Daily Sunshine

গোদাগাড়ীতে পদ্মায় ব্যাপক ভাঙ্গন, নদীগর্ভে বিদ্যালয়

Share

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি: পানির প্রবাহ কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে পদ্মা নদীর ভাঙ্গন তীব্র আকার ধারন করেছে। একদিনে পদ্মায় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ ফসলী জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। উপজেলার চর আষাড়িয়াদহ ইউনিয়নের চর বয়ারমারী এলকায় এক কিলোমিটার জুড়ে নদীর ভাঙ্গন দেখা দেয়। এতে করে অর্ধ শতাধিক বাড়ী নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে দুইশতাধিক বাড়ী-ঘর ও একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

স্থানীয়রা জানান, নদীর তীর থেকে মাত্র ২০০ গজ দুরে থাকা দিয়াড় মানিকচক বোয়ালমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতল একটি ভবন সম্পূর্ণ নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে বুধবার দিবাগত রাতে। দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত আরেকটি ভবন দুই এক দিনের মধ্যে বিলীন হয়ে যাবে বলে বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আব্দুল লতিফ জানান। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বজলুর রশিদ বলেন, বিদ্যালয়টি নদী ভাঙ্গনের মুখে পড়ায় গত দুই সপ্তহে আসবাব পত্র ও প্রয়োজনীয় জিনিসিপত্র সরিয়ে নেয়া হয়। বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী রয়েছে ৪০০জন। এসব শিক্ষার্থীরা খোলা আকাশের নিচে ক্লাশ করছে। চর আষাড়িয়াদহ ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সানাউল্লাহ বলেন, ভাঙ্গনে বিদ্যালয়টি পদ্মায় হওয়ার বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ইমরানুল হক বলেন, নদী ভাঙ্গনে বিদ্যালয়ের একটি ভবন ভেঙ্গে যাওয়ার বিষয়টি জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। আর ভাঙ্গনের মুখে পড়া আরেকটি ভবন রক্ষা করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপজেলা প্রকৌশলী ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।#

সানশাইন/১০ অক্টোবর/ রোজি

অক্টোবর ১০
১৮:৫৯ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

রোজিনা সুলতানা রোজি : এমন এক সময় ছিল যখন মেয়েদের সাইকেল চালানোকে সমাজ নেতিবাচক দিক হিসেবেই দেখতো। মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে দেয়া হত যখন তারা বুঝতোই না যে বিয়ে কি? সাইকেল চালানো তো দূরের কথা মেয়েদের পড়ালেখারও তেমন সুযোগ দেয়া হত না। কিন্তু সমাজ আজ আধুনিকতার ছোঁয়ায় সচেতন হয়েছে। সমাজের

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত