেলার মানুষকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয়। সরকার দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে যে উদ্যোগ নিয়েছে তারই অংশ হিসেবে কুড়িগ্রাম জেলাকেও অন্তর্ভুক্ত করেছে। বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই পিছিয়ে পড়া জেলার জন্যে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস নামে রেলওয়ের একটি ট্রেন সার্ভিস উদ্বোধন করেছেন। এটা ওই জেলাবাসীর জন্যে অবশ্যই একটি সুসংবাদ।
কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটির উদ্বোধনের খবর দিতে গিয়ে গতকাল বিভিন্ন দৈনিকে বলা হয়েছে বুধবার ছাড়া সপ্তাহে ছয়দিন কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি কুড়িগ্রাম-ঢাকার মধ্যে চলাচল করবে। সকাল ৭টা ২০মিনিটে ছাড়বে কুড়িগ্রাম থেকে আর ঢাকা থেকে রাত ৮ টা ৪৫ মিনিটে। আসন থাকছে ৬শ’ ২৬টি। ভাড়া ধরা হয়েছে শোভন চেয়ার ৫শ’ ১০ টাকা, এসি চেয়ার ৯শ’ ৭২ টাকা আর এসি বার্থের ১ হাজার ৭শ’ ৫০ টাকা। উত্তরের এই জনপদের মানুষ এখন খুব সহজে রাজধানী ঢাকায় যাতায়াত করতে পারবে।
কুড়িগ্রামবাসীর জন্যে এই ট্রেন সার্ভিস চালুর সাথে সাথে লালমনি ও রংপুর এক্সপ্রেসেও নতুন কোচ সংযোজন করা হয়েছে। দেশের রেল যোগাযোগের ক্ষেত্রে এসবই ইতিবাচক খবর। আমরা আশা করি উন্নয়নের এই ধারায় রেল ব্যবস্থার আধুনিকায়ন করা হবে যাতে দেশের সার্বিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে রেলের নাম সবার আগে চলে আসে। আমরা আশা করি সরকার এ ব্যাপারে যে গুরুত্ব দিয়েছে তার আলোকেই সে লক্ষ্যে পৌঁছাবে দেশের রেল যোগাযোগ।

অক্টোবর ১৮
০৩:৪৮ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

বাবুর্চি থেকে হোটেল মালিক আফজাল

বাবুর্চি থেকে হোটেল  মালিক আফজাল

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: ছিলেন বাবুর্চি এখন হোটেল মালিক। ৯০’ এর দশকে হোটেলের বয় হিসাবে যাত্রা শুরু এই যুবকের। আজ তিনি নিজেই একটি হোটেল পরিচালনা করছে। সুদীর্ঘ এই পেশাদার জীবনে অনেক পেয়েছেন। পেয়েছেন অর্থ, খ্যাতি, সম্মান ও সর্বোপরি সবার ভালোবাসা। এ ছাড়া বাগমারার সকল হোটেল কর্মচারিরা তাকে নেতাও বানিয়েছে। তিনি

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত