Daily Sunshine

আসুন, সবাই দেশটাকে ভালোবাসি : খাদ্যমন্ত্রী

Share

নওগাঁ প্রতিনিধি: খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, আমরা এ দেশটাকে নিজের মনে করি। আমরা কে কোন দল করতাম, কোন নেতাকে বেশি ভালবাসি, সেটা বড় কথা নয়, দেশটাকে ভালবাসি। আমরা যে যার জায়গা থেকে সবাই মিলে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করি, তাহলে আমার মনে হয় ২০৪১ সাল নয় ২০৩১ সালের মধ্যেই আমরা কাংখিত লক্ষে পৌছে যাব।
তিনি বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে জোরে সোরে কাজ চলছে এবং জিরো টলারেন্সে প্রধানমন্ত্রী যে নির্দেশ দিয়েছে সেটা গ্রাম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। অতএব, আমাদের সাবধান হতে হবে। আমার কোন জেলা বা উপজেলার নেতারা যদি মাদকের সম্পর্কে কোন সুপারিশ করে তাহলে তার নামটা চার্জশিটে ঢুকিয়ে দেবেন।
এসময় মন্ত্রী শিক্ষদের উদ্যেশে বলেন, ক্লাসে গিয়ে প্রথমে মাদকের বিরুদ্ধে এক মিনিট কথা বলুন। এক মিনিট প্রতিদিন যদি বলতে থাকেন তাহলে তরুণ শিক্ষার্থীরা মাদক থেকে দূরে থাকবে। আসুন আমরা মাদককে জিরো টলারেন্সে নিয়ে গিয়ে আমরা নওগাঁকে মাদকমুক্ত করার আহবান জানান।
তিনি রবিবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা চোরাচালান বিরোধী টাস্কফোর্স কমিটির বিশেষ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। জেলা প্রশাসক হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে সভায় পুলিশ সুপার প্রকৌশলী মান্নান মিয়া বিপিএম, ১৪ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল জাহিদ হাসান, ১৬ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মোহাম্মাদ মাসুদ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কামরুজ্জামান, জেলা শিক্ষা অফিসার মোশারফ হোসেন, জেলা মাদক দ্রব্য সহকারী উপ-পরিচালক দিদারুল ইসলাম, পিপি এ্যাড. আব্দুল খালেক, জেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাছিমুল হক বুলবুলসহ বক্তব্য রাখেন।

সেপ্টেম্বর ২৩
০৩:৫৮ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

রোজিনা সুলতানা রোজি : এমন এক সময় ছিল যখন মেয়েদের সাইকেল চালানোকে সমাজ নেতিবাচক দিক হিসেবেই দেখতো। মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে দেয়া হত যখন তারা বুঝতোই না যে বিয়ে কি? সাইকেল চালানো তো দূরের কথা মেয়েদের পড়ালেখারও তেমন সুযোগ দেয়া হত না। কিন্তু সমাজ আজ আধুনিকতার ছোঁয়ায় সচেতন হয়েছে। সমাজের

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত