Daily Sunshine

সড়ক ও ফুটপাত অবৈধ দখল প্রসঙ্গ

Share

রাজশাহী মহানগরের সড়ক এবং ফুটপাত দীর্ঘদিন থেকেই অবৈধ দখলে রয়েছে। শুধু তাই নয় সরকারি বহু স্থানও অবৈধ দখলে রয়েছে। এমন অবৈধ দখলদারের কারণে সড়ক ফুটপাত ও স্থানসমূহ এখন নগরকে নগরবাসীর জন্যে দুর্ভোগের জায়গায় এনে দাঁড় করিয়েছে। আর সে কারণে এই নগরের সড়ক ও ফুটপাতে চলাচল যন্ত্রণাদায়ক হয়ে উঠেছে। অথচ মহানগরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পরিবেশের সুরক্ষা এবং নগরবাসীকে উন্নত সেবা দেবার জন্যেই কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নগরের সড়ক সম্প্রসারণ ও দৃষ্টিনন্দন ফুটপাত নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু অবৈধ দখলদারদের কারণে এর বাস্তব কোন সুফল ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার এই নগরের বাসিন্দারা পাচ্ছেন না।
মহানগরের এই সমস্যাটি বহুদিন থেকে গণমাধ্যমে বারবার উঠে এসেছে। বিষয়টির প্রতি রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনও নজর দিয়েছে। আর তাই প্রথমে সরাসরি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন অবৈধ দখলদারদের সরে যেতে অনুরোধ করেছেন। এরপর সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিয়ে সব অবৈধ দখলদারদের সড়ক ফুটপাত ও সরকারি স্থান বা জায়গা খালি করে দেবার অনুরোধ জানিয়ে প্রচারপত্র বিলি ও মাইকিং করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে অনেকেই আইনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে নিজ দায়িত্ব সরে গেছেন। কিন্তু এখনো অনেকেই তার অবৈধ দখলদারিত্ব বজায় রেখেছেন।
মহানগরের সড়ক ও ফুটপাতের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে গতকালকের পত্রিকায় প্রধান খবর প্রকাশিত হয়েছে। এতে সামগ্রিক যে চিত্র তুলে ধরা হয়েছে তা সত্যি হতাশাজনক। মেয়রের সরাসরি অনুরোধ, এরপর কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে চূড়ান্ত সময়সীমা বেঁধে দিয়ে সরে যাওয়ার বার্তা দেয়া হলেও এতে গা করেনি অনেকেই। স্পষ্টত:ই এসব অবৈধ দখলদাররা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল তো নয়ই এমন কি এই নগরবাসীর প্রতিও তারা মোটেই শ্রদ্ধাশীল নন। এটা সত্যি দুঃখজনক এবং উদ্বেগের বিষয়ও বটে।
তবে যায় হোক এখন দেশজুড়ে যখন অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক অভিযান চলছে তখন রাজশাহী নগরেও অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে সড়ক ফুটপাত ও সরকারি স্থান সমূহ দখলমুক্ত করা হবে এটা নগরবাসীর সাথে আমরা প্রত্যাশা করি। মোটকথা সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন পরিবেশে রাজশাহী নগরবাসীকে নিরাপদে বসবাস ও চলাচলের সুযোগ সুনিশ্চিত করতে হবে। আশা করি সিটি কর্পোরেশন এ কাজটি করবে এবং যারা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল তাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবে। আর আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে নেয়া হবে ব্যবস্থা।

এপ্রিল ০৬
০৩:২১ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

বাবুর্চি থেকে হোটেল মালিক আফজাল

বাবুর্চি থেকে হোটেল  মালিক আফজাল

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: ছিলেন বাবুর্চি এখন হোটেল মালিক। ৯০’ এর দশকে হোটেলের বয় হিসাবে যাত্রা শুরু এই যুবকের। আজ তিনি নিজেই একটি হোটেল পরিচালনা করছে। সুদীর্ঘ এই পেশাদার জীবনে অনেক পেয়েছেন। পেয়েছেন অর্থ, খ্যাতি, সম্মান ও সর্বোপরি সবার ভালোবাসা। এ ছাড়া বাগমারার সকল হোটেল কর্মচারিরা তাকে নেতাও বানিয়েছে। তিনি

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত