Daily Sunshine

নিশ্চিত করতে হবে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ

Share

বুয়েটে রাজনীতি নিষিদ্ধ
কলুষিত রাজনীতির কারণে দেশের সব পাবলিক বিশ^বিদ্যালয়ে ক্ষমতাশীনের ছাত্র সংগঠন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। আর তাদের এই আচরণের বলি হচ্ছেন উচ্চ শিক্ষা নিতে আসা শিক্ষার্থীরা। এমনি ভাবে গত ৪৮ বছরে দেশের বিভিন্ন বিশ^বিদ্যালয় নিহত হয়েছেন দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে। গত ১৯ বছরই মারা গেছে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে ২৪ জন। এর সর্বশেষ শিকার বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয় বুয়েটের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ। এই নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর ফুঁসে ওঠে সারাদেশের শিক্ষাঙ্গণের শিক্ষার্থীরা। আবরারের হত্যার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে বুয়েট শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে বৈঠক করেছেন বুয়েট উপাচার্য সাইফুল ইসলাম। বৈঠকের পর বুয়েটে ছাত্র শিক্ষকদের দলীয় রাজনীতি নিষিদ্ধ করেছে বুয়েট প্রশাসন।
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ে ছাত্র-শিক্ষকদের দলীয় রাজনীতি বন্ধের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদরা। তারা এই দৃষ্টান্ত দেশের অন্যান্য পাবলিক বিশ^বিদ্যালয়ে নেয়া হলে শিক্ষাঙ্গণে সুষ্ঠু পরিবেশ ধীরে ধীরে ফিরে আসবে বলে মনে করেন। তাঁদের এই অভিমত এসেছে মূলত ছাত্র রাজনীতির কলুষিত অবস্থা দেখে। যা শুরু হয়েছিল ১৯৭৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীগের হাতে তাদের দলের ১০জন সদস্য খুনের মধ্য দিয়ে। সে ধারা আরো খারাপ হয়েছে এবং সব সময় ক্ষমতাশীনদের ছাত্র সংগঠন বেপরোয়া আচরণ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে। শুধু ছাত্র রাজনীতিই নয় শিক্ষকরাও দলবাজের রাজনীতিতে যুক্ত হয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করে চলেছেন। এমন পরিস্থিতিতে বুয়েটের এই সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করে অন্য সব পাবলিক বিশ^বিদ্যালয় এক্ষেত্রে একটি উদ্যোগ নিতে পারে। আর এমনটা হলে বর্তমান অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটতে পারে বলে শিক্ষাবিদরা মনে করছেন।
এ কথা ঠিক ছাত্র রাজনীতি বন্ধ স্থায়ী কোন সমাধান নয় বরং যে কারণে দেশের ছাত্র রাজনীতি কলুষিত হয়েছে তার মূল অনুসন্ধান করা দরকার এবং এই কালো অধ্যায়ের এখানেই সমাপ্তি ঘটতে হবে। এ জন্যে ক্ষমতাশীন, ক্ষমতাভোগী ও ক্ষমতা প্রত্যাশিদের রাজনৈতিক সদিচ্ছাই যথেষ্ট। এক্ষেত্রে অবশ্যই ক্ষমতাশীনদের অগ্রণী ভূমিকা নিতে হবে। আমরা আশা করি সকল পক্ষ এ ব্যাপারে আন্তরিক হয়ে শিক্ষাঙ্গণকে দলীয় দুর্বৃত্তপনা রাজনীতি মুক্ত করে সুষ্ঠু শান্তিপূর্ণ শিক্ষার পরিবেশ নিশ্চিত করবেন। এটাই এখন দেশবাসী সাথে আমাদেরও চাওয়া যা একটি উন্নত সমৃদ্ধ গণতান্ত্রিক বাংলাদেশের জন্যে সব চেয়ে বড় প্রয়োজন।

অক্টোবর ১৩
০৩:৫৬ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

বাবুর্চি থেকে হোটেল মালিক আফজাল

বাবুর্চি থেকে হোটেল  মালিক আফজাল

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: ছিলেন বাবুর্চি এখন হোটেল মালিক। ৯০’ এর দশকে হোটেলের বয় হিসাবে যাত্রা শুরু এই যুবকের। আজ তিনি নিজেই একটি হোটেল পরিচালনা করছে। সুদীর্ঘ এই পেশাদার জীবনে অনেক পেয়েছেন। পেয়েছেন অর্থ, খ্যাতি, সম্মান ও সর্বোপরি সবার ভালোবাসা। এ ছাড়া বাগমারার সকল হোটেল কর্মচারিরা তাকে নেতাও বানিয়েছে। তিনি

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত