Daily Sunshine

এমপিওভুক্ত হলো ২৭৩০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

Share

সানশাইন ডেস্ক: নতুন দুই হাজার ৭৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তির আওতায় আনার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর ফলে শিক্ষকদের দীর্ঘ নয় বছর প্রতীক্ষার অবসান হলো। বুধবার দুপুরে গণভবনে এসব প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির আওতায় আনার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী আজ ঘোষণা দিলেও এমপিওভুক্তির সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে গত জুলাই থেকে।

সব যোগ্য প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী এমপিওভুক্ত করা প্রতিষ্ঠানগুলোকে যোগ্যতা ধরে রাখার পরামর্শ দেন। এছাড়া এমপিওভুক্ত হয়ে গেলেও শিক্ষার মানের প্রতি যেন অবহেলা না করা হয় সে ব্যাপারে পরামর্শ দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোকে নীতিমালার শর্ত পূরণ করতে হবে। শর্তপূরণে ব্যর্থ হলে এমপিও বাতিল করা হবে। এমপিওভুক্তির দাবিতে ২০১০ সালের পর থেকেই থেমে থেমে আন্দোলন করে আসছিল এমপিওভুক্ত নয়, এমন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা। এমপিওভুক্তির দাবিতে গত কয়েকদিন থেকেও আন্দোলন করছিল শিক্ষকরা।

এর মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি জানান, সর্বশেষ ২০১০ সালে ১৬২৪টি প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়েছিল এবার সেই সংখ্যা দ্বিগুণ হবে।

সর্বশেষ ২০১০ সালে ১ হাজার ৬২৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছিল। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এবার ২৭৬৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য চূড়ান্ত করা হয়। এর মধ্যে ১ হাজার ৬৫০–এর মতো বিদ্যালয় ও কলেজ ছিল। তবে শেষ পর্যন্ত ২৭৩০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির ঘোষণা এলো।

সানশাইন/২৩ অক্টোবর/ রোজি

অক্টোবর ২৩
১৩:৪৩ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

শিল্পের নান্দনিকতায় মুগ্ধ দর্শনার্থী

শিল্পের নান্দনিকতায়  মুগ্ধ দর্শনার্থী

রোজিনা সুলতানা রোজি : এ যেন এক অন্য সবুজের সমারোহ এবং প্রকৃতিপ্রেমীদের মিলন মেলা। গাঢ় সবুজের ফাঁকে ফাঁকে শোভা পাচ্ছে লাল, সাদা, গোলাপী, হলুদসহ হরেক রকম ফুল। টবে বসানো আস্ত আস্ত সবুজ গাছের খর্বাকৃতি। বাংলাবট, লাইকড়, তেঁতুল, কামীনি প্রভৃতি সব গাছের সমারোহ। এ যেন শিল্পীর ছোয়ায় একেকটি নান্দনিক বৃক্ষের সমাহার।

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত