Daily Sunshine

ফুটবলের বাধা দূর হলো ইরানি নারীদের

Share

সানশাইন ডেস্ক: প্রায় চার দশক পর আবার ফুটবল স্টেডিয়ামে প্রবেশাধিকার পেলেন ইরানি নারী দর্শকেরা। শিয়াপন্থী মুসিলম দেশটির পুরুষভিত্তিক বিতর্কিত নীতির বিরোধিতা করে ফিফা ফুটবল থেকে তাঁদের বহিষ্কার করার হুমকি দেয়। এ হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে নারীদের জন্য স্টেডিয়াম খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ইরান। খবর এএফপির।
ইরান প্রায় ৪০ বছর ধরে ফুটবল এবং অন্যান্য স্টেডিয়ামে নারী দর্শকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। আলেমদের যুক্তি, নারীদের অবশ্যই পুরুষালি পরিবেশ এবং স্বল্প পোশাক পরা পুরুষদের নজর থেকে দূরে থাকা উচিত।
বিশ্ব ফুটবলের পরিচালনা পর্ষদ ফিফা গত মাসে ইরানকে নির্দেশ দিয়েছিল, কোনো বিধিনিষেধ ছাড়াই টিকিটের চাহিদা অনুযায়ী নির্ধারিতসংখ্যক নারীকে স্টেডিয়ামে প্রবেশের অনুমতি দিতে হবে। ‘ব্লু গার্ল’ নামে পরিচিত এক নারী ভক্ত একটি ম্যাচ দেখতে ছেলেদের পোশাক পরে স্টেডিয়ামে যান। ধরা পড়ার পর জেলে যাওয়ার ভয়ে নিজের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে মারা যান তিনি। এ ঘটনার পর ফিফার পক্ষ থেকে নির্দেশটি আসে।
ফিফা ২০২২ বিশ্বকাপ ফুটবলের বাছাইপর্বে অংশ নিতে কাল বৃহস্পতিবার তেহরানের আজাদি স্টেডিয়ামে কম্বোডিয়ার বিপক্ষে নামছে ইরান। এই ম্যাচের টিকিট পেতে নারীদের মধ্যে দারুণ আগ্রহ দেখা গেছে। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানায়, টিকিটের প্রথম ব্যাচ এক ঘণ্টার মধ্যে বিক্রি হয়ে যায়। অতিরিক্ত আসনও খুব দ্রুত বিক্রি হয়ে গেছে বলে এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।
ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, এক লাখ দর্শক ধারণক্ষমতাসম্পন্ন ‘স্বাধীনতা’ নামের স্টেডিয়ামটি আরও বেশি নারীর জায়গা দিতে প্রস্তুত। টিকিট পাওয়া সাড়ে তিন হাজার নারীর মধ্যে রাহা পূর্বাখশ অন্যতম। পেশায় তিনি ক্রীড়া সাংবাদিক।
বার্তা সংস্থা এএফপিকে রাহা বলেন, ‘আমি এখনো বিশ্বাস করতে পারছি না যে এমন কিছু ঘটতে চলেছে। কারণ, এত বছর ধরে এই ক্ষেত্রে কাজ করার পর, টেলিভিশনে খেলা দেখার পর, এবার আমি সশরীরে সবটা উপভোগ করতে পারব।’

অক্টোবর ১০
০৩:৫৬ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আচারেই ভরসা মর্জিনার

আচারেই ভরসা মর্জিনার

রোজিনা সুলতানা রোজি: জীবনের তাগিদেই মানুষকে বেছে নিতে হয় নানা পেশা। এটি একটি চলমান প্রকৃয়া। জীবন-যাপনের জন্য মানুষ বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত। জীবিকার জন্য নারীরাও করছেন নানা কাজ। পুরুষের পাশাপাশি তারাও সম্পৃক্ত হচ্ছেন বিভিন্ন ব্যবসায়। কেউ বড় পরিসরে তো কেউ ক্ষুদ্র পরিসরে নানা পন্যের পসরা সাজান। বিশেষ করে সমাজের দরিদ্র জনগোষ্ঠির

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত