Daily Sunshine

ভোটারদের আস্থা ফেরাতে হবে

Share

নির্বাচনী ব্যবস্থা প্রসঙ্গ
দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থা সম্পর্কে নানান কথা এখন হচ্ছে। চলমান উপজেলা পরিষদের চার ধাপের ভোট গ্রহণ শেষে এই আলোচনা সমালোচনা চলছে সর্বত্র। যে দেশে ভোটের কথা শুনলে মানুষ আগ্রহ ভরে অপেক্ষা করতো, সেই দেশের মানুষ এখন ভোটের কথা শুনলে সে আগ্রহ দেখায় না। কেন এমন হলো, কাদের কারণে আজ ভোট কেন্দ্রগুলো ভোটার উপস্থিতি কমে যাচ্ছে সে নিয়েও বিস্তার কথা হচ্ছে। কিন্তু কোথা থেকেও এর একটি বিহিত করার সুনির্দিষ্ট কথা বলে হচ্ছে না। অথচ এখন এটাই জরুরী। কার্যত: নির্বাচনী ব্যবস্থার উপর যেন ফের জনআস্থার সৃষ্টি হয় সে উদ্যোগ নিতে হবে এটাই হতে পারে দেশের জন্যে, গণতন্ত্রের জন্যে সবচেয়ে ইতিবাচক দিক।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়েছে সব দলের অংশ গ্রহণে। কিন্তু সে নির্বাচনে যে সব অনিয়ম হয়েছে তা দূর করতে তেমন কোন দৃশ্যমান পদক্ষেপ দেখা যায়নি। উল্টো নির্বাচন কমিশনের কমিশনার গণ এবং খোদ প্রধান নির্বাচন কমিশনার যে বক্তব্য ক্ষণে ক্ষণে দিয়েছেন, তা নিয়ে ভোটারদের মধ্যে নানা প্রশ্নের জন্ম হয়েছে। এরপর যে ভাবে উপজেলা নির্বাচনের চারটি ধাপ শেষ হলো তাতে আরো যে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে গণমানুষের মাঝে, সে সব প্রশ্ন-যার কোন সদুত্তোর মেলেনি। এই অবস্থায় তাই সংগত ভাবেই নির্বাচন ব্যবস্থা সংস্কারের বিষয়টি প্রসঙ্গ চলে এসেছে।
গণতন্ত্রের মূল কথাই হচ্ছে, ভোটের ক্ষেত্রে যে যার পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেবেন এবং তাদের ভোটেই নির্বাচিত হবেন এক এক জন জনপ্রতিনিধি। ভোটের ও ভোটারের সেই ভাবনা কেন যেন আজ দূরে সরে গেছে। তাই তো ভোট কেন্দ্রে কমেছে ভোটারের উপস্থিতি, দেখা দিয়েছে বিরাট ফারাক ইভিএম কেন্দ্র ও সাধারণ কেন্দ্রের ভোট প্রাপ্তির হার। এতে বোঝা যায় জনআস্থার জায়গাটি কতটা দূর্বল হয়ে দাঁড়িয়েছে। সার্বিক ভাবে এটা দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার জন্যে কোন সুখবর নয়।
এমন এক অবস্থায় দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থাকে সংস্কার করতে রাজনৈতিক দলসহ সমাজের সব শ্রেণী পেশার মানুষকে সম্মিলিত উদ্যোগ নিতে হবে। কেননা বাংলাদেশ গঠিত হয়েছে মানুষের মুক্তচিত্র ও তার গণতান্ত্রিক সব অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য নিয়ে। আমরা যেন সে লক্ষ্য থেকে কখনো সরে না দাঁড়ায়। এ জন্যে আজ জরুরী জাতীয় ঐকমত্যের। আমরা আশা করি সবার ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসই আমাদের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ও গণতন্ত্র এবং জনগণের মৌলিক অধিকারকে সুরক্ষিত করবে।

এপ্রিল ০৭
০৩:০৮ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

বাবুর্চি থেকে হোটেল মালিক আফজাল

বাবুর্চি থেকে হোটেল  মালিক আফজাল

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: ছিলেন বাবুর্চি এখন হোটেল মালিক। ৯০’ এর দশকে হোটেলের বয় হিসাবে যাত্রা শুরু এই যুবকের। আজ তিনি নিজেই একটি হোটেল পরিচালনা করছে। সুদীর্ঘ এই পেশাদার জীবনে অনেক পেয়েছেন। পেয়েছেন অর্থ, খ্যাতি, সম্মান ও সর্বোপরি সবার ভালোবাসা। এ ছাড়া বাগমারার সকল হোটেল কর্মচারিরা তাকে নেতাও বানিয়েছে। তিনি

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত