Daily Sunshine

রাজশাহীতে ১১জনের যাবজ্জীবন

Share

ব্যবসায়ী আজিজুল হত্যা
স্টাফ রিপোর্টার : চাঁপাইনবাবগঞ্জের রামচন্দ্রপুরে ব্যবসায়ী আজিজুল হক-(আজু) হত্যা মামলায় ১১ জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। সেই সাথে দন্ডিতদের ১০ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে। অনাদায়ে প্রত্যেকের আরো ১বছর করে সশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। রোববার দুপুর ১২টায় রাজশাহী দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল আদালত সকল সাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে রাষ্ট্র পক্ষ এবং আসামী পক্ষের আইনজীবীদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।
দন্ডিতরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার বহরম ঘোষপাড়ার আব্দুল লতিফ ঘোষের ছেলে মো: ইঞ্জিল, চুনাখালি গুমপাড়ার লাল মোহম্মদ এর ছেলে মো: কালাম, মো: গোলাপ, কালামের ছেলে সাব্বির ওরফে নয়ন, শাহবুদ্দীনের বাঘা,রামচন্দ্রপুর ঘন্টলার ফজলুর মুন্নার ছেলে টুটুল ডহর পাড়ার এনা মড়ল এর ছেলে আপেল, মৃত গফুরের ছেলে আতিকুল, চান মুন্সির ছেলে মো: তোহা, একরামুল হকের ছেলে সিজার এবং মো: নাহু।
মামলার এজহার থেকে জানা যায় ২০১৪ সালে চাঁপাইনবাবগঞ্জে রামচন্দ্রপুর হাটে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২টি গ্রুপের মধ্যে চলা দ্বন্দের জের ধরে ২০১৪ সালের ৯জুন রাজমচন্দ্রপুর হাটে নুরুলের চায়ের দোকানের সামনে আসামীগন ব্যবসায়ী আজিজুল হক-(আজু)কে সম্মিলিত ভাবে হত্যা করে। এ সময় তারা ওই আঙ্গিনায় বিভিন্ন আগ্নেয় অস্ত্রের বিষ্ফোরন ঘটায়। এ ঘটনার পরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নবাবগঞ্জ মডেল থানায় ৪৩জনকে আসামী করে ১টি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার সাক্ষিদের সাক্ষ্য প্রমান ও জবানবন্দ্বীর ভিত্তিতে ১৮৬০ সালের দণ্ডবিধি আইনের ১৪৩,১৪৭,১৪৮,১৪৯,৩০২,১১৪,৩৪ ধারার অধিনে ১১জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়। বাকী ৩২জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র পক্ষ কোন সাক্ষ্য উপস্থাপন না করতে পারায় তাদের মামলা থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে।
অন্যদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নবাবগঞ্জ মডেল থানার দন্ডিত আসামীদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা মামলা ২৮১/২০১৫, বিষ্ফোরকদ্রব্য উপাদানাবলী আইন ১৯০৮ এর ৩ ও ৪ ধারায় উপরোক্ত আসামীদের ১১ জনকে ১৫ বছর সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। সেই সাথে দন্ডিতদের ১০ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে। অনাদায়ে প্রত্যেকের আরো ১বছর করে সশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে রাষ্ট্র পক্ষের কৌশলী এড. এনতাজুল হক বাবু বলেন, মামলার সাক্ষ্য গ্রহনে অনেক সমস্যা থাকা সত্বেও আমরা রাষ্ট্র পক্ষ থেকে প্রমান করতে পেরেছি। রায় যথার্থই হয়েছে।

সেপ্টেম্বর ২৩
০৪:০৪ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

রোজিনা সুলতানা রোজি : এমন এক সময় ছিল যখন মেয়েদের সাইকেল চালানোকে সমাজ নেতিবাচক দিক হিসেবেই দেখতো। মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে দেয়া হত যখন তারা বুঝতোই না যে বিয়ে কি? সাইকেল চালানো তো দূরের কথা মেয়েদের পড়ালেখারও তেমন সুযোগ দেয়া হত না। কিন্তু সমাজ আজ আধুনিকতার ছোঁয়ায় সচেতন হয়েছে। সমাজের

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত